¦
জীবনে কখনও সততা ও আদর্শ থেকে বিচ্যুত হইনি

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বলেছেন, জীবনে আমি কোনো পদের জন্য লালায়িত ছিলাম না। কখনও সততা ও আদর্শ থেকে বিচ্যুত হইনি। কর্তব্য পালনে কোনো প্রতিকূলতা বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি বলেই আজ এ আসনে আসিন হতে পেরেছি। তিনি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, আমার নাম ব্যবহার করে যেন কেউ কোনো কিছু আদায় করতে না পারে বা আমার পদ যেন কেউ কলংকিত করতে না পারে সেদিকে আপনারা লক্ষ্য রাখবেন। শুক্রবার মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে মণিপুরী সমাজের অভ্যর্থনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রধান বিচারপতি নিজ গ্রামে আসার সংবাদে গোটা এলাকায় সাজসাজ রব পড়ে যায়। তাকে অভ্যর্থনা জানাতে সকাল থেকেই মণিপুরী সম্প্রদায়ের লোকজন ছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ তিলকপুর আসতে শুরু করেন।
ফুলেল অভ্যর্থনা : প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ নেয়ার পর শুক্রবার সকালে প্রথম গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের তিলকপুর সফরে আসেন এসকে সিনহা। সকাল সাড়ে ১০টায় সহধর্মিনী সুষমা সিনহাকে সঙ্গে নিয়ে তিলকপুরে পৌঁছলে তাকে ফুলেল অভ্যর্থনা জানান মণিপুরী সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। সেখান থেকে হেঁটে প্রধান বিচারপতি নিজ বাসভবনে পৌঁছলে পুলিশের একটি চৌকোস দল তাকে সশস্ত্র সালাম জানায়।
রাস্তার দুপাশে দাঁড়িয়ে নারী-পুরুষরা ফুল ছিটিয়ে তাকে বরণ করে নিজ বাসভবন আশীর্বাদ গেট পর্যন্ত নিয়ে যায়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান, মৌলভীবাজারের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুল ইসলাম, কমলগঞ্জের ইউএনও মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম মিঞা, অভ্যর্থনা কমিটির আহ্বায়ক সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. নন্দকিশোর সিংহ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুল মুমিন তরফদার, অ্যাডভোকেট এএসএম আজাদুর রহমান, সরকারি বিভিন্ন দফতরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল পৌনে ১০টায় চৌমুহনা চত্বরে প্রধান বিচারপতিকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
বিকাল ৩টায় স্থানীয় দয়াময় উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দেশের বৃহত্তর মণিপুরী সমাজের উদ্যোগে সিনহাকে লাল গালিচা অভ্যর্থনা দেয়া হয়। তিনি মঞ্চে ওঠার সময় বাজানো হয় প্রায় ৪ মণ ওজনের রাজঘণ্টা। প্রায় সাড়ে ৪শ বছর আগে রাজ পরিবারে এ ঘণ্টা বাজানো হতো। অভ্যর্থনা কমিটির আহ্বায়ক ডা. নন্দকিশোর সিংহের সভাপতিত্বে সভামঞ্চে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধান বিচারপতির সহধর্মিনী সুষমা সিনহা, সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ভবানী প্রসাদ সিংহ, মৌলভীবাজার জেলা ও দায়রা জজ মনির আহমদ পাটোয়ারী, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনতাজ বেগম প্রমুখ। সাংবাদিক সংগ্রাম সিংহ, দেবশ্রী সিনহা ও শ্যামসুন্দর সিংহের যৌথ সঞ্চালনায় মানপত্র পাঠ করেন সুনামগঞ্জ আদালতের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শ্যামকান্ত সিংহ। বক্তব্য রাখেন বিশ্বজিত সিংহ, কৃষ্ণকান্ত সিংহ, রাজকান্ত সিনহা, প্রতাপ কুমার সিংহ প্রমুখ। পরে আনন্দ লোকে মঙ্গলানন্দে সংকলনের মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধান অতিথি। সব শেষে মণিপুরী ললিতকলা একাডেমি ও মণিপুরী থিয়েটারের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close