¦
ব্যাংকে আমানতের প্রবৃদ্ধি কমেছে

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

ব্যাংকিং খাতে কমে গেছে আমানতের প্রবৃদ্ধির হার। এর মধ্যে চলতি আমানতের পরিমাণ কমে গেছে। মেয়াদি আমানতের পরিমাণ সামান্য বাড়লেও বাড়ার পরিমাণ আগের চেয়ে কমেছে। সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাংকগুলো আমানতের সুদের হার কমিয়ে দেয়ায় গ্রাহকরা এখন ব্যাংকে আমানত রাখা কমিয়ে দিয়েছেন। বরং ব্যাংক থেকে আমানত তুলে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করছেন। এতে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের পরিমাণ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অনেক বেশি বেড়ে গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
সূত্র জানায়, গত অর্থবছরে ব্যাংকিং খাতে আমানত বেড়েছিল ১৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ। এর মধ্যে গত বছরের জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত আমানত বেড়েছিল ২ দশমিক ২৬ শতাংশ। ২০১৩ সালের একই সময়ে আমানত বেড়েছিল ৫ দশমিক ৪০ শতাংশ। ২০১২ সালের অক্টোবরের তুলনায় ২০১৩ সালের অক্টোবরে আমানত বেড়েছিল ১৮ দশমিক ০৬ শতাংশ। পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, গত কয়েক বছরের মধ্যে গত বছরের জুলাই-অক্টোবরে সবচেয়ে বেশি কমেছে আমানতের প্রবৃদ্ধির হার।
দেশে বিনিয়োগ না হওয়ায় ব্যাংকগুলোতে মাত্রাতিরিক্ত অলস অর্থ পড়ে রয়েছে। এ কারণে ব্যাংকগুলো নতুন করে বিনিয়োগ আমানত নিচ্ছে না। অনেক ব্যাংক আকর্ষণীয় মুনাফার দীর্ঘমেয়াদি সঞ্চয় প্রকল্পগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে আমানতকারীরা এখন কম সুদে আমানত রাখতে নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। এতে গ্রাহকরা ব্যাংক থেকে চলতি আমানত তুলে নিচ্ছেন। ফলে এই আমানতের পরিমাণ কমে গেছে। নতুন করে মেয়াদি আমানত না নেয়ায় এবং আগের আমানতগুলোর মেয়াদ পূর্তির পর তুলে নেয়ার ফলে ব্যাংকগুলোতে এখন দীর্ঘমেয়াদি আমানতের প্রবৃদ্ধির হার কমে গেছে।
গত অর্থবছরে ব্যাংকগুলোতে চলতি আমানত বেড়েছিল ১৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। গত বছরের জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত চলতি আমানত কমেছে ৮ দশমিক ৬৩ শতাংশ। ২০১৩ সালের জুলাই থেকে অক্টেবর পর্যন্ত চলতি আমানত কমেছিল ৬ দশমিক ৭৬ শতাংশ। ২০১২ সালের অক্টোবরের তুলনায় ২০১৩ সালের অক্টোবরে ব্যাংকিং খাতে চলতি আমানত বেড়েছিল ৯ দশমিক ০৪ শতাংশ। প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, ব্যাংকিং খাতে চলতি আমানত গত কয়েক বছরের মধ্যে গত বছরের জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত সময়ে কমে গেছে। আগে এর প্রবৃদ্ধির হার ওঠানামা করেছে।
ব্যাংক থেকে গ্রাহকরা যেকোনো সময় স্বল্প সময়ের নোটিশে চলতি এবং সাধারণ সঞ্চয়ী হিসাবে থাকা আমানতের টাকা তুলে নিতে পারেন। মেয়াদি হিসাবের টাকা তুলে নিতে একটু সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। এ কারণে মেয়াদি হিসাবের চেয়ে চলতি আমানতের টাকা বেশি পরিমাণে তুলে নিচ্ছেন।
মেয়াদি আমানত গত অর্থবছরে বেড়েছিল ১৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ। গত বছরের জুলাই থেকে অক্টাবর পর্যন্ত মেয়াদি আমানত বেড়েছে ৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ। ২০১৩ সালের একই সময়ে বেড়েছিল ৬ দশমিক ৮২ শতাংশ। ২০১৩ সালের অক্টোবরের তুলনায় ২০১৪ সালের অক্টোবরে বেড়েছে ১২ দশমিক ৮৯ শতাংশ। ২০১২ সালের অক্টোবরের তুলনায় ২০১৩ সালের অক্টোবরে বেড়েছিল ১৯ দশমিক ০৬ শতাংশ। এখানেও একই চিত্র দেখা যাচ্ছে। গত কয়েক বছরের তুলনায় গত বছরের জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত সময়ে এ আমানতের প্রবৃদ্ধির হার বেশি কমেছে।
 

শিল্প বাণিজ্য পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close