¦
পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মলাস্কা ও অমেরুদণ্ডী প্রাণী

প্রকৃতি ও জীবন ডেস্ক | প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল ২০১৫

সাগর বড়ই বৈচিত্রময়। বিচিত্র এর প্রাণিকূল। এমনই এক বৈচিত্রময় প্রাণী ‘দানব স্কুইড’। বিশাল গড়নের জন্যই এদের নামকরণ এমন। নামটি এসেছে ইংরেজি Giant Squid থেকে। দানব স্কুইডের বসবাস পৃথিবীর প্রায় সব মহাসাগরেই। তবে আটলান্টিক মহাসাগরে এদের আনাগোনা বেশি। এরা পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মলাস্কা ও অমেরুদণ্ডী প্রাণী। আজ পর্যন্ত আবিষ্কৃত সবচেয়ে বড় আকারের দানব স্কুইডের দৈর্ঘ্য প্রায় ৫৯ ফুট এবং ওজন প্রায় ১ টনের কাছাকাছি। প্রাপ্তবয়স্ক একটি স্কুইড স্কুল বাসের চেয়েও বড় এবং এদের একেকটি চোখ প্রায় একেকটি বিচ বলের সমান। স্ত্রী স্কুইড পুরুষের চেয়ে বড় ও শক্তিশালী। অনেকেই এদের অক্টোপাস মনে করে ভুল করে। কারণ অক্টোপাসের মতোই এদের রয়েছে ৮টি পা এবং পাগুলো মাথার সঙ্গে যুক্ত। এদের পা বেশ বড় হওয়ায় শিকারকে খুব শক্ত করে আকড়ে ধরতে পারে। আর চোয়ালও বেশ শক্তিশালী, অনেকটা টিয়া পাখির ঠোঁটের মতো। এজন্য এরা সহজেই ছোট আকারের স্কুইড, মাছ, চিংড়ি, অক্টোপাস প্রভৃতি প্রাণী শিকার করে খেতে পারে। এরা ছোট আকারের তিমি মাছও শিকার করে খায়। ‘দানব স্কুইড’ গভীর পানির বাসিন্দা। সাগরের প্রায় ৩০০০ থেকে ৬০০০ ফুট গভীরতায় এদের বিচরণ। এরা খুব দ্রুত গতিতে চলাচল করে। শিকার করার পদ্ধতিটাও অন্যরকম। এরা তাড়িয়ে শিকার করার চেয়ে ওত পেতে থেকে অতর্কিতে আক্রমণ করে শিকার করতে বেশি পছন্দ করে; অনেকটা ধোঁকা দেয়ার মতো। শিকারের জন্য এরা সাগরের তলদেশে ঘণ্টার পর ঘণ্টা চুপ করে বসে থাকে। শিকার নাগালের মধ্যে এলেই আর রক্ষা নেই। তবে এদের শত্রুও রয়েছে। স্পার্ম তিমি এদের অন্যতম শত্রু। এদের সঙ্গে প্রায়ই স্পার্ম তিমির তীব্র যুদ্ধ বেধে যায়। যুদ্ধে আক্রান্ত হলে অন্যান্য স্কুইডের মতো এরাও কালি ছুড়ে শত্রুকে ধোঁকা দিয়ে পালিয়ে যায়। কখনও আবার দেহের রঙ পরিবর্তন করেও নিজেকে রক্ষা করে। সুস্বাদু মাংসের জন্য দানব স্কুইড বেশ জনপ্রিয়। আর এজন্য এদের বাণিজ্যিক মূল্যও অনেক বেশি। ফলে প্রকৃতি থেকে নির্বিচারে শিকার করায় দানব স্কুইড আজ হুমকির মুখে।
 

প্রকৃতি ও জীবন পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close