jugantor
বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন চাকরি

  ইসরাফিল  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা ২০১৬। তাই মেলার মাঠে স্টল তৈরির প্রস্তুতিও চলছে ব্যাপক দ্রুত গতিতে। আর রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)-এর তথ্য মতে এবারের মেলায় নরী উদ্যোক্তাদের জন্য ৩৬টি ও সাধারণ ২৩০টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আর তাই মেলায় মোট ২৬৬টি স্টলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মী নিয়োগ-প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তাই একটু খোঁজ নিয়ে সেসব প্রতিষ্ঠানে মেলা চলাকালীন খণ্ডকালীন কর্মী হিসেবে যোগ দিতে পারেন আপনিও।

এদিকে ২০১৫ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় কাজ করা ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নূরুল বিন আজাদ বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি যারা খণ্ডকালীন চাকরি করতে চান, তাদের জন্য বাণিজ্যমেলা অনেক বড় একটা সুযোগ। প্রতিবছরই মেলায় প্রচুর দেশী-বিদেশী প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়, আর সেসব প্রতিষ্ঠান তাদের নিজেদের পণ্য বিক্রয় ও উপস্থাপন করার জন্য বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই তাদের নিয়মিত কর্মীর পাশাপাশি বিপুলসংখ্যক চুক্তিভিত্তিক খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগ করে থাকে। তাই একমাসে ভালো টাকা আয় করা যায়। তিনি আরও বলেন, মেলায় তিনভাবে কাজ করার সুযোগ আছে, প্রথমত, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত, দ্বিতীয়ত, দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত। আর তৃতীয়ত, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাজ করার সুযোগ রয়েছে মেলার বিভিন্ন প্যাভিলিয়নগুলোতে।

কোথায় পাবেন খোঁজ

মেলায় খণ্ডকালিন খোঁজ পাওয়ার ক্ষেত্রে মেলায় যেসব প্রতিষ্ঠান নিয়মিত অংশ নেয়, তাদের সঙ্গে বিশেষ করে মেলা শুরু হওয়ার দুই থেকে এক মাস আগে নিয়মিত যোগাযোগ রাখলেই খোঁজ পাওয়া যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে দৈনিক পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছে। তাছাড়াও ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমেই বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়ে থাকে। এছাড়াও মেলায় যেসব ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান কর্মী সরবরাহ করে, তাদের সঙ্গেও এখনই যোগাযোগ করতে পারেন। বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন নিয়োগের জন্য ব্যক্তিগত যোগাযোগের পাশাপাশি অনলাইনে বিভিন্ন জব পোর্টালে বিজ্ঞাপন দিয়েও লোকবল নিয়োগ করে থাকে প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়াও যেসব প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিবে তাদের হেড অফিসে নিজ উদ্যোগে সিভি দিয়ে এলে ভালো হয়।

শিক্ষাগত যোগ্যতা

বাণিজ্যমেলায় অংশ নেয়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে তারা শিক্ষার্থীদেরই বেশি অগ্রাধিকার দেন। তাছাড়াও অন্যান্য পেশার তরুণ-তরুণীদেরও সুযোগ দেয়া হয়ে থাকে। শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে সদ্য স্নাতক অথবা বর্তমানে যারা স্নাতক করছেন, নিয়োগের ক্ষেত্রে তাদের প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। তাছাড়াও কলেজ পাস করা শিক্ষার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন।

নিয়োগের ক্ষেত্রে বাড়তি যোগ্যতা যা লাগে

মেলায় কাজ করার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি প্রয়োজন হয় বাড়তি যোগ্যতারও। এ ব্যাপারে প্রাণের প্রধান মানবসম্পদ উন্নয়ন কর্মকর্তা মীর শামসুল আলম বলেন, মেলায় কাজ করতে ইচ্ছুক প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি যোগাযোগের দক্ষতা, উপস্থাপনার কৌশল, স্মার্টনেস, উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা ইত্যাদি বিষয়গুলোও গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়। এ ক্ষেত্রে কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে কি না, তা খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, তবে কারও কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকলে তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়।

