¦
উচ্চ আদালত বর্জন নিয়ে পাল্টাপাল্টি অবস্থান

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

চলমান রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার মধ্যে উচ্চ আদালতে বিচার কার্যক্রম চালানোর বিষয়ে পাল্টাপাল্টি অবস্থানে রয়েছেন আইনজীবীরা। উচ্চ আদালত বর্জনের সিদ্ধান্তের পক্ষে-বিপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি জোট সমর্থক আইনজীবীরা।
হরতাল-অবরোধের মধ্যে আইনজীবীদের নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বিচার কাজ না চালাতে সোমবার আইনজীবী সমিতির ব্যানারে বিভিন্ন আদালতে যান সরকারবিরোধী আইনজীবীরা। এছাড়া আইনজীবীদেরও আদালতে না যাওয়ার জন্য বলা হয়। এ অবস্থায় অনেক আদালত সকালের দিকে বিচার কার্যক্রমে অংশ নিলেও আইনজীবী সংকটসহ নানা কারণে পরে এজলাস থেকে নেমে যান। এর আগে রোববার সমিতির এক সাধারণ সভায় বিচার কার্যক্রম পরিচালনা না করতে বিচারকদের প্রতি অনুরোধ জানানোর সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের নেতৃত্বাধীন বার সমিতি। এছাড়া আইনজীবীরাও আদালতে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সমিতির সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম মেহেদি সাংবাদিকদের বলেন, রোববার ১টায় সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতিতে সাধারণ সভা হয়েছে। সেখানে আইনজীবীরা সর্বসম্মতভাবে বলেছেন, আমরা কোর্ট বর্জন করব। এ ব্যাপারে রেজ্যুলেশন হয়েছে। সে জন্য আজ আমরা অনেক কোর্টে গিয়েছি। জজ সাহেবদের আমাদের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছি। তারা আমাদের রেজ্যুলেশন গ্রহণ করেছেন এবং বলেছেন, এ ব্যাপারে তারা সিদ্ধান্ত নিবেন।
তিনি বলেন, আমরা আদালতে বলেছি, হরতালের জন্য আইনজীবীরা আসতে পারেন না। নানা বিপদাপদ। বিচারক ও আইনজীবী, আইনের আশ্রয় প্রার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা কোর্ট বর্জন করব। এদিকে সমিতির এ সিদ্ধান্তকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে সমিতির সভাপতির কক্ষের সামনে বিক্ষোভ করেছেন সরকার সমর্থক আইনজীবীরা। এ বিক্ষোভে অংশ নেন আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন খসরু, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক মো. মোমতাজ উদ্দিন মেহেদি প্রমুখ। বিক্ষোভে সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু বলেন, তারা যে ধৃষ্টতা দেখিয়েছে, তা ক্ষমার অযোগ্য। তারা বিচারকদের রুমে রুমে গিয়ে তাদের নেমে যাওয়ার জন্য বলেছে। বিচারপ্রার্থী মানুষকে বিচার থেকে বঞ্চিত করার এখতিয়ার কারও নেই। এর মাধ্যমে তারা আদালত অবমাননা করেছে।
মতিন খসরু আরও বলেন, আমরা সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই, বেগম জিয়ার দলীয় সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের যে প্রয়াস সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি চালাচ্ছে তা অবৈধ, অসাংবিধানিক, বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ। কারণ ১৬ কোটি মানুষের অধিকার আছে সর্বোচ্চ আদালত থেকে ন্যায়বিচার পাওয়ার। বর্তমান নেতৃত্ব সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতিকে দলীয় অফিসে পরিণত করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষের সামনে দাঁড়িয়ে সাবেক সম্পাদক মোমতাজ উদ্দিন মেহেদি বলেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় আমরা এ জায়গায় একত্রিত হব। যদি এ অবৈধ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা হয় তাহলে সভাপতি ও সম্পাদকের কক্ষে তালা লাগিয়ে দেব।
প্রথম পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close