¦
দ. আফ্রিকা ৪০০ করার পরই হেরে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

| প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

ভারতের বিপক্ষে হারটাকে ডি ভিলিয়ার্স বলেছিল, বাজে হার। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর মনোবল নিয়েই দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে নামে। প্রথম ২০ ওভারে রান ছিল মাত্র ৮৭। ওই সময় হয়তো অনেকেই ধারণা করেছিলেন, ২৬০ বা ২৭০ হতে পারে। কারণ এসসিজি মাঠের গড় রান ২৫০। শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা যে ৪০০ ছাড়িয়ে যাবে, কে ভেবেছিলেন? ভিলিয়ার্স কল্পনাকেও হার মানিয়েছে।
অসাধারণ ব্যাটিং। মনোমুগ্ধকর সব শট। অবিশ্বাস্য সব বাউন্ডারি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিং যে খারাপ হয়েছে, তা বলা যাবে না। ভিলিয়ার্সের ব্যাটিং তার চেয়ে ভালো হয়েছে। সে কিছু শট খেলেছে ডান-হাতের শক্তি কাজে লাগিয়ে। দ্রুততম ১৫০ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়েছে সে। ভিলিয়ার্সের তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরিটি এখন সবচেয়ে দ্রুততম। দক্ষিণ আফ্রিকার তিন ব্যাটসম্যান হাফ সেঞ্চুরি করেছে। কিন্তু ভিলিয়ার্সের ইনিংসের কাছে সেগুলো নস্যি। ৬৬ বলে ১৬২* সত্যিই দারুণ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ কয়েকটা ক্যাচ মিস করেছে। ওই ক্যাচগুলো মিস না করলে দক্ষিণ আফ্রিকার রান ৪০০ হতো কিনা বলা মুশকিল। মনে হচ্ছে এবার বিশকাপে সব দলগুলো ক্যাচ মিসের মহড়া দিচ্ছে।
এর আগে একবারই ৪০০ রান পার করে কোনো দল ম্যাচ জিতেছিল। জোহানেসবার্গে ওই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪৩৪ তাড়া করে জেতে দক্ষিণ আফ্রিকা। কাল দক্ষিণ আফ্রিকা চারশ’ করার পরই হেরে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ব্যবধানটা কত কমাতে পারে সেটাই ছিল দেখার। আগের ম্যাচে গেইলের ডাবল সেঞ্চুরির কথা মনে করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ হয়তো আশায় বুক বেঁধেছিল। কিন্তু তাকে আউট করতে বেগ পেতে হয়নি ভিলিয়ার্সদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ওভারে ১০ রান নিয়ে শুরুটা করেছিল আক্রমণাÍক। গেইল শুরুতেই আগ্রাসী হতে চেয়েছিল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তার শুরুটা ছিল ধীরগতিতে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সিমন্সের আউটটা দুর্ভাগ্যজনক। বলটা ব্যাট-প্যাড হয়েছে। বিশাল রানের কারণে তারা এতই চাপে ছিল যে রিভিউ নেয়নি। শেষ পর্যন্ত ২৫৭ রানে জয় পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। এটাই এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে রানের ব্যবধানে সবচেয়ে বড় জয়। এর আগে একবার ভারত বারমুডার বিপক্ষে ২৫৭ রানে জয় পেয়েছিল। বোলিংয়ে ইমরান তাহিরের কথা বলতে হয়। সে দারুণ বোলিং করেই পাঁচ উইকেট পেয়েছে।
এদিকে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার জন্য আজ বড় পরীক্ষা। দু’দলকেই শক্তিতে সমান মনে হচ্ছে। এবার টুর্নামেন্টেও এ দুই স্বাগতিককে ফেভারিট হিসেবে ধরা হচ্ছে। দু’দলের জন্যই এই ম্যাচ অগ্নি পরীক্ষা বলা যায়। গ্র“পপর্বে প্রথম হওয়ার লড়াইও। যারা আজ সব বিভাগেই ভালো করবে তারাই জিতবে।
 

প্রথম পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close