¦
রামের জন্মস্থান ভারতে নয়, পাকিস্তান : দাবি কুরেশির

অনলাইন ডেস্ক, ৯ মে: | প্রকাশ : ০৯ মে ২০১৫

আব্দুল রহিম কুরেশি

হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষদের দেবতা রামের জন্মস্থান ভারতে নয় পাকিস্তানে, এমন দাবিতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল সেক্রেটারি আব্দুল রহিম কুরেশি বিভিন্ন তথ্য এবং যুক্তি দিয়ে এমনটাই দাবি করেছেন।
‘ফ্যাক্টস অফ অযোধ্যা এপিসোড’ নামে বইতে কুরেশি দাবি করেছেন, “১৮ মিলিয়ন বছর আগে রামের আবির্ভাব হয়েছিল বলে মনে করা হয়। কিন্তু ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের অযোধ্যায় যেখানে রামের জন্মস্থান বলে বলে হয়, সেখানে বসতি শুরু হয় খ্রিস্টের জন্মের মাত্র ৭০০ বছর আগে। তাই উত্তর প্রদেশের ফৈজাবাদ জেলার অযোধ্যা রামের আসল জন্মস্থান হতে পারে না।”   
আব্দুল রহিম কুরেশি তার বইতে জসু রামসহ ‘আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া’র প্রতœতত্ত্ববিদদের গবেষণাপত্রের উদ্ধৃতি দিয়েছেন। জসু রামের ‘অ্যান্সিয়েন্ট জিওগ্রাফি অব দ্য রামায়ণ’-এর উদ্ধৃতি দিয়ে কুরেশি দেখিয়েছেন অযোধ্যা আসলে দু’টো। এর একটির স্থপতি হলেন রামের পিতামহ রঘু এবং অন্যটির স্থপতি রাম নিজেই।
জসু রাম বলেছেন, দু’টো অযোধ্যাই পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের (খাইবার পাখতুনখোয়া) ডেরা ইসমাইল খান জেলায় অবস্থিত।  
 আব্দুল রহিম কুরেশি মজলিশ-তামির-এ মিল্লাত নামের সামাজিক সংগঠনের প্রেসিডেন্টও। বাবরী মসজিদ নিয়ে বিতর্কে তিনি মসজিদের পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও পালন করেছেন। তার দাবি, ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যার প্রাচীনত্বের স্বপক্ষে কোনো শক্ত ভিত্তি নেই। এগারো শতকেই হিন্দুরা এই শহরের নাম অযোধ্যা রেখেছিলেন।
তিনি যুক্তি দিয়ে বলেছেন, যদি  উত্তর প্রদেশের ফৈজাবাদের অযোধ্যায় রামের জন্মস্থান হতো তাহলে অযোধ্যায় বসে লেখা তুলসী দাসের রামায়ণে তার উল্লেখ থাকত। তাছাড়া কোনো মন্দির ভেঙে যদি বাবরী মসজিদ তৈরি হতো তাহলে মোগল সম্রাট আকবরের সময়ে লেখা ‘তুলসী দাসের রামায়ণে’ তার উল্লেখ থাকত।
কুরেশি তার বইয়ে আরো উল্লেখ করেছেন, এলাহাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশে বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয় এবং ‘আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া’ খনন কাজ চালিয়েও অযোধ্যার ওই স্থানে অতীতে আগে কোনো মন্দির ছিল এমন কোনো প্রমাণ পায়নি।
 

পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close