¦
১৯ লাখ টন জ্বালানি তেল আমদানি হবে

যুগান্তর রিপোর্ট | প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

চলতি বছরে প্রায় ১৯ লাখ মেট্রিক টন জ্বালানি তেল আমদানি করা হবে। কুয়েত, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, চীন, ভিয়েতনাম, ব্র“নাই, ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্ক থেকে এ তেল আনা হবে। এর জন্য ব্যয় হবে প্রায় সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকা। বুধবার সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে তেল আমদানির এ অনুমোদন দেয়া হয়। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে ওই বৈঠকে মোট ১৯টি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। সময় স্বল্পতায় ১৫টি প্রস্তাব পর্যালোচনার মাধ্যমে অনুমোদনের সুপারিশ করা হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তেল আমদানি ছাড়াও ৫০ হাজার টন করে দুটি লটে ১ লাখ টন গম আমদানির দুটি প্রস্তাব, রাষ্ট্রীয় চুক্তির আওতায় চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দরের মাধ্যমে ৫ লাখ টন বাল্ক সার আমদানির জন্য ১৭১ কোটি ৮২ লাখ টাকা ব্যয়ে রিসিভার্স ও পরিবহন এজেন্ট নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমিরাত ন্যাশনাল অয়েল কোম্পানি থেকে ৯০ হাজার টন গ্যাস অয়েল ও ৮০ হাজার টন ফার্নেস অয়েলসহ মোট ১ লাখ ৭০ হাজার টন জ্বালানি আমদানি করা হবে। এ কোম্পানিকে সরকারের পরিশোধ করতে হবে ৬১১ কোটি টাকা। ফার্নেস অয়েলের জন্য ব্যারেল প্রতি ২৯.৯৫ ডলার ও গ্যাস অয়েলে ৪.৬০ ডলার প্রিমিয়াম ধরা হয়। মোস্তাফিজুর রহমান জানান, কুয়েত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (কেপিসি) থেকে ৬ লাখ ৬০ হাজার টন জ্বালানি কেনার প্রস্তাব দেয়া হয়। এ জন্য কেপিসিকে ২ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হবে। ব্র“নাইয়ের রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি পিবি ট্রেডিং থেকে ৬০ হাজার টন গ্যাস অয়েল ও ২০ হাজার টন ফার্নেস অয়েল আমদানি করা হবে। এ খাতে ব্যয় হবে ৩০৯ কোটি টাকা। মালয়েশিয়ার পেটকো ট্রেডিং লুবনান কোম্পানি থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার টন তেল কেনার প্রস্তাব দেয়া হয়। এ জন্য ব্যয় হবে ১ হাজার ৬৫৭ কোটি টাকা।
এছাড়া গণচীনের পেট্রোচায়না ইন্টারন্যাশনাল থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার টন জ্বালানি কেনা হবে। এ খাতে ব্যয় হবে ৪৯৩ কোটি টাকা। ভিয়েতনামের পেট্রোলিমেক্স সিঙ্গাপুর থেকে ৬০ হাজার মেট্রিক টন ফার্নেস অয়েল ও ৩০ হাজার টন গ্যাস অয়েল আমদানি করা হবে। এ খাতে মোট ব্যয় হবে ৩০২ কোটি টাকা। ইন্দোনেশিয়ার পিটি ভূমি সিয়াক পুসাকো থেকে ৩০ হাজার টন গ্যাস অয়েল ও ৪০ হাজার টন ফার্নেস অয়েল আমদানি করা হবে। এ খাতে সরকারের ব্যয় হবে ২৪৩ কোটি টাকা। তিনি জানান, তুরস্কের টার্কিস পেট্রোলিয়াম ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি থেকে ৩০ হাজার টন গ্যাস অয়েল আমদানি করা হচ্ছে। এ খাতে ব্যয় হবে ১২৫ কোটি টাকা। চীনের ইউনিপেক সিঙ্গাপুর থেকে ১ লাখ টন জ্বালানি কেনা হবে। এ খাতে ব্যয় হবে ৩৬৮ কোটি টাকা। যুগ্ম-সচিব জানান, প্রথম লটের ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম সরবরাহের কাজটি পেয়েছে সিঙ্গাপুর ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এগ্রিকো ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড এবং প্রতিটন গমের দাম পড়বে ২৪৭ দশমিক ৯৫ ডলার। অন্যদিকে দ্বিতীয় লটের ৫০ হাজার টন গম সরবরাহের কাজটি পেয়েছে নেদারল্যান্ডস ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান গ্লেনকো গ্রেইন পিবি এবং প্রতিটন গমের দাম পড়বে ২৬৫.২৫ ডলার।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close