¦
প্রিপারেটরি স্কুলের উপাধ্যক্ষকে অব্যাহতি: শিক্ষকদের পাল্টা কর্মসূচি

ঢাকা, ১৬ মে: | প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৫

মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুলের প্রথম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির পর অভিভাবকদের বিক্ষোভের মুখে বিদ্যালয় থেকে উপাধ্যক্ষসহ সব পুরুষ কর্মচারীকে কর্তৃপক্ষ সরিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনা নিয়ে মন্তব্য করার জন্য উপাধ্যক্ষ জিনাতুন নেছাকেও অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তবে জিন্নাতুন নেসাকে অব্যাহতি দেয়ার প্রতিবাদে কর্মসূচি দিয়েছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।
শনিবার সকাল থেকে মানববন্ধনসহ বিক্ষোভ ও ঘেরাওয়ের পর দুপুরে বিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ম তামিম এই ঘোষণা দিয়ে অভিভাবকদের শান্ত করেন। একইসাথে এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ২৫ মে পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।
এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে হাই কোর্টে একটি রিট আবেদন হয়েছে। রোববার এর শুনানি হতে পারে।
ম তামিম বলেন, শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে ইতিমধ্যে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠণ করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করছে। কমিটির সুপারিশ পাওয়ার পর দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।
শনিবার বিকালে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার কথা থাকলেও দেয়া সম্ভব হয়নি বলে জানান কমিটির প্রধান মুস্তাফিজুর রহমান। এ বিষয়ে ম তামিম জানান, আজ প্রতিবেদন জমা দেয়ার শেষদিন হলেও বিশেষ কারণে তা জমা দেয়া হয়নি। তদন্তের সময়সীমা আরও তিন দিন বাড়ানো হয়েছে।
সকাল থেকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজে যৌন হয়রানির প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। বুধবার সকালে দুই শতাধিক অভিভাবক কলেজ ক্যাম্পাসে এসে শিক্ষার্থীদের নিয়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন। দুপুর পৌনে ১টার দিকে স্কুলের মাঠে অবস্থান নেওয়া অভিভাবকদের সামনে আসেন অধ্যক্ষ বেলায়েত। অধ্যক্ষ মাঠ ছেড়ে স্কুল ভবনের তিন তলায় নিজের কার্যালয়ে যাওয়ার পথে কয়েকজন অভিভাবক তাকে লাঞ্ছিত করেন।
অভিভাবকদের হাতে অধ্যক্ষ বেলায়েত হোসেন লাঞ্ছিত হওয়ায় পাল্টা বিক্ষোভ করেছে স্কুলের কর্মচারীরাও। বিক্ষোভকারী অভিভাবকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন একদল শিক্ষার্থীও।
এ অবস্থায় স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজানসহ এলাকার বেশ কয়েকজন উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা করেন। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। তবে পরিস্থিতি জটিলতার দিকে মোড় নিলে উপস্থিত হন স্কুলের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ম তামিম। অভিভাবকদের দাবির মুখে উপাধ্যক্ষ জিন্নাতুন নেসাকে অব্যাহতি দেয়ার ঘোষণা দেন তামিম। এছাড়া অধ্যক্ষ বেলায়েতসহ সংশ্লিষ্ট অন্যদেরও অব্যাহতি দেয়ার আশ্বাস দেন তিনি।
তামিম উপাধ্যক্ষকে অব্যাহতি দেয়ার ঘোষণা দিলে স্কুলের ভেতরে শিক্ষকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। তাদের বিক্ষোভ থেকে পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত এককভাবে ঘোষণা করতে একজন পারেন কি না, তা নিয়েও তারা প্রশ্ন তোলেন তারা।
উপাধ্যক্ষকে অব্যাহতির ঘোষণা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষকরা রোববার স্কুলের সামনে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন। অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে স্কুলের কর্মচারীরাও ভবনের দোতলার একটি কক্ষে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখান।
অভিভাবকদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কির পর শিক্ষার্থীরা স্কুল ভবনের দোতলায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। প্রয়োজনে ধর্মঘটে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে শিক্ষার্থীরা তাদের ওপর হাত তোলার জন্য অভিভাবকের বিচার দাবি করেন।
গত ৫ মে এই বিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবনের শ্রমিকদের থাকার একটি কক্ষে প্রথম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠে। এর আগে পঞ্চম ও চতুর্থ শ্রেণির আরও দুটি শিশু এ রকম ঘটনার শিকার হয়েছে। অভিভাভকদের অভিযোগ, স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করার পরেও এ পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। মানববন্ধন ও বিক্ষোভে অংশ নিয়ে ছাত্রীদের যৌন নির্যাতনে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close