¦

এইমাত্র পাওয়া

  • হালনাগাদ ভোটার তালিকার খসড়া প্রকাশ; নতুন ভোটার ৪৩ লাখ ৬৮ হাজার ৪৭ জন
শিক্ষার মান নিয়ে প্রশ্ন তুললেন প্রধান বিচারপতি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৬

দেশের শিক্ষা-ব্যবস্থার মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে জগন্নাথ হল অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ প্রশ্ন তোলেন। প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘এই সর্বোচ্চ ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে দাঁড়িয়ে দু’একটি কথা বলতে চাই। আমাদের এই যে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ। সেখানে শিক্ষক-ছাত্র-কর্মচারী প্রত্যেকের সর্বত্র অবক্ষয় দেখা যাচ্ছে। শিক্ষার কী মান ছিল, আজকে আমরা কোথায় চলে যাচ্ছি? আমরা এরকম একটা প্রতিষ্ঠানকে কী রক্ষা করতে পারব?’
অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কানুতোষ মজুমদারের সভাপতিত্বে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আআমস আরেফিন সিদ্দিক, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, অধ্যাপক অজয় রায়, আওয়ামী লীগ নেতা অসীম কুমার উকিল, বিএনপির নেতা নিতাই রায় চৌধুরী, সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথ, জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অসীম সরকার প্রমুখ। অনুষ্ঠানে জগন্নাথ হলের বিভিন্ন ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থীরা পরিবার-পরিজন নিয়ে যোগ দেন। পুনর্মিলনীর প্রথম পর্বে আলোচনা সভা এবং দ্বিতীয় পর্বে সংগীতানুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনায় প্রধান বিচারপতি বলেন, আমরা শিক্ষাকে একটা ব্যবসায় পরিণত করেছি। এ প্রতিষ্ঠানটি একটি মহান বিদ্যাপীঠ। আমরা মহান বিদ্যাপীঠের অনারেবল (সম্মানীত) শিক্ষক যারা, এ শিক্ষকেরা এখন নিজ প্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেয়ার চেয়ে প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে ক্লাস নেয়ার জন্য ঝুঁকে যান। আমার এই কথা শুনলে অনেকে অখুশি হবেন। কারণ যখন দেখি একটি ছেলে বা মেয়ে এই প্রতিষ্ঠান থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে আইন পেশায় যায়, তখন তাকে একটার বেশি দুটি প্রশ্ন করলে মুখ থেকে কোনো কথা বের হয় না। খুবই কষ্ট লাগে। দেশের প্রতিটি আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ হলের যেসব শিক্ষার্থীর রক্ত ঝরেছে, তাদের প্রতিও শ্রদ্ধা জানান তিনি।
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত শত্রু সম্পত্তি আইন নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, খালি মুখে অসাম্প্রদায়িক আর কাজে অন্য কিছু করলে তো চলবে না। এই জায়গায় আরও সততা, আরও নিষ্ঠা, আরও বেশি মনোযোগী হতে হবে। তিনি বলেন, বলতে বলতে বলা শেষ হয়েছে। এখন রাস্তায় নামতে হবে। নামতে চাই।
খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close