jugantor
বাগেরহাটে আ’লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে আলোচনা : এগিয়ে বিএনপি

  শওকত আলী বাবু, বাগেরহাট থেকে  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

দলীয় প্রতীকে প্রথমবারের মতো বাগেরহাট পৌরসভার ৩৪ হাজার ২০৩ জন ভোটার তাদের নগর পিতা নির্বাচিত করতে ভোট দেবে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে বাগেরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র খান হাবিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মীনা হাসিবুল হাসান শিপনকে ঘিরে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আলোচনার ঝড় বইছে শহরে। অন্যদিকে সুবিধাজনক অবস্থানে বিএনপি প্রার্থী। এদিকে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় না নেমে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেয়ার অভিযোগে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চিরঞ্জীব বিশ্বাস সানিকে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে অনেকটা অপ্রত্যাশিত ভাবেই বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বাগেরহাট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সম্পাদক আবুল কালাম মোহাম্মদ আবদুল হাই। আর জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী মানোনীত হয়েছেন মীর্জা আলী হাসান খোকন। বিশ্লেষকদের মতে আসন্ন নির্বাচনে বাগেরহাট পৌরসভায় শক্ত অবস্থানে রয়েছে আওয়ামী লীগ। গত দুটি নির্বাচনে এই পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হন খান হাবিবুর রহমান। তবে জনসমর্থনের দিক থেকে পিছিয়ে নেই বিএনপিও। তবে এবার বাগেরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের দুই নেতা একই পদে প্রার্থী হওয়ায় ভোটের মাঠে ভোটারদের চলছে নতুন হিসেব। সুবিধাজনক অবস্থানে আছে বিএনপি। প্রার্থী মেয়র পদে আওয়ামী লীগের খান হাবিবুর রহমান, বিএনপি থেকে আবুল কালাম মো. আবদুল হাই, জাতীয় পার্টি থেকে মীর্জা আলী হাসান এবং বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মীনা হাসিবুল হাসান শিপন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করে। যদিও শনিবার যাচাই বাছাইয়ে মীনা হাসিবুল হাসানের মনোনয়ন হলফনামায় ত্র“টি থাকায় বাতিল করা হয়। তবে মীনা হাসিবুল হাসান শিপন তার প্রার্থিতার স্বপক্ষে আপিল করেছে। ফলে অন্যান্য প্রার্থীর মতো আওয়ামী লীগের এই নেতা ও নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। এদিকে বাগেহরহাট জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন না হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের কেউ কেউ আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নেয়ায় পৌর নির্বাচনে সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়েছে। বাগেরহাট পৌরসভায় মেয়র পদে প্রার্থী বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান প্যানেল মেয়র মীনা হাসিবুল হাসান শিপন যুগান্তরকে বলেন, প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিলের রায় তার অনুকূলে আসবেন বলে তিনি আশা করেন।



সাবমিট

বাগেরহাটে আ’লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে আলোচনা : এগিয়ে বিএনপি

 শওকত আলী বাবু, বাগেরহাট থেকে 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
দলীয় প্রতীকে প্রথমবারের মতো বাগেরহাট পৌরসভার ৩৪ হাজার ২০৩ জন ভোটার তাদের নগর পিতা নির্বাচিত করতে ভোট দেবে। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে বাগেরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র খান হাবিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মীনা হাসিবুল হাসান শিপনকে ঘিরে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আলোচনার ঝড় বইছে শহরে। অন্যদিকে সুবিধাজনক অবস্থানে বিএনপি প্রার্থী। এদিকে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় না নেমে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেয়ার অভিযোগে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চিরঞ্জীব বিশ্বাস সানিকে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে অনেকটা অপ্রত্যাশিত ভাবেই বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন বাগেরহাট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সম্পাদক আবুল কালাম মোহাম্মদ আবদুল হাই। আর জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী মানোনীত হয়েছেন মীর্জা আলী হাসান খোকন। বিশ্লেষকদের মতে আসন্ন নির্বাচনে বাগেরহাট পৌরসভায় শক্ত অবস্থানে রয়েছে আওয়ামী লীগ। গত দুটি নির্বাচনে এই পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হন খান হাবিবুর রহমান। তবে জনসমর্থনের দিক থেকে পিছিয়ে নেই বিএনপিও। তবে এবার বাগেরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের দুই নেতা একই পদে প্রার্থী হওয়ায় ভোটের মাঠে ভোটারদের চলছে নতুন হিসেব। সুবিধাজনক অবস্থানে আছে বিএনপি। প্রার্থী মেয়র পদে আওয়ামী লীগের খান হাবিবুর রহমান, বিএনপি থেকে আবুল কালাম মো. আবদুল হাই, জাতীয় পার্টি থেকে মীর্জা আলী হাসান এবং বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মীনা হাসিবুল হাসান শিপন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করে। যদিও শনিবার যাচাই বাছাইয়ে মীনা হাসিবুল হাসানের মনোনয়ন হলফনামায় ত্র“টি থাকায় বাতিল করা হয়। তবে মীনা হাসিবুল হাসান শিপন তার প্রার্থিতার স্বপক্ষে আপিল করেছে। ফলে অন্যান্য প্রার্থীর মতো আওয়ামী লীগের এই নেতা ও নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। এদিকে বাগেহরহাট জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন না হওয়ায় দলীয় নেতাকর্মীদের কেউ কেউ আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে অবস্থান নেয়ায় পৌর নির্বাচনে সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়েছে। বাগেরহাট পৌরসভায় মেয়র পদে প্রার্থী বাগেরহাট সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান প্যানেল মেয়র মীনা হাসিবুল হাসান শিপন যুগান্তরকে বলেন, প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিলের রায় তার অনুকূলে আসবেন বলে তিনি আশা করেন।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র