¦
প্রশিক্ষণ নিতে পারছেন না ১০ হাজার কনস্টেবল

মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু ও আলাউদ্দিন আরিফ | প্রকাশ : ০১ এপ্রিল ২০১৫

নতুন নিয়োগ পাওয়া ১০ হাজার পুলিশ কনস্টেবল প্রশিক্ষণের জন্য একাডেমিতে যোগ দিতে পারছে না। তাদের বেতন-ভাতার অর্থ ছাড় সংক্রান্ত জটিলতায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। অর্থমন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে ওই নিয়োগের বিষয়টি কার্যকর ও তদারকি করা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রণালয় এই ১০ হাজার কনস্টেবল নিয়োগের অর্থ সংস্থানের বিষয়ে জানে না। তবে পুলিশ সদর দফতরের কর্মকর্তারা বলছেন, নিয়োগ পাওয়া প্রার্থীদের যাচাই-বাছাই করতে কিছু সময় লাগছে। যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শেষ হলে তাদের প্রশিক্ষণের জন্য ডাকা হবে। ১০ হাজার পুলিশ কনস্টেবল প্রশিক্ষণে যোগদান সংক্রান্ত জটিলতা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রণালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা যুগান্তরকে জানান, ‘তারা ১০ হাজার কনস্টেবল আলাদাভাবে নিয়োগের বিষয়টি জানতেন না। পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে এ বিষয়ে জেনেছেন। বিষয়টি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সিদ্ধান্ত এসেছে। পুলিশে নতুন ৫০ হাজার জনবল নিয়োগের অংশ হিসেবে এটি করা হয়েছে। আলাদাভাবে এ জন্য কোনো প্রস্তাব দেয়া হয়নি।’
পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজি (আরএমএন্ডটি) আতিকুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, অর্থমন্ত্রণালয় থেকে অর্থছাড় না পাওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়। নতুন নিয়োগ পাওয়া ১০ হাজার প্রার্থীর সনদপত্র, ঠিকানা ও আনুষঙ্গিক কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। এতে কিছুটা সময় লাগছে। বিশেষ করে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় নিয়োগ পাওয়া প্রার্থীদের সনদ সঠিকভাবে যাচাই করা সময়সাপেক্ষ বিষয়। ভেরিফিকেশন শেষ হলে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে প্রশিক্ষণের জন্য ডাকা হবে।
দেশের ৬৪ জেলায় গত ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আট হাজার পুরুষ ও দেড় হাজার নারী কনস্টেবল নিয়োগ দেয়া হয়। নিয়োগের প্রাথমিক পরীক্ষার এক মাসের বেশি সময় অতিবাহিত হয়েছে। কিন্তু তারা এখনও প্রশিক্ষণের জন্য দিন গুনছেন। তবুও প্রশিক্ষণের ডাক পাচ্ছেন না। এদের অনেকে মোটা অংকের ঘুষ দিয়ে চাকরি নিয়েছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। পুলিশে একযোগে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক সদস্য নিয়োগ এটি। এই নিয়োগে জটিলতা দেখা দেয়ায় সংশ্লিষ্টদের মধ্যেও তৈরি হয়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।
