¦
আদালতে ফতুল্লার আলীগ নেতার ছেলের আত্মসমর্পণ

ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি | প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

অবশেষে ফতুল্লার আলোচিত সহদর দুই বোনকে যৌন নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে বাপ্পী আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশের পর যমুনা টেলিভিশনের সংবাদকর্মীরা যৌন হয়রানিবিষয়ক সরেজমিন প্রতিবেদন তৈরি করতে আসায় পুলিশের চাপের মুখে আওয়ামী লীগ নেতা তার ছেলেকে সোমবার অনেকটা গোপনীয়ভাবে আদালতে আত্মসমর্পণ করিয়েছেন।
স্থানীয়রা জানায়, ২৭ জানুয়ারি পাগলা চিতাশাল মুসলিমপাড়া এলাকায় টেক্সটাইল মিল কর্মী সহদর দুই বোনকে কাজে যাওয়ার সময় ভোরে ফতুল্লা থানা কৃষক লীগের সভাপতি হুময়ান কবিরের ছেলে বাপ্পী ও তার বন্ধু জগদীস ওরফে জগা মিলে রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে যায়। পরে এক পরিত্যক্ত বাড়িতে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তাদের ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে দুই বোনকে উদ্ধার করে। ওই সময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় হয়রানির শিকার বড় বোন থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার পর বাপ্পী ও তার বন্ধু জগা এলাকায় প্রকাশ্যে চলাফেরা করে স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় তোলে। পরে আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়নের পরামর্শে ৮ ফেব্র“য়ারি জগা আদালতে আত্মসমর্পণ করে। তাকে জামিনে মুক্ত করার পর বাপ্পীকে আত্মসমর্পণ করিয়ে সহজে জামিন করাবে তার বাবা। এতে পুলিশ যাতে বাপ্পীকে হয়রানি না করে এ জন্য থানায় দেয়া হয় মোটা অংকের টাকা। যার ফলে বাপ্পী বাসায় থাকলেও পুলিশ তাকে ঘটনার ২৫ দিন পরও গ্রেফতার করেনি।
স্থানীয়দের এমন অভিযোগের সত্যতা জানতে যমুনা টেলিভিশনের সংবাদ কর্মীরাসহ এ প্রতিবেদক ২২ ফেব্র“য়ারি চিতাশাল মুসলিমপাড়া এলাকায় হুময়ান কবিরের বাড়িতে গিয়ে বাপ্পীকে ঘরেই পান। এ সময় বাপ্পী জানান, পুলিশ এ পর্যন্ত তাদের বাসায় একবারও আসেনি। তার বাবা রাজনীতি করায় প্রতিপক্ষরা তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে হয়রানি করছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, আওয়ামী লীগ নেতার কাছ থেকে কোনো টাকা নেয়া হয়নি। তার ছেলেকে গ্রেফতারের জন্য একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close