নিয়োগ প্রক্রিয়া

প্রতিবারের মতো আগামী বছরের প্রথম দিন থেকেই শুরু হওয়ার কথা রয়েছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার। গত বছর এই মেলায় সাড়ে চার শতাধিকেরও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছিল, যেখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কয়েক হাজার তরুণ-তরুণী এক মাসের খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ পেয়েছিলেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। ২০১৫ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় কাজ করা ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নূরুল বিন আজাদ বলেন, নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানগুলো প্রথমত সিভি দেখে প্রার্থীদের ডাকেন। পরে ভাইভা হয়। ভাইভাতে মূলত শিক্ষাগত যোগ্যতা, স্মার্টনেস, কথা বলার ভঙ্গি লক্ষ্য করে থাকেন। তাছাড়াও কোন সময় কাজ করতে পারবেন তাও জানতে চাওয়া হয় ভাইভাতে। পরে প্রতিষ্ঠানের পছন্দ অনুযায়ী প্রার্থীদের নিয়োগ দেয়া হয়। নূরুল বিন আজাদ আরও বলেন, নিয়োগ পাওয়ার পর এক থেকে দুই সপ্তাহ ওই প্রতিষ্ঠান ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেন।

বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা

বাণিজ্যমেলায় একমাস খণ্ডকালীন চাকরির জন্য কর্মীরা প্রতিষ্ঠানভেদে ২০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন। যারা সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ও দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত দুই শিফটে কাজ করে থাকেন তারা প্রতিষ্ঠানভেদে ১৫ থেকে ২২ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর যারা মেলার ওই একমাসে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাজ করবেন তারা প্রতিষ্ঠানভেদে ২০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়া সকালের নাশতা, দুপুরের খাবার, বিকালের নাশতা এবং যাতায়াত খরচও দেয়া হয়। মেলার কাজ করার সময় মেলার জন্য প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট পোশাক দেয়া হয়। এর বাইরে এক মাসের কাজের অভিজ্ঞতা সনদও দেয়া হয়, যা পরবর্তী সময়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে বা অন্য কোথাও চাকরির ক্ষেত্রে আবেদনপত্রে অভিজ্ঞতা হিসেবে দেখান যায়।

সতর্কতার সঙ্গে শব্দ চয়ন করুন

আপনার মুখ দিয়ে যে কথাগুলো বের হয়, সে কথা অনেকগুলো শব্দের সমন্বয়ে গঠিত। কোনো শব্দ ভুল করে বললে অনেক কিছুই উল্টা পাল্টা হয়ে যায়। যেমন, আমাদের দেশে প্রায় দেয়ালে লেখা থাকে- ‘এখানে প্রস্রাব করবেন না, করলে ৫০ টাকা জরিমানা’ বাক্যটিতে ‘না’-এর পরের কমা আগে দিলে বাক্যটির অর্থ পরিবর্তিত হয়ে যাবে। অর্থাৎ ‘এখানে পোস াব করবেন, না করলে ৫০ টাকা জরিমানা!’ প্রিয় পাঠক আপনার কর্মক্ষেত্রে যদি এমন একটি ভুল করে বসেন, তাহলে আপনার সব অর্জন ধূলিস্যাৎ হয়ে যেতে পারে। তাই শুধু শব্দ চয়নেই নয়, বাক্য গঠনেও সতর্ক থাকতে হবে। আর ভুল (ব্যর্থ) না হওয়া মানেই সফলতা। কুইনটিসিয়ান বলেছেন- শব্দ ব্যবহারের ক্ষেত্রে স্বার্থহীনতা হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। শব্দ ভুল তো দুনিয়া ভুল হয়ে যাবে।