পুলিশ সদর দফতর সূত্র জানায়, জেলাভিত্তিক পুরুষ ও নারী কনস্টেবলের সংখ্যা যথাক্রমে ঢাকায় ৫৯২ ও ১০৪, নরসিংদীতে ১৩১ ও ২৩, শরিয়তপুরে ৭৪ ও ১৩, ময়মনসিংহে ৩০৬ ও ৫৪, বান্দরবানে ২০ ও ৪, নোয়াখালীতে ১৭৭ ও ৩১, পাবনায় ১৪৯ ও ২৬, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৯৮ ও ১৯, নীলফামারিতে ১০৭ ও ১৯, বাগেরহাটে ১০৪ ও ১৮, নড়াইলে ৪৮ ও ৮, ভোলায় ১১৭ ও ২১, সিলেটে ১৭৫ ও ৩১, গাজীপুরে ১৩৮ ও ২৪, ফরিদপুরে ১২০ ও ২১, জামালপুরে ১৪৪ ও ২৬, টাঙ্গাইলে ২২৪ ও ৪০, রাঙ্গামাটিতে ৩৬ ও ৬, ফেনীতে ৮২ ও ১৫, সিরাজগঞ্জে ১৮৪ ও ৩২, রংপুরে ১৭৩ ও ৩১, দিনাজপুরে ১৮১ ও ৩১, সাতক্ষীরায় ১২৭ ও ২২, কুষ্টিয়ায় ১১৯ ও ২১, ঝালকাঠিতে ৮৪ ও ৮, হবিগঞ্জে ১২০ ও ২১, মানিকগঞ্জে ৮৯ ও ১৬, গোপালগঞ্জে ৭৯ ও ১৪, শেরপুরে ৮৭ ও ১৫, চট্টগ্রামে ৪৪৯ ও ৭৯, কুমিল্লায় ৩১৫ ও ৫৬, লক্ষ্মীপুরে ১০২ ও ১৮, রাজশাহীতে ১৫৬ ও ২৮, গাইবান্ধায় ১৪৬ ও ২৬, পঞ্চগড়ে ৫৮ ও ১০, যশোরে ১৭০ ও ৩০, চুয়াডাঙ্গায় ৬৯ ও ১২, পিরোজপুরে ৭৬ ও ১৩, মৌলভীবাজারে ১১০ ও ২০, মুন্সীগঞ্জে ৮৮ ও ১৬, মাদারীপুরে ৭৭ ও ১৪, কিশোরগঞ্জে ১৭৬ ও ৩১, কক্সবাজারে ১২১ ও ২১, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৬৩ ও ২৯, বগুড়ায় ২০৭ ও ৩৭, নওগাঁয় ১৬৪ ও ২৯, লালমনিরহাটে ৭৬ ও ১৩, ঠাকুরগাঁওয়ে ৮৩ ও ১৫, ঝিনাইদহে ১০৮ ও ১৯, মেহেরপুরে ৪০ ও ৭, বরগুনায় ৫৮ ও ১০, সুনামগঞ্জে ১৩৭ ও ২৪, নারায়ণগঞ্জে ১৪৯ ও ২৬, রাজবাড়ীতে ৬৫ ও ১২, নেত্রকোনায় ১৩৬ ও ২৪, খাগড়াছড়িতে ৩৬ ও ৬, চাঁদপুরে ১৫৪ ও ২৭, জয়পুরহাটে ৫৯ ও ১০, নাটোরে ১০৪ ও ১৮, কুড়িগ্রামে ১২১ ও ২১, খুলনায় ১৬১ ও ২৯, মাগুরায় ৫৬ ও ১০, বরিশালে ১৬১ ও ২৯ এবং পটুয়াখালীতে ১০০ ও ১৮। নতুন নেয়া এই ১০ হাজার প্রার্থী প্রশিক্ষণ শেষ করার পর কনস্টেবল পদে চূড়ান্ত নিয়োগ পাবেন। একজন কনস্টেবল জাতীয় বেতন স্কেল ২০০৯ অনুযায়ী ৯ হাজার ৯৫ টাকা পাওয়ার কথা। এছাড়া দুই বছর শিক্ষানবিস কাল সফলভাবে শেষ করার পর চাকরি স্থায়ী হলে বিনা মূল্যে পোশাকসামগ্রী, ঝুঁকি ভাতা, চিকিৎসাসুবিধা, রেশনসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন।
স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছেন, শিগগিরই অর্থ ছাড় পাওয়া যাবে। ৫০ হাজার নতুন পুলিশ নেয়া সরকারের সিদ্ধান্ত। এর আলোকে সারা দেশ থেকে ১০ হাজার পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় এই ধাপে প্রয়োজনীয় অর্থ ছাড় দিলে দ্বিতীয় দফায় আরও নিয়োগ দেয়া হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
 

খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close