jugantor
মাতারবাড়িতে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সিঙ্গাপুরের সঙ্গে চুক্তি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের যৌথ মালিকানায় কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে কয়লাভিত্তিক ৭শ’ মেগাওয়াটের দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সমঝোতা সই হয়েছে। রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে বুধবার দুপুরে বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি ও সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজ লিমিটেডের মধ্যে এ সমঝোতা চুক্তি সই হয়। কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির এমডি মো. আবুল কাশেম ও সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজের পক্ষে সংস্থাটির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট টান চেং গুয়ান চুক্তিতে সই করেন। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণের ৫০ শতাংশ অর্থায়ন করবে সিঙ্গাপুর এবং বাকি ৫০ শতাংশ অর্থায়ন করবে বাংলাদেশ। এর মালিকানায়ও থাকবে দু’দেশের সমান অধিকার। ২০২২ সালে কয়লাভিত্তিক এ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি উৎপাদনে যাবে বলে চুক্তি অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজের প্রেসিডেন্ট ও সিইও ট্যাং কিন ফেই, ইন্টারন্যাশনাল এন্টারপ্রাইজ সিঙ্গাপুরের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার চুয়া টেইক হিম, বাংলাদেশে নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রদূত চ্যান রেং উইং, বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) চেয়ারম্যান ড. মাকসুদুল হাসান ও বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. কায়কাউস।



সাবমিট

মাতারবাড়িতে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সিঙ্গাপুরের সঙ্গে চুক্তি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের যৌথ মালিকানায় কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে কয়লাভিত্তিক ৭শ’ মেগাওয়াটের দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সমঝোতা সই হয়েছে। রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে বুধবার দুপুরে বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি ও সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজ লিমিটেডের মধ্যে এ সমঝোতা চুক্তি সই হয়। কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির এমডি মো. আবুল কাশেম ও সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজের পক্ষে সংস্থাটির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট টান চেং গুয়ান চুক্তিতে সই করেন। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণের ৫০ শতাংশ অর্থায়ন করবে সিঙ্গাপুর এবং বাকি ৫০ শতাংশ অর্থায়ন করবে বাংলাদেশ। এর মালিকানায়ও থাকবে দু’দেশের সমান অধিকার। ২০২২ সালে কয়লাভিত্তিক এ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি উৎপাদনে যাবে বলে চুক্তি অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেমবেকোর্প ইউটিলিটিজের প্রেসিডেন্ট ও সিইও ট্যাং কিন ফেই, ইন্টারন্যাশনাল এন্টারপ্রাইজ সিঙ্গাপুরের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার চুয়া টেইক হিম, বাংলাদেশে নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রদূত চ্যান রেং উইং, বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) চেয়ারম্যান ড. মাকসুদুল হাসান ও বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. কায়কাউস।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র