jugantor
বাংলাদেশে উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প চালু

   

১৫ নভেম্বর ২০১৩, ০০:০০:০০  | 

ইন্টারনেটে মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া (www.wikipedia. org) বর্তমানে সারা বিশ্বে জনপ্রিয়। ২৮৫টি ভাষায় থাকা উইকিপিডিয়া সহজে সাধারণ ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছাতে নানা ধরনের প্রকল্প নেওয়া হয়েছে উইকিপিডিয়া পরিচালনা সংস্থা উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন থেকে। এরই অংশ হিসেবে গত বছর উগান্ডায় চালু হয় উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। প্রকল্পটি এরই মধ্যে জিতেছে সাউথ বাই সাউথওয়েস্ট (এসএক্সএসডব্লিউ) ২০১৩ পুরস্কার। সম্প্রতি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও চালু হয়েছে উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। বাংলাদেশে বর্তমান বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন এ সুবিধা দিচ্ছে। এছাড়া খুব শিগগিরই গ্রামীণফোন লিমিটেডও এ সেবা দেয়া শুরু করবে। এ বিষয়ের সামগ্রিক অবস্থা জানতে ঢাকায় এসেছেন উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের মোবাইল প্রোগ্রামের পরিচালক ক্যারোলিন স্নোয়েডার। এ উপলক্ষে বুধবার ঢাকার বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অনুমোদিত স্থানীয় চ্যাপ্টার উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন ক্যারেলিন স্নোয়েডার। এ সময়ে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের সভাপতি মুনির হাসান, কোষাধ্যক্ষ আলী হায়দার খান, নির্বাহী সদস্য শাবাব মোস্তাফা, তানভীর মোরশেদ, বাংলা উইকিপিডিয়ার প্রশাসক নুরুন্নবী চৌধুরী হাছিব, নাসির খান সৈকত, বেসিসের ভাইস প্রেসিডেন্ট উত্তম কুমার পাল, গ্রামীণফোনের ডিজিটাল এবং সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের প্রধান জাকিয়া জেরিন, বাংলালিংকের ভ্যাস বিভাগের শফিক শামসুর রাজ্জাক, রবির মার্কেট অপারেশন বিভাগের ব্যবস্থাপক তারেক মোহাম্মদ এনামুল হক উপস্থিত ছিলেন। ক্যারোলিন স্নোয়েডার জানান, মোবাইলের মাধ্যমে সহজে বিনামূল্যে উইকিপিডিয়ার তথ্য পাওয়ার সুবিধার্থে উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য চালু করা হয় উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। মুক্ত জ্ঞান সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে এবং বিনামূল্যে তথ্য হাতের মুঠোয় পৌঁছাতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়। এ প্রকল্পের আওতায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরিচালিত মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন। এর ফলে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো বিনামূল্যে গ্রাহকদের উইকিপিডিয়া ব্যবহারের সুযোগ দেবে। সংবাদ সম্মেলনে মুনির হাসান জানান, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রায় তিন কোটি লোক এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করে। এদের অনেকেই শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে বিনামূল্যে তথ্য ভাণ্ডার উন্মুক্ত করতে পারলে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন আমাদের জন্য সহজ হবে। উল্লেখ্য, উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য চালু হওয়া এই প্রকল্প এরই মধ্যে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। মূলত এ সেবা স.রিশরঢ়বফরধ.ড়ৎম এবং ুবৎড়.রিশরঢ়বফরধ.ড়ৎম সাইট ব্যবহারের মাধ্যমে গ্রাহকরা পেয়ে থাকেন। বাংলাদেশে বর্তমানে বাংলালিংক, গ্রামীণফোন, রবি উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্পের সহযোগী। উল্লেখ্য, উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের লোকাল চ্যাপ্টার হিসেবে কাজ করছে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। উইকিপিডিয়া এবং উইকিমিডিয়ার বিভিন্ন প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত স্বেচ্ছাসেবকরা বাংলা উইকিপিডিয়াকে সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করেন। ২০১১ সালের অক্টোবর থেকে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অনুমোদিত চ্যাপ্টার। চালু হওয়ার পরই গত বছরের মার্চে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সঙ্গে যৌথভাবে প্রথম বাংলা উইকিপিডিয়া আনকনফারেন্সের আয়োজন করে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। দুই দিনের এ আয়োজনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৩০০ জন অংশ নেয়। এর বাইরে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ নিয়মিতভাবে বিভিন্ন কর্মশালা, মিট-আপ, সমাবেশ এবং অনলাইন, অফলাইন অনুষ্ঠান করে যাচ্ছে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক উইকিমিডিয়া কমিউনিটিতে ফান্ড ডিসিমিনিশন কমিটি, অ্যাফকম, গ্র্যান্ড একসেস কমিটিসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রকল্পে কাজ করছেন বাংলাদেশের উইকিপিডিয়া সম্পাদকরা। -রেহানা রহমান রেনু


 

