jugantor
এমপির সামনে যুবলীগ নেতাকে ওসির মারধর

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ২১:৫০:৩১  | 

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় বৃহস্পতিবার বিকালে এমপি সিমিন হোসেন রিমির সামনে যুবলীগ নেতাকে মারধর করেছে থানার ওসি। এর প্রতিবাদে টোক ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ নেতারা ঢাকা-কাপাসিয়া-কিশোরগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে। পরে ইউএনও আনিসুর রহমান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহর আশ্বাসে অবরোধ তোলে নেয়া হয়।
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার কাপাসিয়া শহরের সরকারি ডাকবাংলোতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ডায়মন্ড এগ লিমিটেড ও প্রোটিন হাউজ লিমিটেডের সঙ্গে এমপি রিমির এক সভা হয়। আলোচনার শেষ পর্যায়ে টোক ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির পক্ষের অমর রঞ্জন চক্রবর্তী টিটুর সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় টিটুর উপর চড়াও হয় কাপাসিয়া থানার ওসি আহসান উল্লাহ।
এক পর্যায়ে ওসি যুবলীগ নেতা টিটুকে কিল, ঘুষি মারেন। উত্তেজিত হয়ে যুবলীগের নেতাকর্মী পাল্টা ওসির উপর চড়াও হয়। এ সময় উপস্থিত এমপি রিমি পুলিশ ও দলীয় নেতাকর্মীদের থামানোর চেষ্টা করেন।
এ ঘটনায় এমপি রিমি ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত হয়ে তাৎক্ষনিকভাবে বলেন, এমন পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি হলে কাপাসিয়া আর আসবো না। এরপর তিনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কাপাসিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধান, টোক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন মেম্বার, পরিবেশ আন্দোলন কমিটির আহ্বায়ক মঞ্জুরুল হক আকন্দ, যুগ্ম আহ্বায়ক কমল চন্দ্র দাস প্রমুখ।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ডায়মন্ড এগ লি. ও প্রোটিন হাউজ লি. যত্রতত্র লিটার, নিস্কাশিত পানি ফেলে পরিবেশ দূষন ও জমিতে বর্জ্য ফেলে জোরপূর্বক জমি নিজেদের দখলে নেয়াসহ নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার পরিবেশবাদীরা ওই প্রতিষ্ঠানে গাড়ি আটকে দেয়। এ ঘটনায় উভয়ের মাঝে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ চলছিল।
টোক ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অমর রঞ্জন চক্রবর্তী টিটু জানান, এমপি রিমি আপার সামনেই ওসি আমাকে বলে চুপ থাক, তুই চাঁদাবাজ। বেশি বাড়াবাড়ি করলে ভারত পাঠিয়ে দেব। তুই ইয়াবা ব্যবসা করিস। টিটু আরো জানান, ওসি নিজেই ইয়াবা খায়। আমার কাছে প্রমাণ আছে।
এ ব্যাপারে কাপাসিয়া থানার ওসি আহসান উল্লাহ জানান, সামান্য তুচ্ছ ঘটনাটি অনেক বড় করে দেখা হচ্ছে।
                    
 

সাবমিট

এমপির সামনে যুবলীগ নেতাকে ওসির মারধর

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০৯:৫০ পিএম  | 

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় বৃহস্পতিবার বিকালে এমপি সিমিন হোসেন রিমির সামনে যুবলীগ নেতাকে মারধর করেছে থানার ওসি। এর প্রতিবাদে টোক ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ নেতারা ঢাকা-কাপাসিয়া-কিশোরগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে। পরে ইউএনও আনিসুর রহমান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহর আশ্বাসে অবরোধ তোলে নেয়া হয়।
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার কাপাসিয়া শহরের সরকারি ডাকবাংলোতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ডায়মন্ড এগ লিমিটেড ও প্রোটিন হাউজ লিমিটেডের সঙ্গে এমপি রিমির এক সভা হয়। আলোচনার শেষ পর্যায়ে টোক ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির পক্ষের অমর রঞ্জন চক্রবর্তী টিটুর সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় টিটুর উপর চড়াও হয় কাপাসিয়া থানার ওসি আহসান উল্লাহ।
এক পর্যায়ে ওসি যুবলীগ নেতা টিটুকে কিল, ঘুষি মারেন। উত্তেজিত হয়ে যুবলীগের নেতাকর্মী পাল্টা ওসির উপর চড়াও হয়। এ সময় উপস্থিত এমপি রিমি পুলিশ ও দলীয় নেতাকর্মীদের থামানোর চেষ্টা করেন।
এ ঘটনায় এমপি রিমি ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত হয়ে তাৎক্ষনিকভাবে বলেন, এমন পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি হলে কাপাসিয়া আর আসবো না। এরপর তিনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কাপাসিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধান, টোক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজ উদ্দিন মেম্বার, পরিবেশ আন্দোলন কমিটির আহ্বায়ক মঞ্জুরুল হক আকন্দ, যুগ্ম আহ্বায়ক কমল চন্দ্র দাস প্রমুখ।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ডায়মন্ড এগ লি. ও প্রোটিন হাউজ লি. যত্রতত্র লিটার, নিস্কাশিত পানি ফেলে পরিবেশ দূষন ও জমিতে বর্জ্য ফেলে জোরপূর্বক জমি নিজেদের দখলে নেয়াসহ নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার পরিবেশবাদীরা ওই প্রতিষ্ঠানে গাড়ি আটকে দেয়। এ ঘটনায় উভয়ের মাঝে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ চলছিল।
টোক ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অমর রঞ্জন চক্রবর্তী টিটু জানান, এমপি রিমি আপার সামনেই ওসি আমাকে বলে চুপ থাক, তুই চাঁদাবাজ। বেশি বাড়াবাড়ি করলে ভারত পাঠিয়ে দেব। তুই ইয়াবা ব্যবসা করিস। টিটু আরো জানান, ওসি নিজেই ইয়াবা খায়। আমার কাছে প্রমাণ আছে।
এ ব্যাপারে কাপাসিয়া থানার ওসি আহসান উল্লাহ জানান, সামান্য তুচ্ছ ঘটনাটি অনেক বড় করে দেখা হচ্ছে।
                    
 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র