¦
‘মেয়র পদে ১৫ নারী’ লড়াই করেই বদলাতে হবে শ্রেণী ভারসাম্য

শিপন হাবীব | প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৫

শিয়রে কড়া নাড়ছে পৌরসভা নির্বাচন। এরই মধ্যে সমাজের নতুন নতুন অংশের মানুষের সমর্থন কুড়িয়ে আনার তাগিদ নিয়ে দেশের ১৫টি পৌরসভায় মেয়র পদে লড়ছেন ১৫ নারী প্রার্থী। আওয়ামী লীগ-বিএনপি ছাড়াও আরও কয়েকটি রাজনৈতিক দল থেকে নির্বাচন করছেন তারা। জনপ্রতিনিধিত্বের লড়াইয়ে তারা শামিল, পাড়া-মহল্লার চেনা মুখ এখন মানুষের দরজায় নির্বাচনী প্রতীক হাতে নিয়ে। কেউ বা এলাকাতেই শিক্ষিত, সংস্কৃতিসম্পন্ন, পরিচিতিতে সম্মানিত, কেউ বা দিনে-রাতে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বাস্তব অভিজ্ঞতায় জনপ্রিয়। কেউ বা আবার খুব গরিব পরিবার থেকে উঠে এসে পৌরসভা পরিচালনার নেতৃত্ব গ্রহণে উদ্যোগী হয়েছেন। পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার বিরুদ্ধে এসব নারী প্রার্থীর প্রত্যয়ী সংগ্রাম আজ গোটা দেশের অনেক তরুণী, মহিলাদের কাছেই গভীর প্রেরণার সমান। যেন আলোর পথে আলোর দিশা...।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশের ১৫টি পৌরসভায় সরাসরি ১৫ জন নারী মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যাদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ৬ জন, বিএনপির ১ জন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) ৫ জন ও ৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে লড়ছেন। দিনে-রাতে প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন এসব নারী প্রার্থীও। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও গণস্বাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী রাশেদা কে চৌধুরী জানান, নারীরা আজ সাহসিকতার সঙ্গে নির্বাচন করছেন, এ জন্য তারা নিশ্চয় প্রশংসার দাবিদার। যেসব দল নারীদের মনোনয়ন দিয়েছে সেসব দলও প্রশংসার দাবিদার। নির্বাচনে পেশিশক্তি, টাকা, ক্ষমতা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড তথা দলীয় কোন্দল না থাকলে আরও নারীরা এসব নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। পৌর নির্বাচনে নারী প্রার্থী দেয়া না দেয়া বিষয়ে বিএনপির ভাইন্স চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী সেলিমা রহমান মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদনকে জানান, ‘আমরা কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনে শাহনাজ আক্তারকে মনোনয়ন দিয়েছি। সারা দেশে আরও পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী হিসেবে নারীদের দিতে পারতাম। কিন্তু বর্তমান সরকারের দমন-পীড়ন নীতির জন্য অনেক সাহসী ও জনপ্রিয় নারী নেত্রীদের নামে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। বিভিন্ন উপজেলায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অনেক নারী ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন, মামলার জন্য সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, সংরক্ষিত আসনে বহু নারী প্রার্থী দেয়া হয়েছে।
কুমিল্লা লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন শাহনাজ আক্তার। লাকসাম পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও বিএনপি নেতা মফিজুর রহমান অসুস্থ থাকায় দলের কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে শাহনাজ আক্তারকে মনোনয়ন দেয়া হয়। পৌর নির্বাচনে বিএনপি শুধুমাত্র লাকসাম পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী হিসেবে একজন নারীকে মনোনয়ন দিয়েছেন। শাহনাজ আক্তার লাকসাম পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি হুমায়ুন কবীর পারভেজের স্ত্রী। হুমায়ুন কবীর পারভেজ ২০১৩ সালের ২৭ নভেম্বর নিখোঁজ হন। আজও তার খোঁজ মেলেনি।
নাটোরে আওয়ামী লীগের সমর্থন পেয়েছেন দলের জেলা কমিটির সহসভাপতি উমা চৌধুরী। তিনি যুগান্তরকে জানান, তার বাবা প্রবীণ রাজনীতিবিদ শংকর গোবিন্দ চৌধুরী। আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি ও জেলা গভর্নর শংকর গোবিন্দ চৌধুরীর ১৯৯৩ সালে মৃত্যু হয়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। কেন্দ্রের নির্দেশে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা তার নির্বাচনে কাজ করছেন। বর্তমান মেয়র পদে পদে দুর্নীতি করেছেন। পৌরসভায় কর্মরত অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন পর্যন্ত পরিশোধ করা হয়নি। নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস জানান, দল থেকে যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।
ঠাকুরগাঁওয়ে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক তাহমিনা আক্তার। বর্তমান মেয়র জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এএসএম মঈন এবার মনোনয়ন পাননি। কেন্দ্র থেকে তাহমিনা আক্তারকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। বিএনপি থেকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের ভাই মির্জা ফয়সাল আমীন। পঞ্চগড়ে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকিয়া খাতুন। তৃণমূল থেকে জেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক সারওয়ার হোসেনকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে কেন্দ্রে কাগজপত্র পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্র থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় জাকিয়া খাতুনের পক্ষে। জাকিয়া খাতুন স্থানীয় ড. আবিদা হাফিজ উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজির শিক্ষক।
নড়াইল কালিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচন করছেন জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেলী পারভীন। মঙ্গলবার বিকালে সোহেলী পারভীন এ প্রতিবেদককে জানান, দল থেকে তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি। তিনি ২ বার মহিলা কাউন্সিলর ছিলেন। তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছেন।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মহিলাবিষয়ক সম্পাদক সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা জানান, অনেক জায়গায় যোগ্যতানুসারে বর্তমান মেয়রকে বাদ রেখে নারী প্রার্থী দেয়া হয়েছে। যারা দলের নির্দেশনা না মেনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন তাদের বিরুদ্ধে দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
কুষ্টিয়ার মিরপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন নাসরিন ফেরদৌস। নাসরিন ফেরদৌস স্থানীয় বিএনপির একজন নেত্রী। তাছাড়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলামের স্ত্রী তিনি। নাসরিন ফেরদৌস যুগান্তরকে জানান, দল থেকে তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি, তাতে তিনি হতাশও হননি। কারণ যোগ্য প্রার্থী দেখেই ভোট দেন ভোটারা। এছাড়া নাটোরের গোলাপপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন রোকসানা মোর্তজা। নারায়ণগঞ্জের তারাবতে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন সংসদ সদস্য গাজী গোলাম দস্তগীরের স্ত্রী হাসিনা গাজী, পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় এনপিপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন শিক্ষিকা রাবেয়া খাতুন। এছাড়া এ দলের পক্ষে আলমডাঙ্গায় রোকসানা পারভীন, শায়েস্তাগঞ্জে খালেদা বেগম ও বদরগঞ্জে শামীমা বেগম।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close