¦
১৩ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দুই জনের ১০ বছর

ময়মনসিংহ ব্যুরো | প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে ১৯৯৭ সালে ফাইভ মার্ডারের ঘটনায় ১৩ জনকে যাবজ্জীবন ও দুইজনকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন বিশেষ দায়রা জজ আদালত। দীর্ঘ ১৮ বছর পর সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে বুধবার দুপুরে আদালতের বিচারক ড. মোহাম্মদ আমীর উদ্দিন এই রায় ঘোষণা করেন। মামলায় ১০৭ আসামির মধ্যে ১৫ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা এবং বাকিদের বেকসুর খালাস দিয়া হয়। এরই মধ্যে ১৪ আসামির মৃত্যু হয়েছে এবং ৭ জন এখনও পলাতক রয়েছে। রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে সাজাপ্রাপ্তদের স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।
মামলার রায়ে জানা যায়, ১৯৯৭ সালে গরুর ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে হালুয়াঘাট উপজেলা সদরের গরুহাটা গোপীনগর এলাকায় জালাল উদ্দিনের সঙ্গে হোসেন আলী মণ্ডলের বাকবিতণ্ডা, ঝগড়াঝাটি হয়। এ নিয়ে চার দফা গ্রাম্য সালিশও হয়। এতেও মিটমাট না হওয়ায় ৯ মে হোসেন আলী মণ্ডলের নেতৃত্বে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে শতাধিক এলাকাবাসী জালাল উদ্দিনের বাড়ির ৫টি ঘরে ভাংচুর চালিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। এ সময় জালাল উদ্দিনের ভাই আবদুল মোতালেবকে (৪২) কুপিয়ে জখম করে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে তারা। এছাড়া জালাল উদ্দিনের বড় ভাই নুরুল ইসলাম (৬০), ছোট ভাই আবদুর রশিদ (৪৫), ভাতিজা সাজাহান (২৬) ও একমাত্র ছেলে আলমগীরকে (১৮) রামদা, বল্লম, কিরিজ ও ছুরি দিয়ে জখম করে হত্যা করে।
এ ঘটনায় প্রাণে রক্ষা পাওয়া জালাল উদ্দিন বাদী হয়ে পরদিন হালুয়াঘাট থানায় ১০৭ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে বিভিন্ন সময় পুলিশ হত্যাকাণ্ডের মূল হোতা হোসেন আলী মণ্ডলসহ একশ জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। এরপর সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় দীর্ঘ ১৮ বছর পর আদালত ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দেন। এছাড়া দুজনকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হল- হালুয়াঘাট উপজেলা সদরের গরুহাটা গোপীনগর এলাকার হোসেন আলীর ছেলে হক মিয়া, আকবর আলীর ছেলে সিরাজুল, মানিক ও আজিজুল, ওমেদ আলীর ছেলে আবদুস সাত্তার, বারেক, নুর মোহাম্মদ ও কাসেম, আবদুল হেকিম মুন্সীর ছেলে ফজলুল করিম, আবু তাহের ওরফে নকুল ও আবুল খায়ের, সোবহানের ছেলে গফুর উদ্দিন এবং আবদুল হেকিমের ছেলে রমজান। এছাড়া ১০ বছর সাজাপ্রাপ্তরা হল- জসিম উদ্দিন ওরফে জসু ও আবদুর রাজ্জাক।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close