¦
ফতুল্লায় যুবদল নেতা হত্যা মামলায় যুবলীগ সম্পাদকসহ ১৭ জন খালাস

ফতুল্লা প্রতিনিধি | প্রকাশ : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

সাক্ষ্য-প্রমাণ না পাওয়ায় ফতুল্লার কুতুবপুরে চাঞ্চল্যকর যুবদল নেতা করিম হত্যা মামলায় বেকসুর খালাস পেয়েছেন ফতুল্লা থানা যুবলীগের সেক্রেটারিসহ ১৭ আসামি। সোমবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক মিয়াজী শহিদুল আলম চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। খালাসপ্রাপ্তদের মধ্যে ২ জন বিচার চলাকালীন সময়ে মারা গেছেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জিয়াসমিন আক্তার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আদালত সূত্র জানান, রায়ে বিচারক উল্লেখ করেন পর্যাপ্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ দ্বারা রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারায় আসামিদের সবাইকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। খালাসপ্রাপ্তরা হল- ফতুল্লা থানা যুবলীগের সেক্রেটারি ফায়জুল ইসলাম, সস্তাপুরের মজিবুর, যুবদল নেতা বেলায়েত হোসেন লাভলু, মনসুর আলীর ৩ ছেলে মোস্তফা, মুসলিম ও মোক্তার হোসেন, ফজল হক (আততায়ীর গুলিতে নিহত), ফুলচান, আকরাম (মৃত), সন্তাপুরের খসরু ওরফে খুসু, আকবর আলী ওরফে আরব আলী, সিরাজুল, মিন্টু, নুরু মিয়া, ইবু ও সাত্তার।
রাজনৈতিক ও স্থানীয় একটি কারখানার ওয়েস্টিজ নিয়ে বিরোধের জের ধরে ২০০১ সালের ২৯ নভেম্বর বিকালে ফতুল্লার কুতুবপুর মসজিদের সামনে আসামিরা ২টি মাইক্রোবাসযোগে এসে প্রকাশ্যে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে আবদুল করিমকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে নিহতের মা কদ বানু বাদি হয়ে ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে ২০০৩ সালের ২৫ এপ্রিল মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ওমর ফারুক যুবদল নেতা বেলায়েত হোসেন লাভলুর নাম অন্তর্ভুক্ত করে ২৯ জনকে সাক্ষী দেখিয়ে ১৭ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। আসামিদের মধ্যে মজিবুর ও খুসু ফতুল্লার আরও একটি চাঞ্চল্যকর দয়াল হত্যা মামলার আসামি ছিল। দয়ালকেও করিমের ন্যায় একই কায়দায় হত্যা করা হয়েছিল। পরে ওই মামলায়ও তারা খালাস পায়।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close