¦

এইমাত্র পাওয়া

  • হালনাগাদ ভোটার তালিকার খসড়া প্রকাশ; নতুন ভোটার ৪৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৭ জন
বগুড়ায় বই উৎসবে দুই শিক্ষককে যুবলীগ নেতার মারধর

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৬

বগুড়ার শাজাহানপুরের বেলপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি হতে না পেরে দুই শিক্ষককে মারধর করেছেন যুবলীগ নেতা। শুক্রবার সকালে বিদ্যালয়ে নতুন বই বিতরণের আগে শিক্ষার্থীদের সামনে শিক্ষকদের মারধর করেন ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন। এ ঘটনায় শিক্ষকদের মধ্যে প্রচণ্ড ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গত দু’বছরে আল-আমিন প্রধান শিক্ষকসহ চার শিক্ষক ও এক অফিস সহকারীকে মারধর করলেন। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খন্দকার ওয়াদুদ হোসেন অভিযোগ করেন, আল-আমিন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হতে না পেরে ক্ষুব্ধ হন। এ জন্য তিনি তাকে (প্রধান শিক্ষক) ও কয়েকজন শিক্ষককে দায়ী করেন। ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত মোট চারজন শিক্ষক ও একজন অফিস সহকারীকে মারধর করেছেন আল-আমিন। ওই প্রভাবশালী নেতার ভয়ে শিক্ষকরা লিখিত অভিযোগ দেয়ার সাহস পাচ্ছেন না।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে স্কুলে বই উৎসবের প্রস্তুতি চলছিল। এ সময় আল-আমিন স্কুলে এসে ছাত্রছাত্রীদের সামনে সহকারী শিক্ষক (গণিত) জাহাঙ্গীর আলম ও সহকারী শিক্ষক (মৌলভী) রোকন উদ্দিন খানকে কিল-ঘুষিসহ মারধর করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১টার দিকে তিনি সহকারী প্রধান শিক্ষক ফজলুল হককে মারধর করেন। এর আগে ২০১৩ সালের অক্টোবরে যুবলীগ নেতা একই কারণে প্রধান শিক্ষক খন্দকার ওয়াদুদ হোসেন, সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম ও অফিস সহকারী শাজাহান আলীকে বেদম মারধর করেছিলেন। এ সময় প্রধান শিক্ষকের ছয় বছরের শিশুকেও মারধর করা হয়। এ ঘটনায় শিক্ষকদের মধ্যে প্রচণ্ড ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
প্রধান শিক্ষক জানান, বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান সরকার বাদল ও নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুবায়েত খানকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। তাকে লিখিতভাবে অভিযোগ দিতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। মাঝিরা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-আমিনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে বলেন, শুক্রবার সকালে স্কুলে গেলেও কোনো শিক্ষককে মারধর করেননি তিনি। এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।
শেষ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close