¦

এইমাত্র পাওয়া

  • সোমবার বেলা ৩টায় অন্তবর্তী সরকারের মন্ত্রীদের শপথ. সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সাথে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতে সিদ্ধান্ত
সাবেক মন্ত্রী সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজের ইন্তেকাল

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর ২০১৩

সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজ আর নেই। শুক্রবার বিকাল ৪টা ১০ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)। রাজিয়া ফয়েজের মৃত্যুতে রাজনৈতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ীরা ছুটে যান তার বাসভবনে। তারা মরহুমার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং গভীর সমবেদনা জানান। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি ২ ছেলে ও ১ মেয়ে রেখে গেছেন। গুলশান আজাদ মসজিদে জানাজা শেষে তার লাশ আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। গভীর শোক প্রকাশ করে বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা বলেছেন, রাজিয়া ফয়েজ একজন বিজ্ঞ ও আপাদমস্তক রাজনীতিবিদ ছিলেন। ছিলেন সুবক্তাও। ভারত উপমহাদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ, অনন্য বাগ্মী এবং কলকাতা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদরুদ্দোজার কন্যা ছিলেন তিনি। রাজিয়া ফয়েজ সাবেক পাকিস্তান জাতীয় পরিষদে মুসলিম লীগের সদস্য ছিলেন এবং বাংলাদেশে প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত প্রথম মহিলা এমপি। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী রাজিয়া ফয়েজের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং মরুহুমার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। বিএনপি চেয়ারপারসন ও বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া রাজিয়া ফয়েজের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তার রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। সৈয়দা রাজিয়া ফয়েজের মৃত্যুতে আরও শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ প্রগ্রেসিভ পার্টির মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোঃ নোমান এবং জাতীয়তাবদী মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সভাপতি ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল ও সাধারণ সম্পাদক একেএম নূরুল আমীন।
 

খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close