¦
হাতে বই মুখে হাসি

হক ফারুক আহমেদ | প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রবেশপথ বাংলা একাডেমির গেট থেকে শুরু হয়েছে বইপ্রেমীদের লাইন। সেটা গিয়ে শেষ হয়েছে টিএসসির মোড়ে। মেলার আরেক অংশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশেও একই অবস্থা। শুক্রবার ছুটির দিনে গ্রন্থমেলার চিত্রটা ছিল এমনই। মেলায় প্রবেশের পর দুই প্রাঙ্গণেই দেখা গেল পাঠকদের ভিড়। আর হাতে হাতে নতুন বই। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এবারের মেলার পরিসর অনেক বড় হলেও পাঠকদের পদচারণায় শুক্রবার উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। ক্রেতাদের অধিক সমাগমের পাশাপাশি বইয়ের বিক্রি আশানুরূপ হওয়ায় প্রকাশকদের মুখেও ফুটেছে হাসি। অনুপম প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী মিলন ক্রান্তি নাথ বলেন, ৯০-এর দশকে দেশ আরও বড় ক্রান্তিকালের মধ্যে ছিল। তখনও অমর একুশে গ্রন্থমেলা তার চিরচেনা রূপ ফিরে পেতে সময় লাগেনি, এখনও না। আসলে বইমেলা সবকিছুর ঊর্ধ্বে। শুক্রবার বইমেলা তার চিরচেনা রূপ ফিরে পাবে এটা আমরা আগ থেকেই ভেবে রেখেছিলাম এবং তাই হয়েছে। তবে মেলায় বই বিক্রির ক্ষেত্রে বাংলা একাডেমি নিজেই বৈষম্য সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ করেছেন মাওলা ব্রাদার্সের প্রকাশক আহমেদ মাহমুদুল হক। বাংলা একাডেমি মেলায় সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ কমিশনে বই বিক্রি করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা সবাই ২৫ শতাংশ কমিশনে বই বিক্রি করছি। একই মেলায় তো দুই ধরনের নিয়ম থাকতে পারে না। শুক্রবার মেলার শুরুটা ছিল শিশুপ্রহরের মধ্য দিয়ে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শিশুপ্রহরে মেলা প্রাঙ্গণ শিশুদের কলকাকলিতে ভরে উঠেছিল। শুধু শিশুরাই নয় কিশোর-কিশোরীদেরও দেখা মিলেছে। এসেছে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও। মেলা ঘুরে দেখার পাশাপাশি পছন্দের বইটি কিনে নিতেও ভুল করেনি তারা। এর আগে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে অমর একুশে উদযাপন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজন করে শিশু-কিশোর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতায় ইচ্ছেমতো আঁকা শীর্ষক ক বিভাগে ২৮৫ জন, শহীদ মিনার শীর্ষক খ বিভাগে ২০৪ জন এবং বাংলা একাডেমি শীর্ষক গ বিভাগে ১৭৪ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। এবারের গ্রন্থমেলার একটি উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা হচ্ছে স্পর্শ। দৃষ্টিহীন মানুষদের জন্য তারা ব্রেইল পদ্ধতিতে বই প্রকাশ করেছে। শুক্রবার বইমেলায় সর্বমোট ২৯০টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে উপন্যাস ৫৯টি, কবিতা ৫৮টি, গল্প ৫৩টি, প্রবন্ধ ২২টি, গবেষণা ৬টি, ছড়া ১০টি, শিশুসাহিত্য ১৩টি, জীবনী ৮টি, নাটক ১টি, বিজ্ঞানবিষয়ক ১৩টি, ভ্রমণবিষয়ক ২টি, ইতিহাসবিষয়ক ৩টি, রাজনীতিবিষয়ক ২টি, স্বাস্থ্যবিষয়ক ৪টি, ধর্মীয় বই ১টি, অভিধান ১টি, সায়েন্স ফিকশন ২টি এবং অন্যান্য বিষয়ের বই মোট ২৮টি। শুক্রবার প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের কবিতার বই খেরোখাতার পাতা থেকে।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close