¦
সাঘাটায় পেট্রলবোমাসহ ৬ সন্ত্রাসী গ্রেফতার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০১ এপ্রিল ২০১৫

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার উল্যাবাজারে মঙ্গলবার এলাকার সন্ত্রাসী বলে চিহ্নিত জাহাঙ্গীর আলম শাহীনসহ তার ৫ সহযোগীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এ সময় তার বাড়ি থেকে ৪টি তাজা পেট্রলবোমা উদ্ধার করে। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সাঘাটার ভরতখালী উল্যাবাজারে শাহীনের নেতৃত্বে ২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে নানা অপকর্ম চালিয়ে আসছিল। সম্প্রতি শাহীনের সন্ত্রাসী বাহিনী ইউনিয়ন পরিষদের পুকুর, সিএনজি স্টান্ড, রেলওয়ে বাজারের কয়েকটি দোকান জবরদখলের চেষ্টা চালাচ্ছিল। মঙ্গলবার ওই সন্ত্রাসী দল একটি সরকারি পুকুর দখল করতে গেলে এলাকার মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে তাদের ধাওয়া করে। এ সময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে শাহীনের বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। বিক্ষুব্ধ কয়েকশ মানুষ শাহীনের বাড়ি ঘেরাও করে পুলিশকে খবর দেয়। সাঘাটা ও ফুলছড়ি থানার পুলিশ ছাড়াও গাইবান্ধা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে জাহাঙ্গীর আলম শাহীন, শরিফ মিয়া, আবু সাঈদ, ফারুক হোসেন, আবদুল জলিল ও খাজা মিয়াকে ওই বাড়িতে আটক করে। এ সময় তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ ৪টি পেট্রলবোমা উদ্ধার করে। বিক্ষুব্ধ জনতা সন্ত্রাসী শাহীনের বাড়ির একটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়। ভরতখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল আলম শিতল জানান, মৃত ব্রিটিশ আকবরের ছেলে শাহীনসহ তার ভাইয়েরা এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত। তারা দীর্ঘদিন ধরে সরকারি এবং ব্যক্তিগত জমি জবরদখল করে ভোগদখল করছিল। এছাড়া তারা নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত ছিল। এতে এলাকাবাসী তাদের ওপর বিক্ষুব্ধ ছিল।
এ ব্যাপারের সাঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জানান, শাহীনের নেতৃত্বে কয়েকটি স্থাপনা দখল করার সময় জনগণের কবল থেকে রক্ষা করতেই তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সময় তাদের বাড়ি থেকে ৪টি পেট্রলবোমা উদ্ধার করা হয়। তবে শাহীনের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে ঘটনাটি ষড়যন্ত্রমূলক।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close