¦
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী সমীপে

| প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০১৫

গত ১৯৯৬ সালে আপনার শাসনামলে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘভূমি বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত ও এমপিওভুক্ত হয়। পরবর্তী সময়ে চারদলীয় জোট সরকারের সময় বিদ্যালয়টির কোনো উন্নয়ন হয়নি বরং বিভিন্নভাবে প্রশাসনের মাধ্যমে একে ভাঙার চেষ্টা করা হয়। ২০০৯ সালের নির্বাচনে আবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ২০১০ সালে একমাত্র আপনার সদিচ্ছায় পূর্ণাঙ্গ স্কুলের এমপিও হয়। মহান আল্লাহপাক আপনাকে ২১বার মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করেছেন। আপনার বাবা এ দেশকে ভালোবেসে স্বাধীন করে বিশ্বের মানচিত্রে স্থান করে দিয়েছেন। আর মেধা ও প্রজ্ঞার মাধ্যমে সারা দেশে উন্নয়নের জোয়ারের পাশাপাশি ঢাকাকে আপনি করেছেন আধুনিক ডিজিটাল শহর। কুমিল্লা-৫ আসনের সাবেক আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু (এমপি)-এর পৃষ্ঠপোষকতায় এবং বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা- বাংলাদেশ আওয়মী লীগ ব্রাহ্মপাড়া উপজেলা শাখার দুদুবার নির্বাচিত উপজেলা চেয়াম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরীর অক্লান্ত পরিশ্রম ও এলাকাবাসীর সদিচ্ছার সমন্বয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে একমাত্র প্রতিষ্ঠানটি পূর্বাঞ্চলে গড়ে তুলেছেন। গত এসএসসি ও জেএসসি পরীক্ষায় ছাত্র/ছাত্রীরা অত্যন্ত ভাল ফল করেছে।
বর্তমানে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৭০০। বিদ্যালয়ে গত অর্থবছরে ৩ কক্ষবিশিষ্ট একটি ভবন নির্মিত হয়েছে। বর্তমানে এখানে ভবন, শ্রেণীকক্ষ ও আসবাবপত্রের অভাব রয়েছে। স্কুলের প্রাচীরও নেই। শিক্ষার্থীদের সুষ্ঠু পরিবেশে পাঠদানের ক্ষেত্রে নানা সমস্যায় পড়তে হয়। কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে একমাত্র প্রতিষ্ঠানটি আপনার সরকারের সময় সব সমস্যার সমাধানের দাবিদার। আপনি শিক্ষার প্রতি যথেষ্ট আন্তরিক বিধায় বাংলাদেশের বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো জাতীয়করণ করেছেন। এতে যুগ যুগ ধরে আপনার নাম স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ থাকবে। এখন আপনি ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে প্রতিষ্ঠানটির সব ধরনের উন্নয়ন ও এর জাতীয়করণের দাবি জানাচ্ছি।
ব্যবস্থাপনা কমিটি, অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকাবাসী
ব্রাহ্মণপাড়া, কুমিল্লা
চিঠিপত্র পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close