¦
অনেকদূর যাবে আয়ারল্যান্ড

| প্রকাশ : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ড এবার একটা লক্ষ্য নিয়ে এসেছে। বড় দলগুলোর বিপক্ষে জিতে তারা টেস্ট মর্যাদা আদায়ের দাবি তুলবে। সেই দাবি পূরণে এক ধাপ এগিয়ে গেল তারা প্রথম ম্যাচেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো অভিজ্ঞ দলকে নিখুঁত ব্যাটিং দিয়ে উড়িয়ে দিল আয়ারল্যান্ড। ম্যাচ দেখে মনে হল আইরিশরা দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার জন্যই এসেছে। এর আগেও বিশ্বকাপে তারা টেস্ট মর্যাদা পাওয়া দলগুলোকে হারিয়েছে। এবার হারাল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। আমার মনে হয় না যে তাদের চাওয়াটা খুব বেশি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য এটা একটি অঘটন। তবে আয়ারল্যান্ড নিজেদের যোগ্যতা অনুযায়ী ফল পেয়েছে।
স্যাক্সটন ওভালের সকালটা এদিন মেঘলা ছিল। শুরুতে ব্যাটিং করতে বেগ পেতে হয়েছে ক্যারিবীয়দের। ধীরে ধীরে মেঘলা ভাব কেটে যায়। রোদ ওঠে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। বোলিংয়ে আয়ারল্যান্ড তাদের প্রথম সাফল্য পেয়েছে স্পিনারদের সহায়তায়। বিশেষ করে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইলের ব্যাটিং কোনোভাবেই তার সুনামের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। ৬৫ বল খেলে ৩৬ রান। মাঠ ছোট হওয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরও বেশি রান করার দরকার ছিল। তারপরও তারা ৩০০ রান করেছে। এই রান একসময় ভাবতেও পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ, যখন তারা ৮৭ রানে পাঁচ উইকেট হারায়। সিমন্স ও স্যামি দারুণ ব্যাটিং করে শেষে স্বস্তি এনে দেয়। কিন্তু ক্যারিবীয় বোলাররা কোনোভাবেই আইরিশদের বেঁধে রাখতে পারেনি। ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মানসম্পন্ন মনে হয়নি। আগে থেকেই আমি বলে আসছি, প্রথম ১০ ওভারে যদি আয়ারল্যান্ড উইকেট না হারায়, তাহলে তারা ভালো করবে।
মাঠের আয়তন ছিল অনেক ছোট। সর্বোচ্চ সীমা মাত্র ৬৮ মিটার। আর প্রথম ১০ ওভারে তারা কোনো উইকেট না হারিয়ে ছয়ের মতো রান রেট রেখে ব্যাটিং করেছে। ৭১ রানে তারা পোর্টারফিল্ডকে হারালেও দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে স্টার্লিং ও জয়েস ১০৭ রানের জুটি গড়ে চাপমুক্ত করেন দলকে। একসময় তো মনে হচ্ছিল ৪০ ওভারেই জিতে যাবে তারা। জয়েস আউট হওয়ার পর দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। কিন্তু ম্যাচের বাইরে তারা কখনও যায়নি। তাদের ব্যাটিং দেখে মনে হয়নি, আইসিসির কোনো সহযোগী দেশ খেলছে। আমার মনে হয়, এই দলটা অনেক দূর যাবে এবার। তারা জিম্বাবুয়ে ও পাকিস্তানকেও হারাতে পারে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরেকটি দুর্বল দিক হল, তাদের কোনো বিশেষজ্ঞ স্পিনার নেই। পেসাররা খাটো লেন্থের বল করেছে। মাঠ ছোট হওয়ায় সুযোগটা কাজে লাগিয়েছে আইরিশরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বেশ ক’জন পার্টটাইম বোলার আছে। তারাও কিছু করতে পারেনি। এই হারের কারণে বিশ্বকাপ ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য কঠিন হয়ে গেল।
 

প্রথম পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close