¦
আসুন দেশ ও মানুষের উন্নয়নে কাজ করি

শিপন হাবীব | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

রাজধানীর গুলশানে রাষ্ট্রপতি সাহাবুদ্দীন পার্কের ভেতর ও পাশের রাস্তায় বাঁশির পোঁ-পোঁ আওয়াজ সকাল থেকেই টানা বাজছিল। বৈশাখী গানে মেতে উঠেছিল কচিকাঁচা থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষ। তারা বাঁশিতে ফুঁ দিচ্ছিলেন মনের সুখে। আর নাচছিলেন সুরের তালে তালে। এ পথচলাই যেন বাংলা নববর্ষের আনন্দ হয়ে এসেছিল মঙ্গলবার। এদিন পার্কটি পরিণত হয়েছিল আনন্দনগরে। দিনটি উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মন মাতানো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে গুলশান হেলথ ক্লাব।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও গুলশান হেলথ ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিল্পপতি নুরুল ইসলাম। ক্লাবের সভাপতি এমএ কাদের খানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান আলহাজ হারুন-উর-রশিদ, নোয়া ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান এটিএম এনায়েত উল্লাহ। উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সহ-সভাপতি নাজির মিয়া, আজমল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক পারভেজ আলম স্বপন ও সিনিয়র সদস্য মঞ্জুর আহমেদ। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সহ-সভাপতি রেজাউল করীম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছাসহ বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট হাতে তুলে দেন সভাপতি ও অতিথিরা। সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয় বিশেষ অতিথি হারুন-উর-রশিদকেও।
সকাল ৭টার মধ্যেই গুলশান হেলথ ক্লাবর সদস্যরা রাষ্ট্রপতি সাহাবুদ্দীন পার্কে হাজির হন। সঙ্গে পরিবারের সদস্যরাও। আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ক্লাবের সদস্য, পরিবারের সদস্য ছাড়াও পার্কের আশপাশে বসবাসকারী শত শত বাসিন্দা উপস্থিত হন। গুলশান এলাকায় থাকা বিদেশী তরুণ-তরুণীরাও উপস্থিত হয়েছিলেন অনুষ্ঠানে। তাদের পরনেও বৈশাখী সাজ, এ যেন এক হৃদয়ের ডাক। মাইকে একের পর এক গান বাজছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেই গান আরও তোড়েজোড়ে বাজল। প্রতিদিনের চির চেনা পার্কটি মুহূর্তেই যেন বদলে গেল।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও গুলশান হেলথ ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিল্পপতি নুরুল ইসলাম বলেন, পহেলা বৈশাখ বাংলার ঘরে আনন্দ বয়ে আনুক, প্রতিটি মানুষের জীবনকে রাঙিয়ে তুলুক। তিনি বলেন, আসুন অতীতের দুঃখ-কষ্ট ভুলে গিয়ে দেশ ও দেশের মানুষকে ভালোবাসার মধ্য দিয়ে অর্থনৈতিক উন্নয়ন করি। দেশের কল্যাণে কাজ করি। নিজেকে সাধারণ মানুষ ও একজন সাধারণ ব্যবসায়ী উল্লেখ করে নুরুল ইসলাম বলেন, মানুষকে পাড়তে হয়, ইচ্ছে শক্তি নিয়ে এগিয়ে যেতে হয়। তিনি বলেন, দেশ ও দেশের মানুষকে ভালোবেসেই আমি যমুনা গ্রুপ প্রতিষ্ঠিত করেছি। যমুনা ফিউচার পার্ক আজ বিশ্বব্যাপী সমৃদ্ধ। এই পার্কটি শুধু আমার নয়, এটি দেশের ১৬ কোটি মানুষের। আমি পার্কের মালিক নই, দেশের প্রতিটি মানুষ এ পার্কের মালিক। দেশের মানুষকে ভালোবেসেই আমি এ পার্কটি নির্মাণ করেছি, যেখানে একটি মানুষের প্রয়োজনীয় সব কিছুই রয়েছে। এখন এ পার্কে বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে ক্রেতা-বিক্রেতারা আসছেন। দেশের প্রতিটি মানুষকে যমুনা ফিউচার পার্কে আসার আহ্বান জানান তিনি। তার সঙ্গে নববর্ষের শুভেচ্ছাও।
যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বলেন, গুলশান হেলথ ক্লাব আমার প্রাণের ক্লাব। এ ক্লাবের উন্নয়নে যা যা প্রয়োজন আমরা তা করব। রাষ্ট্রপতি সাহাবুদ্দীন পার্কের ভেতর একটি আধুনিক জিমের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জিম আমি করে দেব, আপনারাও আমাকে সহযোগিতা করবেন। প্রয়োজনে ১ টাকা দিয়েও সহযোগিতা করবেন। যাতে কেউ না বলতে পারে আমি একাই এ জিমটি করে দিয়েছি, সবাই যেন বলতে পারি এ জিমটি আমরা করেছি। ক্লাব ও পার্কটিকে জীবনের মতোই ভালোবাসেন জানিয়ে তিনি বললেন, এ পার্ককে আমি অনেক ভালোবাসি, সকালে ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে দেখা না করে আপনাদের সঙ্গে দেখা হয় এ পার্কে। পার্কটিকে আমি পরিবারের মতোই ভালোবাসি। সবাই ভাইয়ের মতো কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এ পার্কের উন্নয়ন করব।
বিশেষ অতিথি আলহাজ হারুন-উর-রশিদ বলেন, এ ক্লাবে (গুলশান হেলথ ক্লাব) দেশের খ্যাতিমান শিল্পপতি প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে রয়েছেন। তিনি আমাদের শ্রদ্ধেয় বড় ভাই শিল্পপতি নুরুল ইসলাম। ক্লাবের মাধ্যমে গুলশানবাসীর জীবন উন্নয়ন উন্নীত হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ক্লাবের একজন হয়ে আমি গর্ববোধ করছি।
বিশেষ অতিথি এটিএম এনায়েত উল্লাহ বলেন, এ ক্লাবটির জন্যই গুলশানবাসী বিশেষ বিশেষ দিনে পরিবার-পরিজন নিয়ে আনন্দ উপভোগ করতে পারেন। এজন্য ক্লাবের সদস্যদের তিনি ধন্যবাদ জানান। ক্লাবের উন্নয়নে কাজ করারও প্রতিশ্র“তি দেন তিনি।
সভাপতির বক্তব্যে এমএ কাদের খান বলেন, গুলশান হেলথ ক্লাবের উদ্যোগে সাহাবুদ্দীন পার্কের উন্নয়ন হয়। যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম আজীবন এ ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে থাকবেন। তার পরামর্শেই পার্কের উন্নয়ন হবে, উন্নয়ন হবে ক্লাবটির।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ আলম স্বপন। তিনি বলেন, ক্লাবটিতে দেশের স্বনামধন্য বিশিষ্ট শিল্পপতি নুরুল ইসলাম প্রধান উপদেষ্টা থাকায় সব সদস্য গর্ববোধ করেন। এ ক্লাবের মাধ্যমে দেশের মানুষের কল্যাণেও কাজ করছেন এই শিল্পপতি। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম বাবু, মঞ্জুর আহমেদ, সোহাগ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
আলোচনা সভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নকুলকুমার বিশ্বাস, মৌটুসী ও শাহনাজ। শিল্পীরা একের পর এক জনপ্রিয় গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠান শেষে পান্তা-ইলিশসহ দেশীয় খাবার পরিবেশন করা হয়। একইসঙ্গে রাঙ্গামাটি থেকে আনা দুর্লভ গয়েল গরুর মাংস রান্না করে পোলাও-মাংস খাওয়ানো হয়।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close