¦
ক্ষমতায় এলে মসজিদের বিদ্যুৎ বিল দিতে হবে না : এরশাদ

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৯ মে ২০১৫

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশ আজ অনিবার্য সংঘাত আর রক্তপাতের দিকে এগিয়ে চলছে। জাতি এই সংঘাত ও রক্তপাত থেকে মুক্তি চায়। জাতীয় পার্টির শাসন আমলে দেশের সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ ও পানির বিল মওকুফ ছিল। ফের ক্ষমতায় গেলে মসজিদসহ কোনো ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ বিল দিতে হবে না। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ক্ষমতায় থাকার আর যাওয়ার লড়াইয়ে দেশবাসী আজ দিশেহারা মন্তব্য করে এরশাদ বলেন, দুটি দল দেশ আর জাতিকে জিম্মি করে ক্ষমতা চায়। আমি যখন ক্ষমতায় ছিলাম, শুধু রক্তপাত এড়াতে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিলাম। জাতীয় পার্টি সংঘাত চায় না। আমরা রক্তপাতে বিশ্বাস করি না। জনগণই আমাদের শক্তি। তিনি বলেন, এ দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম আমি ঘোষণা করেছিলাম। আল্লাহ ও ইসলাম আমাদের সম্বল। তিনি নাস্তিক ও মুরতাদমুক্ত দেশ গড়ার আহ্বান জানান। শুক্রবার বিকাল ৩টায় মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের জামিআ ইসলামিয়া হালিমিয়া মধুপুর মাদ্রাসায় খতমে বুখারি শরিফ বিশেষ দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক মাওলানা আবদুল হামিদের (পীর সাহেব মধুপুর) সভাপতিত্বে মাহফিলে বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির সাবেক মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম তালুকদার এমপি, আল মুসলিম গ্র“পের চেয়ারম্যান শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লা, এশিয়ান গ্র“পের চেয়ারম্যান হারুনূর রশিদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট বখতিয়ার উদ্দিন খান ইকবাল, জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কুতুবদ্দিন আহম্মেদ আবুল বাতেন, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবদুল লতিব হাওলাদার, উপজেলা সম্পাদক আবদুল হাকিম হাওলাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ওমর আলী (জাবেদ ওমর) প্রমুখ।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close