jugantor
আদালত অবমাননা
মাউশির ডিজি ফাহিমা খাতুনসহ দু’জনকে তলব

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

আদালতের আদেশ প্রতিপালন না করায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক (মাউশি ডিজি) অধ্যাপক ফাহিমা খাতুনসহ সাত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার অভিযোগে ব্যবস্থা নেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। শিক্ষা সচিব, মাউশি ডিজিসহ সাত কর্মকর্তাকে দুই সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এদের মধ্যে মাউশি ডিজি এবং অধিদফতরের সহকারী পরিচালক (কলেজ শাখা) হেলাল উদ্দিনকে আগামী ৫ জানুয়ারি আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। আদালত অবমাননার অভিযোগে করা এক আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন।

আদালত অবমাননার আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এবিএম আলতাফ হোসেন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এআরএম কামরুজ্জামান কাকন। আদেশের পর কামরুজ্জামান কাকন জানান, ‘রংপুর মডেল কলেজের চারজন শিক্ষক ও একজন কম্পিউটার অপারেটরের এমপিওর বিষয়ে আগে থেকেই হাইকোর্টের রুল ও স্থগিতাদেশ ছিল। একই বিষয়ে তাদের আবার মাউশি থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এটা আদালত অবমাননার শামিল। এ জন্য আবেদনের শুনানি শেষে আদালত শিক্ষা সচিবসহ সাত জনের প্রতি রুল দিয়েছেন। সেই সঙ্গে ব্যাখ্যা জানাতে মহাপরিচালকসহ দু’জনকে তলব করেছেন। ৫ জানুয়ারি তাদের সশরীরে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে।’

জানা যায়, নিয়োগ বৈধ নয় দাবি করে ২০১০ সালের ১১ জানুয়ারি অধিদফতর রংপুর মডেল কলেজের পাঁচজনের বেতন-ভাতা হিসাবে নেয়া অর্থ ফেরত চেয়ে এমপিও বাতিলের সিদ্ধান্ত জানায়। এ পাঁচজন হলেন- কলেজের সহকারী অধ্যাপক (রসায়ন) আহসান হাবীব, সহকারী অধ্যাপক (হিসাববিজ্ঞান) মো. তৈয়ব মিয়া, প্রভাষক (দর্শন) কাজী খালেদ (দর্শন), প্রভাষক (ইংরেজি) জিকরুল ইসলাম ও প্রদর্শক (কম্পিউটর) মো. মোমিনুর রহমান।

অধিদফতরের চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তারা রিট আবেদন করলে ওই বছরের ২৭ জানুয়ারি হাইকোর্ট ওই চিঠির কার্যকারিতা স্থগিতের পাশাপাশি রুল জারি করেন। এরপর চলতি বছরের ২৪ নভেম্বর অধিদফতরের আরেক চিঠিতে কেন ওই পাঁচজনের এমপিও স্থগিত করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়। একই সঙ্গে তাদের নেয়া বেতন-ভাতা সরকারি কোষাগারে ফেরত দিয়ে চালানের মূলকপি পাওয়ার সাত দিনের তা অধিদফতরে জমা দিতে বলা হয়। এ অবস্থায় তৈয়ব মিয়াসহ অন্যরা মঙ্গলবার আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে হাইকোর্টে এ আবেদন করেন। এ আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বুধবার উপরোক্ত আদেশ দেন হাইকোর্ট।



সাবমিট
আদালত অবমাননা

মাউশির ডিজি ফাহিমা খাতুনসহ দু’জনকে তলব

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
আদালতের আদেশ প্রতিপালন না করায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক (মাউশি ডিজি) অধ্যাপক ফাহিমা খাতুনসহ সাত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার অভিযোগে ব্যবস্থা নেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। শিক্ষা সচিব, মাউশি ডিজিসহ সাত কর্মকর্তাকে দুই সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এদের মধ্যে মাউশি ডিজি এবং অধিদফতরের সহকারী পরিচালক (কলেজ শাখা) হেলাল উদ্দিনকে আগামী ৫ জানুয়ারি আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। আদালত অবমাননার অভিযোগে করা এক আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন।

আদালত অবমাননার আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এবিএম আলতাফ হোসেন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এআরএম কামরুজ্জামান কাকন। আদেশের পর কামরুজ্জামান কাকন জানান, ‘রংপুর মডেল কলেজের চারজন শিক্ষক ও একজন কম্পিউটার অপারেটরের এমপিওর বিষয়ে আগে থেকেই হাইকোর্টের রুল ও স্থগিতাদেশ ছিল। একই বিষয়ে তাদের আবার মাউশি থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এটা আদালত অবমাননার শামিল। এ জন্য আবেদনের শুনানি শেষে আদালত শিক্ষা সচিবসহ সাত জনের প্রতি রুল দিয়েছেন। সেই সঙ্গে ব্যাখ্যা জানাতে মহাপরিচালকসহ দু’জনকে তলব করেছেন। ৫ জানুয়ারি তাদের সশরীরে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে।’

জানা যায়, নিয়োগ বৈধ নয় দাবি করে ২০১০ সালের ১১ জানুয়ারি অধিদফতর রংপুর মডেল কলেজের পাঁচজনের বেতন-ভাতা হিসাবে নেয়া অর্থ ফেরত চেয়ে এমপিও বাতিলের সিদ্ধান্ত জানায়। এ পাঁচজন হলেন- কলেজের সহকারী অধ্যাপক (রসায়ন) আহসান হাবীব, সহকারী অধ্যাপক (হিসাববিজ্ঞান) মো. তৈয়ব মিয়া, প্রভাষক (দর্শন) কাজী খালেদ (দর্শন), প্রভাষক (ইংরেজি) জিকরুল ইসলাম ও প্রদর্শক (কম্পিউটর) মো. মোমিনুর রহমান।

অধিদফতরের চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তারা রিট আবেদন করলে ওই বছরের ২৭ জানুয়ারি হাইকোর্ট ওই চিঠির কার্যকারিতা স্থগিতের পাশাপাশি রুল জারি করেন। এরপর চলতি বছরের ২৪ নভেম্বর অধিদফতরের আরেক চিঠিতে কেন ওই পাঁচজনের এমপিও স্থগিত করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়। একই সঙ্গে তাদের নেয়া বেতন-ভাতা সরকারি কোষাগারে ফেরত দিয়ে চালানের মূলকপি পাওয়ার সাত দিনের তা অধিদফতরে জমা দিতে বলা হয়। এ অবস্থায় তৈয়ব মিয়াসহ অন্যরা মঙ্গলবার আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে হাইকোর্টে এ আবেদন করেন। এ আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বুধবার উপরোক্ত আদেশ দেন হাইকোর্ট।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র