¦
ঢাকায় চলন্ত মাইক্রোবাসে গারো তরুণীকে গণধর্ষণ

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ২৩ মে ২০১৫

কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার হলেন ২২ বছর বয়সী গারো জাতিগোষ্ঠীর এক তরুণী। বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিক্রয়কর্মী ওই তরুণী রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ তার উত্তরার বাসায় যাওয়ার জন্য রাস্তার পাশে বাসের অপেক্ষায় ছিলেন। ওই সময় সেখানে হঠাৎ একটি মাইক্রোবাস এসে দাঁড়ায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই দরজা খুলে দু’জন যুবক নেমে এসে মেয়েটিকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। প্রথমেই গামছা দিয়ে তার চোখ-মুখ বেঁধে ফেলা হয়। তারপর চলে পালাক্রমে ধর্ষণ। এরপর ওই তরুণীকে উত্তরায় তার বাসার কাছাকাছি ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ধর্ষকরা। এ ঘটনায় শুক্রবার অজ্ঞাতনামা পাঁচজনের বিরুদ্ধে ভাটারা থানায় মামলা দায়ের করেছেন ধর্ষিতা তরুণী। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
ধর্ষিত এ তরুণীর গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলায়। ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি যুগান্তরকে জানান, মাইক্রোবাসের চালক বাদে তিন যুবক তাকে ধর্ষণ করেছে। ওই সময় তার চোখ-মুখ বাঁধা থাকায় তিনি কাউকে চিনতে পারেননি। তিনি আরও জানান, তিনি উত্তরার জসিমউদ্দিন রোডের দলিপাড়ায় পরিবারের সঙ্গে থাকেন। বৃহস্পতিবার রাতে কর্মস্থল থেকে বের হয়ে বাসায় যাওয়ার জন্য কুড়িল বিশ্বরোডে সিনহা সিএনজি মোটর্সের সামনে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় ওই মাইক্রোবাসটি এসে তার সামনে থামে। দু’জন যুবক নেমে এসে তাকে জোর করে গাড়িতে তুলে নেয়। পরে গামছা দিয়ে তার পুরো মুখ বেঁধে ফেলে। চলন্ত গাড়িতে তিন যুবক তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় তিনি বাধা দেয়ার চেষ্টা চালান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে যুবকদের একজন তাকে এই বলে শাসায় যে, বেশি ধস্তাধস্তি করলে তাকে মেরে ফেলা হবে। তিনি জানান, ধর্ষণের পর যুবকরা তার কাছ থেকে বাসার এলাকা জেনে নিয়ে রাত পৌনে ১১টার দিকে তাকে সেখানে ফেলে রেখে চলে যায়। যাওয়ার সময় হুমকি দিয়ে যায়, এ ঘটনা নিয়ে যাতে থানা-পুলিশ না করে।
ভাটারা থানার ডিউটি অফিসার উপপরিদর্শক (এসআই) তাপস কুমার এ ঘটনা সম্পর্কে শুক্রবার যুগান্তরকে জানান, বৃহস্পতিবার রাতের ওই ঘটনায় ২২ বছর বয়সী এ তরুণী অজ্ঞাতনামা পাঁচজনের বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্তদের শনাক্ত করতে পুলিশের টিম কাজ শুরু করেছে।
ভাটারা থানা সূত্রে আরও জানা গেছে, কয়েকজন যুবক মিলে এই তরুণীকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। কিছুক্ষণ পর যুবকদের একজন নেমে যায়। ওই যুবকই সবার আগে তাকে ধর্ষণ করে বলে ধর্ষিত তরুণী পুলিশকে জানিয়েছেন। তিনি আরও অভিযোগ করেন, মাইক্রোবাসটি বিভিন্ন পথে ধীরগতিতে চলতে থাকে। ভেতরে তার ওপর চলতে থাকে পাশবিক অত্যাচার। চোখ বাঁধা থাকায় তিনি বুঝতে পারেননি গাড়িটি কোন কোন পথে গেছে। তবে ধারণা করছেন, তাকে আটকে রাখা অবস্থায় গাড়িটি দু’বার ফ্লাইওভার ব্যবহার করেছে।
 

প্রথম পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close