¦
নাশকতাকারীদের পিটিয়ে হত্যা করবেন

মেহেরপুর প্রতিনিধি | প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

সন্ত্রাসীরা কোনো দলের নয়। ওরা জাতীয় শত্রু। যারা বোমা মেরে দেশের নিরীহ মানুষকে হত্যা করছে, তাদের বোমা মেরেই শেষ করতে হবে। নাহলে দেশের অনেক মানুষ বোমার আঘাতে পুড়ে মারা যাবে। কেউ কেউ পঙ্গুত্ববরণ করে পরিবার, সমাজ তথা দেশের বোঝা হয়ে দাঁড়াবে। বুধবার মেহেরপুর টাউন হলের সামনে এক সমাবেশে খুলনা বিভাগীয় ডিআইজি এসএম মনিরুজ্জামান (পিপিএম) এসব কথা বলেন।
পুলিশের পক্ষে আয়োজিত নাশকতা ও সন্ত্রাসবিরোধী এক সমাবেশে মেহেরপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলমের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন দোদুল, মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের সংসদ সদস্য মকবুল হোসেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল জাভেদ সুলতান, খুলনা বিভাগীয় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার দিদার আলম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) খন্দকার রফিকুল ইসলাম, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৬)-এর পরিচালক লে. ইনামুল আরিফ সুমন ও রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সের পরিচালক ড. নাজমুল করীম খান। ডিআইজি আরও বলেন, যারা নাশকতার সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে পাড়া-মহল্লায় সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটি গঠন করে তাদের ধরে পিটিয়ে হত্যা করবেন। পুলিশ প্রশাসন সব সময় এসব প্রতিরোধ কমিটির পক্ষে থাকবে। এসব সন্ত্রাসীকে মারলে তাদের বিচার করা হবে না। যারা আন্দোলনের নামে চোরাগোপ্তা হামলা, রাতের আঁধারে পেট্রলবোমা মেরে নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারে, রাষ্ট্রের সম্পদ ধ্বংস করে তাদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। গুটি কয়েক সন্ত্রাসী আন্দোলনের নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। দেশের মানুষের স্বার্থে বোমা হামলাকারীদের নিঃশেষ করার বিকল্প নেই। মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন বলেন, বোমা হামলাকারীরা যদি আমাদের নিকটাত্মীয়ও হয় তাদের সমুচিত জবাব দেয়া হবে।
মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের সংসদ সদস্য মকবুল হোসেন বলেন, আমাদের এবারের যুদ্ধ দেশকে সন্ত্রাসী, বোমা হামলাকারী ও নির্দেশদাতা মুক্ত করার যুদ্ধ। ৭১-এর মতো এ যুদ্ধেও আমরা পরাজিত হব না।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close