¦
রুক্ষতা থেকে মুক্তি পেতে

| প্রকাশ : ০৩ মার্চ ২০১৫

ত্বক ভালো রাখতে চাইলে দরকার নিয়মিত ত্বকের পরিচর্যা। বিশেষ করে গরমের এ সময়টাতে ত্বকের যত্ন না নিলে এর উজ্জ্বলতা কমে ত্বক বিবর্ণ হয়ে যায়। আর এজন্য দরকার বাড়তি যত্নের। তাই ঘরোয়াভাবে নিয়মিতভাবে ক্লিনজার, স্ক্রাবিং এবং এরপর প্যাক ব্যবহার করেন তাহলে ত্বক তার হারানো লাবণ্য ফিরে পাবে। আর সেই সঙ্গে ত্বকের উজ্জ্বলতাও বেড়ে যাবে।
প্রাকৃতিক ক্লিনজার
স্বাভাবিক ত্বক : পরিমাণমতো কাঁচা দুধ ও চালের গুঁড়া ভালো করে মিশিয়ে প্রাকৃতিক ক্লিনজার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।
তৈলাক্ত ত্বক : মধু ও লেবুর রস সমপরিমাণে মিশিয়ে ক্লিনজার হিসেবে ব্যবহার করলে অনেক উপকৃত হবেন। এতে করে ত্বকের তৈলাক্তভাব কমে গিয়ে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।
শুষ্ক ত্বক : ত্বক যদি বেশি শুষ্ক হয় তাহলে সকালে-বিকালে দুধের সর এবং কাঁচা হলুদের পেস্ট ভালো করে মিশিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে নিলে উপকার পাবেন।
প্রাকৃতিক স্ক্রাবার
তৈলাক্ত ত্বক : ত্বককে লাবণ্য ও দীপ্তিময় করে তুলতে স্ক্রাবারের জুড়ি নেই। ত্বকের মরা কোষ এবং এর ভেতরে জমে থাকা ময়লা দূর করতে স্ক্রাব ব্যবহার করতে পারেন। তবে কোন ত্বকে কী ধরনের স্ক্রাবার ব্যবহার করবেন সেটা আগে জেনে নিতে হবে। তাই যারা তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারী তাদের ক্ষেত্রে মুগডাল বাটা, কাঁচা দুধ ও সামান্য পরিমাণে লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে প্রাকৃতিক স্ক্রাব ব্যবহার করতে পারেন। ৫ মিনিট সার্কুলার মুভমেন্টে ম্যাসাজ করে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।
শুষ্ক ত্বক : শীতের কনকনে ঠাণ্ডা হাওয়া শেষ। কিন্তু এর ফলে ময়েশ্চারের অভাবে ত্বকের এখন প্রাণ যায় যায় অবস্থা। ক্রমাগত ত্বক শুষ্ক হতে হতে বিবর্ণ হয়ে যাচ্ছে। যা অস্বস্তিকর তো বটেই, দৃষ্টিকটুও। তাই এ সময় ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে একটু বাড়তি যত্নের প্রয়োজন। আর তাই ঘন দুধ ও চালের গুঁড়া ভালো করে মিশিয়ে স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করলে উপকার পাবেন তো বেটেই সেই সঙ্গে ত্বক হয়ে উঠবে আরও মসৃণ ও কোমল।
স্বাভাবিক ত্বক : কমলা লেবুর খোসা, চালের গুঁড়া ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে স্ক্রাব তৈরি করে সার্কুলার মুভমেন্টে ম্যাসাজ করে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এরপর ত্বক অনুযায়ী প্যাক লাগালে সেটা হবে আপনার ত্বকের জন্য আরও বেশি উপকারী।
প্যাক : এক (তৈলাক্ত ত্বক) : ডিমের সাদা অংশ, শসার রস, আপেল পেস্ট এক টেবিল চামচ এবং বেসন এক টেবিল চামচ ভালো করে মিশিয়ে ১৫-২০ মিনিট মুখে লাগিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।
প্যাক : ২ (শুষ্ক ত্বক) : কয়েকটা কাজু বাদাম দুধে ভিজিয়ে পেস্ট করে মুখে লাগালে খুব উপকার পাবেন। এটা ২০ মিনিট রাখার পর ধুয়ে ফেলতে হবে।
প্যাক : ৩ (স্বাভাবিক ত্বক) : এক টেবিল চামচ টক দই, এক চা চামচ ডিমের কুসুম, এক চা চামচ ফ্রেশ ক্রিম ভালোভাবে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিয়ে মুখে লাগালে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।
ময়েশ্চারাইজার
শুষ্ক ত্বক : গোলাপের পাপড়ি এক টেবিল চামচ, খেজুর দুইটা দুধে ভিজিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিয়ে ত্বকে লাগালে ভালো ময়েশ্চারাইজারের কাজ করবে।
স্বাভাবিক ত্বক : চন্দন কাঠ দুধে ভিজিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এর থেকে যে ক্রিম বের হবে সেটা ত্বকে লাগালে উপকার পাবেন। এটা স্বাভাবিক ত্বকের জন্য ভালো ময়েশ্চারাইজারের কাজ করবে।
তৈলাক্ত ত্বক : পাকাকলা ভালো করে পেস্ট করে এর সঙ্গে চার ভাগের এক ভাগ ক্রিম এবং মুলতানি মাটি এক টেবিল চামচ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগাতে পারেন।
শুধু মুখের যত্ন নিলে সেই সঙ্গে শরীরের যত্ন নিতে হবে প্রতিদিন। আর রূপচর্চার পাশাপাশি খাদ্যের প্রতি সচেতন থাকুন। তাহলেই সারা বছর আপনার ত্বক থাকবে সুস্থ, কোমল ও মসৃণ।
 

ঘরে বাইরে পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close