সাবমিট

বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন চাকরি

 ইসরাফিল 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা ২০১৬। তাই মেলার মাঠে স্টল তৈরির প্রস্তুতিও চলছে ব্যাপক দ্রুত গতিতে। আর রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)-এর তথ্য মতে এবারের মেলায় নরী উদ্যোক্তাদের জন্য ৩৬টি ও সাধারণ ২৩০টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আর তাই মেলায় মোট ২৬৬টি স্টলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মী নিয়োগ-প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তাই একটু খোঁজ নিয়ে সেসব প্রতিষ্ঠানে মেলা চলাকালীন খণ্ডকালীন কর্মী হিসেবে যোগ দিতে পারেন আপনিও।

এদিকে ২০১৫ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় কাজ করা ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নূরুল বিন আজাদ বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি যারা খণ্ডকালীন চাকরি করতে চান, তাদের জন্য বাণিজ্যমেলা অনেক বড় একটা সুযোগ। প্রতিবছরই মেলায় প্রচুর দেশী-বিদেশী প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়, আর সেসব প্রতিষ্ঠান তাদের নিজেদের পণ্য বিক্রয় ও উপস্থাপন করার জন্য বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই তাদের নিয়মিত কর্মীর পাশাপাশি বিপুলসংখ্যক চুক্তিভিত্তিক খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগ করে থাকে। তাই একমাসে ভালো টাকা আয় করা যায়। তিনি আরও বলেন, মেলায় তিনভাবে কাজ করার সুযোগ আছে, প্রথমত, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত, দ্বিতীয়ত, দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত। আর তৃতীয়ত, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাজ করার সুযোগ রয়েছে মেলার বিভিন্ন প্যাভিলিয়নগুলোতে।

কোথায় পাবেন খোঁজ

মেলায় খণ্ডকালিন খোঁজ পাওয়ার ক্ষেত্রে মেলায় যেসব প্রতিষ্ঠান নিয়মিত অংশ নেয়, তাদের সঙ্গে বিশেষ করে মেলা শুরু হওয়ার দুই থেকে এক মাস আগে নিয়মিত যোগাযোগ রাখলেই খোঁজ পাওয়া যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে দৈনিক পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিও দিয়েছে। তাছাড়াও ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমেই বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়ে থাকে। এছাড়াও মেলায় যেসব ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান কর্মী সরবরাহ করে, তাদের সঙ্গেও এখনই যোগাযোগ করতে পারেন। বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন নিয়োগের জন্য ব্যক্তিগত যোগাযোগের পাশাপাশি অনলাইনে বিভিন্ন জব পোর্টালে বিজ্ঞাপন দিয়েও লোকবল নিয়োগ করে থাকে প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়াও যেসব প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিবে তাদের হেড অফিসে নিজ উদ্যোগে সিভি দিয়ে এলে ভালো হয়।

শিক্ষাগত যোগ্যতা

বাণিজ্যমেলায় অংশ নেয়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাণিজ্যমেলায় খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে তারা শিক্ষার্থীদেরই বেশি অগ্রাধিকার দেন। তাছাড়াও অন্যান্য পেশার তরুণ-তরুণীদেরও সুযোগ দেয়া হয়ে থাকে। শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে সদ্য স্নাতক অথবা বর্তমানে যারা স্নাতক করছেন, নিয়োগের ক্ষেত্রে তাদের প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। তাছাড়াও কলেজ পাস করা শিক্ষার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন।

নিয়োগের ক্ষেত্রে বাড়তি যোগ্যতা যা লাগে

মেলায় কাজ করার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি প্রয়োজন হয় বাড়তি যোগ্যতারও। এ ব্যাপারে প্রাণের প্রধান মানবসম্পদ উন্নয়ন কর্মকর্তা মীর শামসুল আলম বলেন, মেলায় কাজ করতে ইচ্ছুক প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি যোগাযোগের দক্ষতা, উপস্থাপনার কৌশল, স্মার্টনেস, উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা ইত্যাদি বিষয়গুলোও গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়। এ ক্ষেত্রে কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে কি না, তা খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, তবে কারও কাজের পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকলে তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়।

