jugantor
বরিশাল বুলস এর নাটকীয় জয়

  ঢাকা  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ২০:০৬:২০  | 

বিপিএলের তৃতীয় আসরের লীগ পর্বের শেষ মাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে নাটকীয় জয় পেল বরিশাল বুলস। ক্যারিবীয় ক্রিকেটার রায়াদ এমরিতের অর্ধশতে দুই বল বাকি থাকতে দুই উইকেটে জয় পেল মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল।
বৃহস্পতিবার বিপিএলের ৩০ তম ম্যাচে টসে জিতে ঢাকাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান বরিশালের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে নাসির হোসেনের দল
ঢাকা ডায়নামাইটসের দেয়া ১৩৭ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বরিশাল বুলস একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে। দুইজন ক্রিকেটার মাত্র দুই অঙ্কের ঘরে রান করেন।
ওপেনার মেহেদী মারুফ ৩৭ রান করে আউট হন। আর রায়াদ এমরিত ২৮ বলে ৫৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। ঢাকার পক্ষে মোশাররফ হোসেন ৩টি, নাবিল সামাদ ২টি, নাসির হোসেন ১টি, মোসাদ্দেক হোসেন ১টি, মোহাম্মদ ইরফান ১টি করে উইকেট নেন।
শেষ ওভারে বরিশাল বুলসের প্রয়োজন ছিলো ১০ রান। পাক পেসার মোহাম্মদ ইরফানের বোলিং আক্রমণে রায়াদ এমরিত প্রথম বলে চার মারেন। দ্বিতীয় বলে সিঙ্গেল নেন। তৃতীয় বলে কানাডিয়ান ক্রিকেটার নিখিল দত্ত সিঙ্গেল নেন। চতুর্থ বলে এমরিত চার মেরে দলের জয় নিশ্চিত করেন।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে নাসির হোসেনের দল ঢাকা ডায়নামাইটস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩০ রান করে অপরাজিত থাকেন মোসাদ্দেক হোসেন। আর বরিশালের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন নিখিল দত্ত। এদিন ম্যাচ সেরা হন বরিশাল বুলসের রায়াদ এমরিত।
এই ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেননি কুমার সাঙ্গাকারা। আর বরিশাল বুলসের হয়ে খেলেননি ক্রিস গেইল।
আগামী ১২ ডিসেম্বর এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হবে এই দুই দল।

সাবমিট

বরিশাল বুলস এর নাটকীয় জয়

 ঢাকা 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০৮:০৬ পিএম  | 

বিপিএলের তৃতীয় আসরের লীগ পর্বের শেষ মাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে নাটকীয় জয় পেল বরিশাল বুলস। ক্যারিবীয় ক্রিকেটার রায়াদ এমরিতের অর্ধশতে দুই বল বাকি থাকতে দুই উইকেটে জয় পেল মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল।
বৃহস্পতিবার বিপিএলের ৩০ তম ম্যাচে টসে জিতে ঢাকাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান বরিশালের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে নাসির হোসেনের দল
ঢাকা ডায়নামাইটসের দেয়া ১৩৭ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বরিশাল বুলস একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে। দুইজন ক্রিকেটার মাত্র দুই অঙ্কের ঘরে রান করেন।
ওপেনার মেহেদী মারুফ ৩৭ রান করে আউট হন। আর রায়াদ এমরিত ২৮ বলে ৫৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। ঢাকার পক্ষে মোশাররফ হোসেন ৩টি, নাবিল সামাদ ২টি, নাসির হোসেন ১টি, মোসাদ্দেক হোসেন ১টি, মোহাম্মদ ইরফান ১টি করে উইকেট নেন।
শেষ ওভারে বরিশাল বুলসের প্রয়োজন ছিলো ১০ রান। পাক পেসার মোহাম্মদ ইরফানের বোলিং আক্রমণে রায়াদ এমরিত প্রথম বলে চার মারেন। দ্বিতীয় বলে সিঙ্গেল নেন। তৃতীয় বলে কানাডিয়ান ক্রিকেটার নিখিল দত্ত সিঙ্গেল নেন। চতুর্থ বলে এমরিত চার মেরে দলের জয় নিশ্চিত করেন।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান সংগ্রহ করে নাসির হোসেনের দল ঢাকা ডায়নামাইটস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩০ রান করে অপরাজিত থাকেন মোসাদ্দেক হোসেন। আর বরিশালের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন নিখিল দত্ত। এদিন ম্যাচ সেরা হন বরিশাল বুলসের রায়াদ এমরিত।
এই ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেননি কুমার সাঙ্গাকারা। আর বরিশাল বুলসের হয়ে খেলেননি ক্রিস গেইল।
আগামী ১২ ডিসেম্বর এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হবে এই দুই দল।

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র