¦
বন্দরে আলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ

বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

বন্দরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের মহিলাসহ ১১ জন আহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশের গাড়িসহ ২০টি অটোরিকশা ও একটি অফিসে ভাংচুর এবং দুটি দোকানে লুটপাট করা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে বন্দর ১নং খেয়াঘাটে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতরা হল : রাজু, রুবেল, রহিম, জাহিদ, নিলুফা, পাখি, পিউশি, মিন্টু, জামান, বাসু ও নাঈম। সংঘর্ষে জড়িত থাকায় পুলিশ উভয় পক্ষের ৪ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হল : সাজু, মোস্তাফিজ, তাওলাদ ও তপন। এ ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেবিস্ট্যান্ডে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বন্দর পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী জহির ও বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খান মাসুদ গ্র“পের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষের সময় হামলাকারীরা বন্দর ১নং খেয়াঘাট স্ট্যান্ডে থাকা প্রায় ২০টি অটোরিকশা ভাংচুর করে। এ সময় তারা কল্পনা খান মাকের্টের দুটি দোকান ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ ব্যাপারে বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খান মাসুদ বলেন, কাজী জহির আকস্মিকভাবে দলবল নিয়ে আমার অফিসে হামলা চালায়। তারা অটোরিকশা স্ট্যান্ডে ব্যাপক ভাংচুর, মনসুর মিয়ার ডিমের দোকান ও সাচ্চু মিয়ার পার্টসের দোকানে লুটপাট চালায়। এ ব্যাপারে বন্দর পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী জহির বলেন, খান মাসুদের নেতৃত্বে অটোরিকশা স্ট্যান্ডে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা চলছিল। আমরা বাধা দিলে তারা আমাদের ওপর হামলা চালায় এবং আমার ব্যবসায়ী পার্টনার বাসু মিয়ার বাড়ি ভাংচুর করে এবং আমাদের লোকজনকে কুপিয়ে জখম করে।
বন্দর খেয়াঘাট অটোরিকশা স্ট্যান্ডের চালকরা বলেন, দুগ্রুপের মধ্যে পূর্ব রেশারেশির জের ধরে সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় তারা আমাদের অটোরিকশা ভাংচুর করেছে। কি অপরাধ আমাদের? আমরা এর সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার চাই।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close