¦
চাকরি ক্ষেত্রে সহকর্মীর সহযোগিতা

| প্রকাশ : ২১ মে ২০১৫

আজওয়াদ উৎস
কর্মজীবী নারী কিংবা পুরুষ, দিনের একটা বড় সময় কাটে কর্মক্ষেত্রে। চেয়ার-টেবিল-কম্পিউটার-কী-বোর্ড তো সারাক্ষণেরই সঙ্গী। এসব থেকে দু’দণ্ড শান্তি দেয় পাশের কর্মী বন্ধুটি। অফিসে লাঞ্চ আওয়ার কিংবা ক্যান্টিনে একটু চায়ের কাপে ঝড় তুলতে মনের মতো সহকর্মীই বাড়িয়ে দিতে পারে বন্ধুর হাতটি। সফল হতে কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার পরিচয় দেয়া যেমন জরুরি তেমনি সহকর্মীদের সঙ্গে নেটওয়ার্কিং বা যোগাযোগ রক্ষা করাটাও খুব জরুরি। আপনি যত ভালো কাজই জানুন না কেন, সহকর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক না থাকলে কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করা হয়ে ওঠে না। সহকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ না রাখলে পিছিয়ে পড়বেন আপনি নিজেই। কাজের দক্ষতা বাড়াতেও প্রয়োজন সহকর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক খুবই জরুরি। সহকর্মীদের সঙ্গে সেই সুসম্পর্ক বজায় রাখতে রইল কিছু দিকনির্দেশনা।
দরকার ভালো ব্যবহার
কর্মক্ষেত্রে শক্ত অবস্থান গড়ে নিতে হলে উচ্চপদস্থ-নিুপদস্থ সব ধরনের কর্মীর সঙ্গেই ভালো ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়। সহকর্মীদের সাহায্য করুন এবং প্রয়োজন পড়লে তাদের সাহায্য নিন। সাহায্য চাওয়ার ব্যাপারে লজ্জা পাবেন না। কারণ কাজ শেখার ক্ষেত্রে বয়স, পদ বা অভিজ্ঞতা সব সময় কার্যকর নাও হতে পারে। কাজে আটকে গেলে অভিজ্ঞ সহকর্মীদের পরামর্শ যেমন প্রয়োজন হয়, তেমনি কাজে একেবারে নতুন, বয়সে ছোট সহকর্মীও আপনাকে সাহায্য করতে পারে।
বজায় রাখুন সুসম্পর্ক
আপনার সহকর্মীদের মধ্যে সবাই আপনার সমমনস্ক হবে না। কিন্তু সবার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। কারো সঙ্গে ব্যক্তিত্বের সংঘাত যেন না হয় সে দিকে খেয়াল রাখুন। অযথা মনোমালিন্য ও ভুল বোঝাবুঝি হয় এমন কথা ও আচরণ এড়িয়ে চলুন। কারো সঙ্গে মতানৈক্য হতেই পারে কিন্তু নিজের ইগো নিয়ন্ত্রণে রেখে সেটা বেশিদূর এগোতে দেবেন না।
হোক না কিছুক্ষণ আড্ডা
অফিসে যত ধরনের আড্ডা হয় সব ধরনের আড্ডাতেই যোগ দেয়ার চেষ্টা করবেন। সহকর্মীদের সঙ্গে কারো ব্যক্তিগত সমালোচনায় যোগ না দিয়ে হালকা মেজাজে হাসি-ঠাট্টায় যোগ দিন। এতে মন-মেজাজ ভালো থাকবে আবার অন্যদের সঙ্গে সম্পর্কও সহজ হয়ে উঠবে।
মিটিং-এ সপ্রতিভ অংশগ্রহণ
কাজের ব্যাপারে সহকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করুন এবং মিটিংগুলোতে সব সময় সপ্রতিভ অংশগ্রহণ বজায় রাখুন। টিম মিটিং চলার সময় কাজ নিয়ে যে কোনো কিছু জানার থাকলে প্রশ্ন করুন। এমনকি কাজ বুঝে উঠতে না পারলে সেটাও জানান।
খোঁজ-খবর ঘরবাড়ির
সহকর্মীদের ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে পুরোপুরি নিরাসক্ত থাকবেন না। মাঝে মাঝে তাদের বাড়ির খোঁজ-খবর নিন। সহকর্মীর বাড়িতে কোনো সমস্যার কথা জানা থাকলে সে ব্যাপারে জিজ্ঞেস করুন এবং সমাধানের পথ জানা থাকলে তাকে জানান।
সম্মান করুন নিজস্বতাকে
নিজের চিন্তা-ভাবনা বা ধ্যান-ধারণা অন্যের ওপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবেন না। প্রত্যেকেরই কাজের একটা নিজস্ব ধরন থাকে, সেই নিজস্বতাকে সম্মান করে চলুন। সহকর্মীদের মধ্যে যারা ইতিবাচক মনোভাবাপন্ন তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখুন। প্রয়োজনে তাদের সঙ্গে আলাদাভাবে কাজের ব্যাপারে আলোচনা করুন। একসঙ্গে অফিসের নানা সমস্যার সমাধান করুন। এতে কাজের প্রতি উৎসাহ বাড়বে।
দোষ স্বীকার সব সময়
ভুল কোনো মন্তব্য করে ফেললে বা কাজে কোনো ভুল হলে সঙ্গে সঙ্গে স্বীকার করুন এবং তা সংশোধন করে নিন। নিজ কৃত ভুল অন্য কর্মীর ওপরে দেয়া থেকে বিরত থাকুন।
প্রশংসা মন থেকে
সহকর্মী কোনো কাজে আপনার থেকে এগিয়ে থাকলে তাকে মন থেকেই প্রশংসা করুন। আমরা কেউ কারো মতো না তাই যার যার জায়গা থেকে একজন ব্যক্তি যোগ্য বা ভালো কাজ করবে এটাই প্রত্যাশীত। হতে পারে আপনার সহকর্মী আপনাকে প্রশংসা করছে না কিংবা সমালোচনা করছে এতে মনঃক্ষুণ্ণ হবেন না। কারণ খুব কম মানুষই গঠনমূলক সমালোচনা করতে পারে।
 

চাকরির খোঁজ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close