¦
কওমি মাদ্রাসায় স্বাধীনতা দিবসের দোয়া

মুফতি জহির ইবনে মুসলিম | প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল ২০১৫

আল্লাহতায়ালা প্রতিটি মানব সন্তানকে স্বাধীনভাবে সৃষ্টি করেছেন। কারণ মানুষ স্বাধীন না হলে সে একনিষ্ঠভাবে পারে না আল্লাহর গোলামি করতে। আল্লাহর একান্ত গোলাম হতে হলে বড় প্রয়োজন মানুষের গোলামির শৃংখল থেকে মুক্ত হওয়া। তাই মানুষ হয়ে অপর মানুষকে দাসত্বের শিকলে আবদ্ধ করাকে ইসলাম জানায় চরম নিন্দাবাদ। ইসলাম বলে মানুষ কেবল গোলামি করবে আল্লাহর।
স্বদেশপ্রীতি একটি মহৎ গুণ। দেশপ্রেম ঈমানের অংশ। তাই একজন সদা জাগ্রত দেশপ্রেমিক দেশের প্রতি ইঞ্চি মাটির জন্য, দেশ ও জাতির জন্য প্রাণ দেয়াকে কর্তব্য বলে মনে করে। কারণ দেশের স্বাধীনতা বিপন্ন হলে বিপন্ন হয় মানবতা। তাই রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম দেশের স্বাধীনতা অটুট রাখার প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেছেন, ‘যে চোখ দেশের সীমান্ত রক্ষায় বিনিদ্র থাকে সে চোখকে জাহান্নাম স্পর্শ করবে না।’ আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধেও এ দেশের সন্তানরা জীবন দিতে পিছপা হননি। তারা তো জীবন দিয়ে তাদের কর্তব্য পালন করেছেন, কিন্তু তাদের প্রতি রয়ে গেছে আমাদের মহান দায়িত্ব। সে দায়িত্ব পালনের জন্যই প্রতি বছর ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে এ দেশের মানুষ নানা কর্মসূচি পালন করে থাকে। তবে পিছিয়ে থাকেন এ দেশের আলেম সমাজের একটি বৃহৎ অংশ। দেশের প্রতি ভালোবাসা, স্বাধীনতার প্রতি সমর্থন ও দেশপ্রেম থাকা সত্ত্বেও কিছু আচার-অনুষ্ঠান থেকে এ দেশের কওমি মাদ্রাসা ও আলেম সমাজ নিষ্ক্রিয় থাকার দরুন সাংবাদিক, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, লেখক, রাজনীতিবিদ ও সাধারণ জনগণ থেকে তারা দূরেই রয়ে গেলেন এবং তাদের মাঝে এক ধরনের বিভাজন সৃষ্টি হয়েছে যা দূর হওয়া খুবই প্রয়োজন। স্বাধীনতা দিবসসহ অন্যান্য জাতীয় দিবসে যদি আলেম সমাজ স্বকীয় ভূমিকা রাখেন, তারা যদি এদিনগুলোতে তাদের মতো করে কর্মসূচি গ্রহণ করেন, যদি এ দিনগুলোতে প্রতিটি মসজিদ-মাদ্রাসায় আলোচনা সভা, দোয়া অনুষ্ঠান কোরআন খতমের আয়োজন করা হয় তাহলে পরিবেশ-পরিস্থিতি পাল্টে যাবে। সুখের কথা এবারের স্বাধীনতা দিবসে ঢাকার বেশকিছু মাদ্রাসায় ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছিল। এর মধ্যে অন্যতম উত্তর দক্ষিণখানের সরদারবাড়ি মাদ্রাসাতুর রহমান আল-আরাবিয়া।
এ মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যাল মুফতি বখতিয়ার একজন সচেতন আলেম। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তার মাদ্রাসায় গ্রহণ করা হয়েছিল দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি, এর মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা উত্তোলন, আলোচনা সভা, মুক্তিযুদ্ধের গল্প, কবিতা পাঠ, ইসলামী গজল, কোরআন খতম ও শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠান। ঢাকার ভাটারা সাঈদনগর সাঈদীয়া কামীমিয়া আয়োজন করেছিল আলোচনা সভা। রচনা প্রতিযোগিতা, স্বাধীনতার ছড়া-কবিতা পাঠের আসর, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নির্যাতন-নিপীড়নের চিত্র প্রদর্শনী, কোরআনখানি ও দোয়া। উত্তরার আল-কাসিম তাহফিজুল কোরআন মাদ্রাসা উদ্যোগ নিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধের গল্প পাঠ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, ইসলামী গান ও দোয়া অনুষ্ঠানের। ঢাকার মালিবাগ জামিয়া, জামিয়া রহমানিয়া মুহাম্মদপুর, জামিয়া হুসায়নিয়া আরজাবাদ মিরপুর, জামিয়া ইমদাদিয়া মুসলিম বাজার মিরপুর, মিরপুর দারুর রাশাদ মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন মাদ্রাসায় এবারের মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া অনুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। আমরা আশা করি, আলেম সমাজ আরও সচেতন ও যত্নবান হয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সেতুবন্ধন তৈরি করে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে একটি সুখী-সুন্দর দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।
 

ইসলাম ও জীবন পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close