¦
বরগুনায় ১৫১টি স্কুল বন্ধ রেখে শিক্ষকদের বনভোজন

বরগুনা প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৬ মে ২০১৫

বরগুনার আমতলী উপজেলার ১৫১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় একযোগে বন্ধ রেখে মঙ্গলবার বনভোজনের আয়োজন করেছে শিক্ষক ও প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ। উপজেলার পানি উন্নয়ন বোর্ড সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত বনভোজনে অংশ নিয়েছে সব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা, রাজনৈতিক দলের নেতারা ও স্থানীয় সংসদ সদস্য। তবে শিক্ষার্থী এবং শিক্ষার উন্নয়নের দিকে তাকিয়ে যে কোনো বন্ধের দিনে বনভোজনটির আয়োজন করা উচিত ছিল বলে মনে করেন সচেতন নাগরিকরা।
আমতলী উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় মোট ১৫১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব বিদ্যালয়ের মোট ৭০৫ জন শিক্ষক ছুটি নিয়ে বনভোজনে অংশগ্রহণ করেছে। এছাড়াও বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম দেলোয়ার, পৌর মেয়র মো. মতিয়ার রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান (সংরক্ষিত) মোসা. মাকসুদা আক্তার জ্যোৎসনা, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তারা অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বনভোজনের ব্যয় হিসেবে প্রত্যেক শিক্ষক ১৫০ টাকা করে মোট ১ লাখ ৫ হাজার ৭৫০ টাকা দিয়েছে এবং বাকি খরচ বহন করেছে স্থানীয় রাজনৈতিক দলের নেতারা। সচেতন নাগরিকরা মনে করেন, কোনো সরকারি ছুটির দিনে এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হলে ভালো হতো।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার জ্যোতিশ চন্দ্র শীল এ ব্যাপারে বলেন, বিধি মোতাবেক প্রধান শিক্ষকদের হাতে বছরে দুদিন সংরক্ষিত ছুটি দেয়ার ক্ষমতা আছে। তাই সব শিক্ষক ওই দুদিন ছুটি দেয়ার আবেদন করেছিল। আমরা তাদের একদিনের ছুটি দেয়ার অনুমতি দিয়েছি।
বরগুনার জেলা প্রশাসক মীর জহুরুল ইসলাম বলেন, আমি সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পেরেছি, বছরে দুদিন ঐচ্ছিক ছুটি ভোগের বিধি রয়েছে। সে মোতাবেক একদিন ছুটি ভোগের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ অনুষ্ঠানে আয়োজন করা হয়েছে। বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু জানান, শিক্ষকদের বিনোদন ও শিক্ষার মানোন্নয়নেই সরকারি বিধি মোতাবেক ছুটি নিয়ে এ অনুষ্ঠান করা হয়েছে।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close