¦
গত বছর সবচেয়ে বেশি শিশুর মৃত্যু দুর্ঘটনায়

ঢাকা, ১৬ এপ্রিল: | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

গত বছর দুর্ঘটনায় সবচেয়ে বেশি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি আত্মহত্যায় শিশু মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়ে গেছে বলে বেসরকারি সংস্থা মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন'র এক প্রতিবেদনে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি-সংবাদপত্রের পাতা থেকে’ শিরোনামে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় সংগঠনটি।
মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রথম আলো, যুগান্তর, সমকাল, ইংরেজি দৈনিক নিউ এজ ও ডেইলি স্টারে শিশুদের ওপর প্রকাশিত প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে দেশের শিশু পরিস্থিতি তুলে ধরে। এর আগে জাতিসংঘ বাংলাদেশ থেকে শিশু পরিস্থিতির ওপর যে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে সেটি যথেষ্ট তথ্যনির্ভর নয় বলে জানায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন গত চার বছর ধরে তথ্য সংগ্রহ করছে। শিশুদের অধিকার রক্ষায় মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে পৃথক শিশু অধিদপ্তর গঠনের সুপারিশ করেছে সংগঠনটে।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২০১৪ সালে পত্রিকায় ছাপা হওয়া এক হাজার ৮৫টি খবর অনুযায়ী বিভিন্ন দুর্ঘটনায় এক হাজার ৩৯৩টি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এদের ৫১৭ জনই মারা গেছে সড়ক দুর্ঘটনায়। গত বছরের মার্চে মারা গেছে ১৩৯ শিশু। নারায়ণগঞ্জ, যশোর, ঢাকা, চট্টগ্রাম ও গাইবান্ধায় সড়ক দুর্ঘটনায় সবচেয়ে বেশি শিশু মারা গেছে। একই সময়ে পানিতে ডুবে ৪৬৪ জন মারা যায়।
এদিকে গত বছর ২০৯ শিশু আত্মহত্যা করেছে। এর আগের বছর আত্মহত্যা করে ১৬৬ জন। পরিবারের সদস্যদের ওপর রাগ, যৌন হয়রানি, পরীক্ষায় ফেল করা, প্রেমে ব্যর্থতা ও পর্নোগ্রাফির শিকার হয়ে শিশুরা আত্মহত্যা করেছে বলে উল্লেখ করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত এক বছরে পত্রপত্রিকায় শিশুদের নিয়ে ২৫৭টি ইতিবাচক খবর ছাপা হয়েছে। বই মেলা, চলচ্চিত্র উৎসব, বিজ্ঞান মেলা, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, জাদু, গণিত উৎসবে অংশগ্রহণ নিয়ে করা হয় প্রতিবেদনগুলো।
মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম বলেন, মেয়ে শিশুদের মধ্যে আত্মহত্যার পরিমাণ বেশি এবং তারা নতুন নতুন কারণে আত্মহত্যা করছে। এটি খুবই উদ্বেগজনক। পর্নোগ্রাফি, যৌন হয়রানির শিকার হয়ে অনেক মেয়ে শিশু আত্মহত্যা করছে।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close