¦
সারা দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র ধর্মঘট পালিত

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশ : ১৩ মে ২০১৫

পহেলা বৈশাখে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে নারী লাঞ্ছনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার, বিচার ও চলমান আন্দোলনে পুলিশের বর্বর হামলার বিচার, ঢাবি প্রক্টরের অপসারণসহ পাঁচ দফা দাবিতে দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মঘট পালিত হয়েছে। প্রগতিশীল ছাত্র জোট এবং সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্যের ডাকে মঙ্গলবার ধর্মঘট কর্মসূচি পালিত হয়। ধর্মঘট থেকে আগামী ১৯ মের মধ্যে পাঁচ দফা দাবি মেনে না নিলে ২০ মে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের ঘোষণা দেয় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।
কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মঘট পালিত হয়। সকাল থেকেই ধর্মঘট আহুত দুই জোটের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেয়। তালা মেরে দেয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন, কার্জন হল, লেকচার থিয়েটার, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি ভবনে। পাশাপাশি এসব ভবনের সামনে চলে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। পরে অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ আলীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ রেজিস্ট্রার, বাণিজ্য অনুষদ ও কলাভবনের তালা ভাঙে ফেলেন। তবে ধর্মঘটে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশিরভাগ বিভাগেই কোনো ক্লাস-পরীক্ষা হয়নি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, ইডেন কলেজ, রংপুর কারমাইকেল কলেজ, বগুড়া আজিজুল হক কলেজসহ দেশের বেশিরভাগ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত ক্লাস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি বলে জানা যায়।
ধর্মঘট পালন শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করে ধর্মঘট আহ্বানকারীরা। এতে বক্তব্য দেন, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি হাসান তারেক। উপস্থিত ছিলেন- সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি সাইফুজ্জামান সাকন, সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্যের সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি এমএম পারভেজ লেলিন, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি সৈকত মল্লিক, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাবিব রুমন, বাংলাদেশের ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল মাহমুদ, ছাত্র গণমঞ্চের আহ্বায়ক শান্তনু সুমন, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ফয়সাল রহমান, বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলনের আহ্বায়ক বিপ্লব ভট্টাচার্য, ছাত্র ঐক্য ফোরামের আর্নিকা তাসমীম মিতু, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক স্নেহাদ্রি চক্রবর্তী রিন্টু প্রমুখ। হাসান তারেক বলেন, সারা দেশে ধর্মঘট সফল করতে গিয়ে ছাত্রলীগের হামলায় অনেক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। অবিলম্বে এসব হামলায় জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। তিনি জানান, হামলায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার দফতর সম্পাদক প্রসেনজিৎ সরকার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কৃষ্ণ বর্মণ, সহসম্পাদক শমিত ভৌমিক ও সদস্য অনিমেষ রায় আহত হন। আরও আহত হন- খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) শাখা ছাত্র ফ্রন্টের আহ্বায়ক সুজয় চৌধুরী সাম্য, চট্টগ্রামের চন্দনাইশে বরকল এস জেড হাই স্কুলে ধর্মঘটের কর্মসূচি পালনকালে আওয়ামী লীগ নেতা ফরহাদের নেতৃত্বে হামলায় আহত হয় ছাত্র ইউনিয়ন থানা কমিটির সভাপতি শ্রীকান্ত বৈদ্য ও সাধারণ সম্পাদক অনুপ চক্রবর্ত্তীসহ কয়েকজন।
সংবাদ সম্মেলন থেকে পরবর্তী আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- আগামী ১৬ মে শনিবার শাহবাগে ছাত্র-শিক্ষক-অভিভাবক-জনতার সংহতি সমাবেশ। ১৯ মের মধ্যে দাবি মেনে না নিলে আগামী ২০ মে বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সকাল ১১টায় সমাবেশ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
টিএসসিতে পাল্টা আঘাত কর্মসূচি : এদিকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ কর্মসূচিতে পুলিশ হামলা এবং ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে পাল্টা আঘত কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন। এতে দেশের ৩০১টি সংগঠন সংহতি প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছে ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লাকী আক্তার। পাল্টা আঘাত শীর্ষক প্রতিবাদ সমাবেশে সংহতি জ্ঞাপন করেন, নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ, ঢাবি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এমএম আকাশ, অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ, ঢাবি শিক্ষক তানজীম উদ্দিন খান, ড. কাজী রকিবুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট শেখ আখতারুল ইসলাম, মোখলেছুর রহমান প্রমুখ। এছাড়া ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন।
শাহবাগে প্রতিবাদ : এছাড়া পহেলা বৈশাখে টিএসসিতে সংগঠিত যৌনসন্ত্রাস পরিচালনাকারীদের গ্রেফতার ও ১০ মে ছাত্র ইউনিয়নের ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের হামলার প্রতিবাদে এবং দোষী পুলিশ কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে লেখক-শিক্ষক-শিল্পী-সংস্কৃতিকর্মী-পেশাজীবী-রাজনৈতিক কর্মীদের উদ্যোগে একটি প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ইতিহাসবিদ অধ্যাপক আহমেদ কামাল এতে সভাপতিত্ব করেন।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close