jugantor
শজিমেকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ আহত ৭

  বগুড়া ব্যুরো  

০৭ এপ্রিল ২০১৪, ০০:০০:০০  | 

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে (শজিমেক) আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গ্র“পের মধ্যে বিরোধ তুঙ্গে উঠেছে। রোববার বিকালে দু’গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ৭ ছাত্র আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ছুরিকাঘাতে ও লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত ৫ জনকে শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সভাপতি ডা. মিরাজ ও সাধারণ সম্পাদক ডা. আতিক বলেছেন, তাদের মধ্যে কোনো গ্র“পিং নেই। ‘ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’র তারিখ নির্ধারণ নিয়ে নিজেদের মধ্যে হাতাহাতি হয়েছে। বিকালে এ খবর পাঠানোর সময় কলেজে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল। সাধারণ শিক্ষার্থীরা রাতে হামলার আশংকা করছেন।

আহতরা হলেন- পঞ্চম বর্ষের ছাত্র শুভাশীষ, রাসেল ও আলভি, চতুর্থ বর্ষের আশিক ও তৃতীয় বর্ষের তানভীর।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান, মেডিকেল কলেজে অনেকদিন ধরে চট্টগ্রাম-কুমিল্লা এবং উত্তরবঙ্গের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এরা সবাই ক্ষমতাসীন আওয়ামী ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এক পক্ষে সভাপতি ডা. মিরাজ ও অন্যপক্ষে সাধারণ সম্পাদক ডা. আতিক। আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এদের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছিল। আগামী ১০-১১ এপ্রিল কলেজে ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল করার উদ্যোগ নেয়া হয়। তারিখ পরিবর্তন নিয়ে রোববার বিকাল ৪টার দিকে দু’পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে লাঠিসোটা ও ধারাল অস্ত্র নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ওই ছাত্ররা আহত হন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সাধারণ শিক্ষার্থীরা রাতে আবারও হামলার আশংকা করছেন।



সাবমিট

শজিমেকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ আহত ৭

 বগুড়া ব্যুরো 
০৭ এপ্রিল ২০১৪, ১২:০০ এএম  | 
বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে (শজিমেক) আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গ্র“পের মধ্যে বিরোধ তুঙ্গে উঠেছে। রোববার বিকালে দু’গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ৭ ছাত্র আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ছুরিকাঘাতে ও লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত ৫ জনকে শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সভাপতি ডা. মিরাজ ও সাধারণ সম্পাদক ডা. আতিক বলেছেন, তাদের মধ্যে কোনো গ্র“পিং নেই। ‘ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’র তারিখ নির্ধারণ নিয়ে নিজেদের মধ্যে হাতাহাতি হয়েছে। বিকালে এ খবর পাঠানোর সময় কলেজে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছিল। সাধারণ শিক্ষার্থীরা রাতে হামলার আশংকা করছেন।

আহতরা হলেন- পঞ্চম বর্ষের ছাত্র শুভাশীষ, রাসেল ও আলভি, চতুর্থ বর্ষের আশিক ও তৃতীয় বর্ষের তানভীর।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান, মেডিকেল কলেজে অনেকদিন ধরে চট্টগ্রাম-কুমিল্লা এবং উত্তরবঙ্গের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এরা সবাই ক্ষমতাসীন আওয়ামী ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এক পক্ষে সভাপতি ডা. মিরাজ ও অন্যপক্ষে সাধারণ সম্পাদক ডা. আতিক। আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এদের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছিল। আগামী ১০-১১ এপ্রিল কলেজে ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল করার উদ্যোগ নেয়া হয়। তারিখ পরিবর্তন নিয়ে রোববার বিকাল ৪টার দিকে দু’পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে লাঠিসোটা ও ধারাল অস্ত্র নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ওই ছাত্ররা আহত হন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সাধারণ শিক্ষার্থীরা রাতে আবারও হামলার আশংকা করছেন।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র