¦
বিধবাদের দায়িত্ব নেয়ার দাবি গণজাগরণ মঞ্চের

শেরপুর ও নালিতাবাড়ী প্রতিনিধি | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে নালিতাবাড়ী উপজেলার সোহাগপুর বিধবাপল্লীর বিধবা আর যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চের ঢাকার সদস্যরা হয়ে গেলেন একাত্মা। সরকারের কাছে দাবি জানালেন একাত্তরে স্বামীহারা বিধবাদের দায়িত্ব নেয়ার।
১৪ এপ্রিল মঙ্গলবার বাংলা নববর্ষের প্রথম দিনে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সোহাগপুর বিধবাপল্লীতে একান্তে সময় কাটালেন একাত্তরের স্বামীহারা বিধবা, শহীদ পরিবারের সন্তান আর গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে গণজাগরণ মঞ্চের শতাধিক সদস্য। একাত্তরের ২৫ জুলাই এ গ্রামে আলবদর নেতা, জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেলের নির্দেশে ১৮৭ জন পুরুষকে হত্যা করা হয়। বিধবা হন ১২০ জন নারী। ৪৪ বছর অপেক্ষার পর সেই কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় কার্যকর হয়েছে। দুপুর আড়াইটার দিকে সোহাগপুর শহীদ বেদিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও প্রার্থনার মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানমালা। চলে বিধবাদের সঙ্গে প্রাণ খোলা আলোচনা। চলে তাদের দুর্বিসহ জীবনের স্মৃতিচারণ। তখন এক আবেগাপ্লুত পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এ সময় ডা. ইমরান এইচ সরকার সোহাগপুর গ্রামটির দৈন্যদশা দেখে হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, স্বাধীনতা অর্জনের পরেই স্বাধীনতা যুদ্ধে ত্যাগ স্বীকার করা মানুষের দায়িত্ব নেয়া উচিত ছিল রাষ্ট্রের। এতদিন নেয়া হয়নি, এখন নিতে হবে। তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মাধ্যমে যে সব জেলা কলঙ্কমুক্ত করা হচ্ছে। সে সব জেলা, উপজেলা, গ্রামকে দারিদ্র্যমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক মডেল জেলা, উপজেলা, গ্রাম হিসেবে গড়ে তোলা হোক। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, সোহাগপুরের বিধবা মায়েরা আপনার সঙ্গে তাদের দুর্বিসহ জীবনের কথাগুলো বলে মরতে চান। আশা করি, আপনি তাদের এ ইচ্ছেটা পূরণ করবেন। পরে ইমরান এইচ সরকার ৩২ জন বিধবাকে নববর্ষের বিভিন্ন উপহারসামগ্রী প্রদান করেন।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close