নিয়োগ প্রক্রিয়া

প্রতিবারের মতো আগামী বছরের প্রথম দিন থেকেই শুরু হওয়ার কথা রয়েছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার। গত বছর এই মেলায় সাড়ে চার শতাধিকেরও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছিল, যেখানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কয়েক হাজার তরুণ-তরুণী এক মাসের খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ পেয়েছিলেন। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। ২০১৫ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় কাজ করা ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নূরুল বিন আজাদ বলেন, নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানগুলো প্রথমত সিভি দেখে প্রার্থীদের ডাকেন। পরে ভাইভা হয়। ভাইভাতে মূলত শিক্ষাগত যোগ্যতা, স্মার্টনেস, কথা বলার ভঙ্গি লক্ষ্য করে থাকেন। তাছাড়াও কোন সময় কাজ করতে পারবেন তাও জানতে চাওয়া হয় ভাইভাতে। পরে প্রতিষ্ঠানের পছন্দ অনুযায়ী প্রার্থীদের নিয়োগ দেয়া হয়। নূরুল বিন আজাদ আরও বলেন, নিয়োগ পাওয়ার পর এক থেকে দুই সপ্তাহ ওই প্রতিষ্ঠান ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেন।

বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা

বাণিজ্যমেলায় একমাস খণ্ডকালীন চাকরির জন্য কর্মীরা প্রতিষ্ঠানভেদে ২০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন। যারা সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ও দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত দুই শিফটে কাজ করে থাকেন তারা প্রতিষ্ঠানভেদে ১৫ থেকে ২২ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর যারা মেলার ওই একমাসে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কাজ করবেন তারা প্রতিষ্ঠানভেদে ২০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়া সকালের নাশতা, দুপুরের খাবার, বিকালের নাশতা এবং যাতায়াত খরচও দেয়া হয়। মেলার কাজ করার সময় মেলার জন্য প্রতিষ্ঠানের নির্দিষ্ট পোশাক দেয়া হয়। এর বাইরে এক মাসের কাজের অভিজ্ঞতা সনদও দেয়া হয়, যা পরবর্তী সময়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে বা অন্য কোথাও চাকরির ক্ষেত্রে আবেদনপত্রে অভিজ্ঞতা হিসেবে দেখান যায়।

সতর্কতার সঙ্গে শব্দ চয়ন করুন

আপনার মুখ দিয়ে যে কথাগুলো বের হয়, সে কথা অনেকগুলো শব্দের সমন্বয়ে গঠিত। কোনো শব্দ ভুল করে বললে অনেক কিছুই উল্টা পাল্টা হয়ে যায়। যেমন, আমাদের দেশে প্রায় দেয়ালে লেখা থাকে- ‘এখানে প্রস্রাব করবেন না, করলে ৫০ টাকা জরিমানা’ বাক্যটিতে ‘না’-এর পরের কমা আগে দিলে বাক্যটির অর্থ পরিবর্তিত হয়ে যাবে। অর্থাৎ ‘এখানে পোস াব করবেন, না করলে ৫০ টাকা জরিমানা!’ প্রিয় পাঠক আপনার কর্মক্ষেত্রে যদি এমন একটি ভুল করে বসেন, তাহলে আপনার সব অর্জন ধূলিস্যাৎ হয়ে যেতে পারে। তাই শুধু শব্দ চয়নেই নয়, বাক্য গঠনেও সতর্ক থাকতে হবে। আর ভুল (ব্যর্থ) না হওয়া মানেই সফলতা। কুইনটিসিয়ান বলেছেন- শব্দ ব্যবহারের ক্ষেত্রে স্বার্থহীনতা হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। শব্দ ভুল তো দুনিয়া ভুল হয়ে যাবে।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র