¦
ফরিদপুরে গুম হওয়ার ৫ বছর পর জীবিত উদ্ধার

ফরিদপুর ব্যুরো | প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৫

ফরিদপুর থেকে গুম হওয়ার ৫ বছর পর পুলিশের হাতে ধরা পড়ল আহাদ শেখ নামের এক যুবক। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দুপুরে কোতোয়ালি থানা পুলিশ শহরের কোট চত্বর এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে। আহাদ শেখ নিখোঁজ হওয়ার পর তার বাবা-মা বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের নামে গুমসহ তিনটি মামলা করেছিল। বর্তমানে মামলাগুলো বিচারাধীন রয়েছে। নিখোঁজ আহাদ শেখ উদ্ধার হওয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মামলার আসামিরা। পুলিশ জানিয়েছে, প্রতিপক্ষকে হয়রানি করতেই আহাদ শেখ এতদিন পালিয়ে ছিল। মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট এলাকার রমজান আলীর রিকশা গ্যারেজে কাজ করত আহাদ শেখ। আহাদ রাজবাড়ী জেলার উদয়পুর গ্রামের ওহাব শেখের ছেলে। ২০১০ সালের ২৫ জুলাই আহাদ নিখোঁজ হয় এমন দাবি করে তার পরিবারের সদস্যরা। পরে আহাদের বাবা ওহাব শেখ গ্যারেজ মালিক রমজান, তার স্ত্রী আলেয়া বেগমকে আসামি করে একটি গুম মামলা করে। পরে আহাদ শেখের মা আসমা বেগম বাদী হয়ে রাজবাড়ী ১নং আমলি আদালতে আরও একটি মামলা করে। মামলায় উল্লেখ করা হয়, রমজানের গ্যারেজে কাজ করার সময় মালিকের মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে আহাদ। সে সম্পর্কের কথা জানতে পেরে গ্যারেজ মালিক ও তার স্ত্রী আহাদকে হত্যা করে গুম করে।
মামলার আসামি রমজান আলী জানান, আহাদ শেখের বাবা-মা লোভী প্রকৃতির। তারা ছেলেকে বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রেখে আমাদের সহায়সম্বল হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছিল। পুলিশ আহাদকে খুঁজে না পেলে তারা সারা জীবন জেলেই পচে মরতেন। গুম মামলা হওয়ার পর এখন আমি পথের ফকির হয়ে গেছি। সহায়সম্বল যা ছিল সবকিছুই বিক্রি করে মামলা চালাতে হয়েছে।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close