¦
নরসিংদীতে টেন্ডার ছিনতাই

| প্রকাশ : ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫

দেশে টেন্ডার ছিনতাইয়ের ঘটনা বারবার ঘটলেও অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটার এটিই মূল কারণ। এতে একদিকে প্রকৃত ঠিকাদাররা হতাশ হচ্ছে, অন্যদিকে অযোগ্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ শেষ করছে দায়সারাভাবে। এতে দরপত্র আহ্বানকারী প্রতিষ্ঠানটি তথা দেশ বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। মঙ্গলবার যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, নরসিংদী সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ওষুুধসহ দুই কোটি টাকার বিভিন্ন মালামাল সরবরাহের টেন্ডার ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। প্রকাশ্যে মারধর ও টেন্ডার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটলেও সন্ত্রাসীদের কেউ বাধা না দেয়ায় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠবে এটাই স্বাভাবিক। দেশে যেহেতু বারবার টেন্ডার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে; এ অবস্থায় টেন্ডারবিষয়ক সব কর্মকাণ্ডে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। নরসিংদী সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের টেন্ডার কাজে সতর্কতা অবলম্বনের বিষয়টি দৃশ্যমান নয়। ওষুধসহ হাসপাতালের সব ধরনের মালামাল মানসম্মত হওয়া জরুরি। এর ব্যত্যয় ঘটলে বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে। এ প্রেক্ষাপটে নরসিংদী সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কী পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তা খতিয়ে দেখা জরুরি।
দেশে অনলাইনে দরপত্র আহ্বান ও দাখিলের ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নেয়া হলেও কম প্রতিষ্ঠানই এ ব্যবস্থা চালু করেছে। এত সুবিধা থাকা সত্ত্বেও এ পদ্ধতিতে যারা কার্য সম্পাদনে আগ্রহী নয়, তাদের এ অনাগ্রহের নেপথ্য রহস্য উদঘাটন জরুরি। খোঁড়া যুক্তি দিয়ে তারা যাতে পার পেতে না পারে এ ব্যাপারে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া দরকার। লক্ষণীয়, দরপত্র ছিনতাইয়ে লিপ্ত ব্যক্তিরা নিজেদের ক্ষমতাসীন দলের কোনো নেতার আশীর্বাদপুষ্ট দাবি করে উপস্থিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে থাকে। এ ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া দরকার। যারা দলীয় পরিচয়ে অপকর্ম করে থাকে, তাদের ক্ষমতাসীন দলের উচ্চপর্যায় থেকে সতর্ক করতে হবে। দলীয় আশীর্বাদপুষ্ট কোনো ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন কৌশলে কোনো নির্মাণকাজ পেতে সক্ষম হলে কাজের মান নিশ্চিত করার বিষয়ে ওই প্রতিষ্ঠান উদাসীনতা প্রদর্শন করবে, এমন আশংকা থেকে যায়। অনেকে ক্ষমতাসীন দলের পরিচয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নির্মাণকাজে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করে। এদের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার বিশেষভাবে সতর্ক থাকা প্রয়োজন।
অনলাইনে দরপত্র আহ্বান ও দাখিলের পদ্ধতি সর্বত্র চালু হলে এক্ষেত্রে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে, এটা আশা করা যায়। যারা নানা কৌশলে দুর্নীতিবাজদের অপকর্ম করার সুযোগ করে দেয়, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার বিকল্প নেই।
সম্পাদকীয় পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close