¦
অবরোধ-হরতালে রাজশাহীর পোলট্রি ব্যবসা লাটে

জিয়াউল গনি সেলিম, রাজশাহী | প্রকাশ : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধ ও দফায় দফায় হরতালে রাজশাহীতে ধ্বংসের মুখে পড়েছে পোলট্রিশিল্প। এই শিল্পে দুর্দিন চলছে। মহাসড়কে অব্যাহত নাশকতায় গাড়ি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। যানবাহন সংকটে রাজধানী ঢাকা-সাভারসহ অন্য অঞ্চল থেকে খাদ্য আনতে পারছেন না রাজশাহীর পোলট্রি ব্যবসায়ীরা। একই সঙ্গে রাজশাহীর বাইরেও পাঠানো যাচ্ছে না উৎপাদিত ডিম। ফলে একদিকে খাদ্য ও জরুরি ওষুধ সংকট, অন্যদিকে ডিম বেচতে না পেরে লোকসানের মুখে পড়েছেন প্রায় দুই হাজার খামারি।
লোকসান গুনতে গুনতে ডিম উৎপাদনকারী (লেয়ার) খামারিদের অনেকেই এরই মধ্যে পথে বসেছেন।
পোলট্রি ব্যবসায়ীরা বলেন, শিগগিরই এ অচলাবস্থা কাটিয়ে উঠতে না পারলে অচিরেই সম্ভাবনাময় শিল্পটি ধ্বংস হয়ে যাবে। এতে এর সঙ্গে জড়িত রাজশাহীর প্রায় পাঁচ হাজার মানুষ বেকার হয়ে পড়বে।
নগরীর কাদিরগঞ্জ এলাকার লেয়ার খামারি আরিফ হোসেন বলেন, অবরোধের আগ থেকেই ব্রয়লার মুরগির কাক্সিক্ষত দাম পাওয়া যাচ্ছিল না। মুরগি ও ডিমের বাজারমূল্য কম থাকায় খামারিদের যখন লোকসান গুনতে হচ্ছে, তখন গোদের উপরে বিষফোঁড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে রাজনৈতিক অস্থিরতা ও চলমান অবরোধ-হরতাল কর্মসূচি।
নগরীর আদর্শ পোলট্রি অ্যান্ড ফিডের মিজানুর রহমান জানান, ঢাকা, সাভার, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া থেকে মুরগির খাবার আনতে হয় তাদের। কিন্তু টানা অবরোধের কারণে তারা মুরগির খাবার আনতে পারছেন না।
ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারে এখন লেয়ার মুরগির জন্য ৫০ কেজির প্রতি বস্তা খাদ্যের দাম ১ হাজার ৮০০ টাকা এবং ব্রয়লার মুরগির খাদ্যের দাম বস্তা প্রতি ২ হাজার ৩০০ টাকা। পোলট্রি ফিডের দাম বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি খাবার না পাওয়াটাই চরম সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অচিরেই পুঁজি হারিয়ে সর্বস্বান্ত হতে হবে তাদেরকে। রাজশাহী পোলট্রি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ এনামুল হক বলেন, অবরোধের কারণে রাজশাহীর পোলট্রি শিল্প এখন ধ্বংসের মুখে। এমনিতেই ব্যবসা খারাপ যাচ্ছিল। এর মধ্যে অবরোধ-হরতালে ব্যবসা লাটে উঠেছে।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close