সাবমিট

বাংলাদেশে উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প চালু

  
১৫ নভেম্বর ২০১৩, ১২:০০ এএম  | 

ইন্টারনেটে মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া (www.wikipedia. org) বর্তমানে সারা বিশ্বে জনপ্রিয়। ২৮৫টি ভাষায় থাকা উইকিপিডিয়া সহজে সাধারণ ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছাতে নানা ধরনের প্রকল্প নেওয়া হয়েছে উইকিপিডিয়া পরিচালনা সংস্থা উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন থেকে। এরই অংশ হিসেবে গত বছর উগান্ডায় চালু হয় উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। প্রকল্পটি এরই মধ্যে জিতেছে সাউথ বাই সাউথওয়েস্ট (এসএক্সএসডব্লিউ) ২০১৩ পুরস্কার। সম্প্রতি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও চালু হয়েছে উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। বাংলাদেশে বর্তমান বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন এ সুবিধা দিচ্ছে। এছাড়া খুব শিগগিরই গ্রামীণফোন লিমিটেডও এ সেবা দেয়া শুরু করবে। এ বিষয়ের সামগ্রিক অবস্থা জানতে ঢাকায় এসেছেন উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের মোবাইল প্রোগ্রামের পরিচালক ক্যারোলিন স্নোয়েডার। এ উপলক্ষে বুধবার ঢাকার বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অনুমোদিত স্থানীয় চ্যাপ্টার উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন ক্যারেলিন স্নোয়েডার। এ সময়ে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের সভাপতি মুনির হাসান, কোষাধ্যক্ষ আলী হায়দার খান, নির্বাহী সদস্য শাবাব মোস্তাফা, তানভীর মোরশেদ, বাংলা উইকিপিডিয়ার প্রশাসক নুরুন্নবী চৌধুরী হাছিব, নাসির খান সৈকত, বেসিসের ভাইস প্রেসিডেন্ট উত্তম কুমার পাল, গ্রামীণফোনের ডিজিটাল এবং সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের প্রধান জাকিয়া জেরিন, বাংলালিংকের ভ্যাস বিভাগের শফিক শামসুর রাজ্জাক, রবির মার্কেট অপারেশন বিভাগের ব্যবস্থাপক তারেক মোহাম্মদ এনামুল হক উপস্থিত ছিলেন। ক্যারোলিন স্নোয়েডার জানান, মোবাইলের মাধ্যমে সহজে বিনামূল্যে উইকিপিডিয়ার তথ্য পাওয়ার সুবিধার্থে উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য চালু করা হয় উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্প। মুক্ত জ্ঞান সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে এবং বিনামূল্যে তথ্য হাতের মুঠোয় পৌঁছাতে এ উদ্যোগ নেয়া হয়। এ প্রকল্পের আওতায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরিচালিত মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন। এর ফলে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো বিনামূল্যে গ্রাহকদের উইকিপিডিয়া ব্যবহারের সুযোগ দেবে। সংবাদ সম্মেলনে মুনির হাসান জানান, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রায় তিন কোটি লোক এখন ইন্টারনেট ব্যবহার করে। এদের অনেকেই শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে বিনামূল্যে তথ্য ভাণ্ডার উন্মুক্ত করতে পারলে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন আমাদের জন্য সহজ হবে। উল্লেখ্য, উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য চালু হওয়া এই প্রকল্প এরই মধ্যে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। মূলত এ সেবা স.রিশরঢ়বফরধ.ড়ৎম এবং ুবৎড়.রিশরঢ়বফরধ.ড়ৎম সাইট ব্যবহারের মাধ্যমে গ্রাহকরা পেয়ে থাকেন। বাংলাদেশে বর্তমানে বাংলালিংক, গ্রামীণফোন, রবি উইকিপিডিয়া জিরো প্রকল্পের সহযোগী। উল্লেখ্য, উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের লোকাল চ্যাপ্টার হিসেবে কাজ করছে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। উইকিপিডিয়া এবং উইকিমিডিয়ার বিভিন্ন প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত স্বেচ্ছাসেবকরা বাংলা উইকিপিডিয়াকে সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করেন। ২০১১ সালের অক্টোবর থেকে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের অনুমোদিত চ্যাপ্টার। চালু হওয়ার পরই গত বছরের মার্চে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সঙ্গে যৌথভাবে প্রথম বাংলা উইকিপিডিয়া আনকনফারেন্সের আয়োজন করে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ। দুই দিনের এ আয়োজনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৩০০ জন অংশ নেয়। এর বাইরে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ নিয়মিতভাবে বিভিন্ন কর্মশালা, মিট-আপ, সমাবেশ এবং অনলাইন, অফলাইন অনুষ্ঠান করে যাচ্ছে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক উইকিমিডিয়া কমিউনিটিতে ফান্ড ডিসিমিনিশন কমিটি, অ্যাফকম, গ্র্যান্ড একসেস কমিটিসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রকল্পে কাজ করছেন বাংলাদেশের উইকিপিডিয়া সম্পাদকরা। -রেহানা রহমান রেনু


 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র