¦
সিলেট সার্কিট হাউস মাদক ব্যবসার নিরাপদ স্পট

আবদুর রশিদ রেনু, সিলেট ব্যুরো | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

সিলেট সার্কিট হাউস মাদক ব্যবসার নিরাপদ স্পটে পরিণত হয়েছে। জেলা প্রশাসকের গাড়িচালকের নেতৃত্বে দীর্ঘ দিন ধরে সার্কিট হাউসে মাদকদ্রব্য রেখে ব্যবসা করা হচ্ছে। নিরাপদে মাদকদ্রব্য আনা-নেয়ার কাজেও ব্যবহার হচ্ছে জেলা প্রশাসনের সরকারি গাড়ি। মঙ্গলবার রাতে ৩৭৫ বোতল ফেনসিডিলসহ জেলা প্রশাসকের গাড়িচালককে গ্রেফতার করেন র‌্যাব-৯ এর সদস্যরা। গ্রেফতারকৃত চালকের নাম রুমন মিয়া। রুমন হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার হইতলা শাহাজিবাজার গ্রামের ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় র‌্যাব বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে এসএমপির শাহপরান থানায় মামলা দায়ের করেছে।
বুধবার ওই মামলায় গাড়িচালক রুমনকে গ্রেফতার দেখিয়ে পুলিশ আদালতে সোপর্দ করলে আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ফেনসিডিলসহ জেলা প্রশাসকের গাড়িচালক আটকের পর থেকেই নগরজুড়ে বিষয়টি টক অব দ্য সিটিতে পরিণত হয়। তবে জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম জানান, রুমন নিয়মিত গাড়িচালক নয়। সে চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী। তবে মাঝে মধ্যে গাড়ি চালায়। ফেনসিডিলসহ র‌্যাবের হাতে আটকের পর রাতেই তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। চালক রুমন ব্যক্তিগতভাবে এটা করতে পারে। তবে, ঢালাওভাবে তার (জেলা প্রশাসক) নাম প্রচার করায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে নগরীর শিবগঞ্জ এলাকা থেকে জেলা প্রশাসকের গাড়িতে করে মাদক পরিবহনের সময় সিলেট জেলা প্রশাসনের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী রুমন মিয়াকে আটক করে র‌্যাব। সে সার্কিট হাউসের জেলা প্রশাসকের স্টাফ কোয়ার্টারে থাকে।
রাতেই সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৯ এর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর হুমায়ুন কবীর বলেন, ৩৭৫ বোতল ফেনসিডিলসহ রুমনকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুমন র‌্যাবকে জানায়, সে দীর্ঘদিন ধরে ফেনসিডিল ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। নিরাপদে ফেনসিডিল আনা-নেয়া যায় বলে সুযোগ বুঝে সরকারি এ গাড়িটি (সিলেট-ঘ-১১-০২৫৭) ব্যবহার করে রুমন।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close