¦
সীতাকুণ্ডে ভোট বাতিলের দাবি বিএনপি’র

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি | প্রকাশ : ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সৈয়দ আবুল মুনছুরের ওপর হামলা হয়েছে। এ সময় সন্ত্রাসীরা তার গাড়ি ভাংচুর করেছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সীতাকুণ্ড সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়ার সময় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর সাত কর্মীকে গ্রেফতার করেছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। সীতাকুণ্ড বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে আরও একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
এদিকে জালভোট গ্রহণ ও ভোটারদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়াসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগে সকাল সাড়ে ১১টায় ভোট বাতিলের দাবি জানায় বিএনপি।
চট্টগ্রাম (উত্তর) জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আসলাম চৌধুরী বলেন, প্রত্যেক কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে ভোটারদেরকে তাড়িয়ে দেয়। পরে তারা জালভোট দেয়ার মহোৎসবে নেমে পড়ে। তাদের মেয়র প্রার্থী সৈয়দ আবুল মুনছুরকে  পিটিয়ে আহত করে।
বিএনপি প্রার্থী আবুল মনসুর বলেন, সকালে পৌরসভার পন্থিছিলা কেন্দ্রে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় তাকে শারীরিকভাবে হেনস্তা ও বেধড়ক মারধর করা হয়। এ সময় তার প্রাইভেট কার ভাংচুর করা হয়। তিনি সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়ার পর অবস্থার অবনতি হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন।
এদিকে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী ফজিলুতুননেসা হোসনার এজেন্ট ইসমত আরা বেগমকে ৯টা ৫০মিনিটে বের করে দেয় পুলিশ। ফজিলুতুননেসা হোসনা সকাল সোয়া ১০টার দিকে যুগান্তরকে বলেন, কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে পুলিশ ও প্রশাসনের পাহারায় সরকার দলীয় ক্যাডাররা কেন্দ্র দখল করে ভোট দিচ্ছে।
স্বতন্ত্র (জামায়াত) মেয়র প্রার্থী তাওহীদুল হক বলেন, আওয়ামী সন্ত্রাসীরা সকাল থেকে কেন্দ্রগুলো ভোটারবিহীন করে জাল ভোট দেয়।
জানতে চাইলে সীতাকুণ্ডের রিটার্নিং কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, তার কাছে মৌখিকভাবে প্রার্থীরা অভিযোগ জানিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে পাঠিয়েছেন।
এদিকে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সীতাকুণ্ড সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা পুরো রাস্তা দখল করে যানচলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে ওই কেন্দ্র থেকে জালভোট দেয়ার সময় ছয়জনকে গ্রেফতার করে ম্যাজিস্ট্রেট।
জালভোট দেওয়ার কথা যুগান্তরের কাছে স্বীকার করেছেন ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ফেরদৌস হাসান।
সীতাকুণ্ড বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটারা ভোটগ্রহণকে ‘অদ্ভত’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। তারা বলছেন এমন ভোট কাউন্সিলদের ব্যালট পেপার থাকলেও মেয়র ব্যালট পেপার শেষ হয়ে গেছে।
এছাড়া সীতাকুণ্ড ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্র-২ জালভোট দেওয়ার পর আওয়ামী লীগের এক কর্মী ‘সিল’ নিয়ে চলে যায়। একঘন্টা পর আবার ফেরত দেয়।
ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আ.ন. ম. খালেক নেওয়াজ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close