¦
সেই ২০ ঘণ্টায় কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদ

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ হওয়ার আগে কয়েকদফায় জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হন। ২০ ঘণ্টায় তাকে অন্তত তিন দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। নিবিড় জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্যও পাওয়া গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র এমন তথ্য জানিয়েছে।
মাহমুদুর রহমান মান্নাকে মঙ্গলবার রাত ১২টায় গুলশান থানা পুলিশের কাছে র‌্যাব সোপর্দ করে। এ সময় র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়, ধানমণ্ডির একটি বাসা থেকে রাত ১০টায় তাকে আটক করা হয়। তবে মাহমুদুর রহমানের পরিবারের দাবি, সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টায় মান্নাকে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে রাজধানীর বনানীতে ভাতিজি শাহানামা শারমীনের বাসা থেকে আটক করা হয়। তাকে নিয়ে যাওয়ার সময় বাসার অদূরে পুলিশের দুটি গাড়িও দাঁড়িয়ে ছিল। মান্নাকে আটক করার বিষয়ে আইনশৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে কেউ কোনো সদুত্তর না দেয়ায় দুপুরে তার স্ত্রী মেহের নিগার বনানী থানায় জিডি করেন।
সূত্র জানায়, মাহমুদুর রহমান মান্নাকে গুলশান থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করার আগে নিখোঁজ থাকা প্রায় ২০ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে তাকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি করা হয়। যারা তাকে আটক করে নিয়ে যান তারা প্রথমে টানা ৩ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এরপর ওই স্থান থেকে তাকে সকালে অপর এক স্থানে নেয়া হয়। সেখানে দুপুর পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আগের স্থানে ফিরিয়ে আনা হয়। এরপর বিকালে নতুন আরও একটি স্থানে নিয়ে প্রায় ২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সেখান থেকে পুনরায় তাকে আগের জায়গায় ফিরিয়ে নেয়া হয়। গুলশান থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করার আগ পর্যন্ত তিনি ওখানেই ছিলেন।
প্রথম পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close