¦
'পোশাক শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিয়ে সংবাদ মিথ্যা'

ঢাকা | প্রকাশ : ২১ ডিসেম্বর ২০১৫

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, পোশাক শ্রমিকের নিরাপত্তা নিয়ে প্রকাশিত সংবাদ সঠিক নয়। কয়েকটি পত্রিকায় সম্প্রতি ৩০ লাখ পোশাক শ্রমিক নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে যে  প্রতিবেদন করেছে, তা সর্বৈব মিথ্যা। যে সংগঠনের নামে এটা প্রকাশ করা হয়েছে, সেটির নাম আমরা জীবনেও শুনিনি।
সোমবার সচিবালয়ে ডব্লিউটিওর মিনিস্ট্রিয়াল বৈঠকের অর্জন নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশের পোশাকশিল্প নিয়ে 'নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির স্টার্নস সেন্টার ফর বিজনেস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস' নামের ওই সংস্থার গবেষণায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্পের ঠিকাকাজের কারখানার প্রায় ৩০ লাখ শ্রমিক বিপজ্জনক পরিবেশে কাজ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, স্বল্পোন্নত দেশগুলো (এলডিসি) পণ্য রফতানিতে শতকরা ৭৫ শতাংশ আউটসোর্সিং সুবিধা পাবে। এলডিসির সমন্বয়কারী বাংলাদেশও এ সুবিধা পাবে। এছাড়া সেবাখাতে বাণিজ্য বৃদ্ধিতে অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধাও পাবে এলডিসিরা। এর লক্ষ্যে ওয়েভারের (স্বত্বত্যাগ) মেয়াদ ২০৩০ সাল পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। এতে করে মানব সম্পদ নির্ভর সেবাখাতের বাণিজ্যের উজ্জ্বল সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এছাড়া গার্মেন্টস, কেমিক্যাল, প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য রফতানিতে সিঙ্গল ট্রান্সফরমেশন সুবিধা পাওয়া যাবে। বাংলাদেশের জনশক্তি রফতানি বাড়বে।
এ সময় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, ইন্ট্যারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স বাংলাদেশের সভাপতি মাহবুবুর রহমান, ইনসেপ্টা ফর্মাসিটক্যালসের চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির, এমসিসিআইর সভাপতি সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর, বিকেএমইএর সহ-সভাপতি আসলাম সানি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
 

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close