¦
সাকিবের রিভিউ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০১৫

বাংলাদেশের ইনিংসের শেষ বলে লো ফুলটস বলটা সাকিবের পায়ে লাগে। সঙ্গে সঙ্গে এলবিডব্লু দিয়ে দেন আম্পায়ার। শেষ বলে রানও হয় না। কিন্তু রহস্যজনকভাবে রিভিউ নেন সাকিব! পাকিস্তান ক্রিকেটাররা ততক্ষণে চলে গেছেন ড্রেসিংরুমে। আম্পায়ার জানালেন সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত মাঠেই থাকতে হবে সাকিবকে। ফল সাকিবের পক্ষে আসেনি, কিন্তু অবাক করা রিভিউতে মজাই পেয়েছেন টাইগারভক্তরা।
বাউন্ডারি মেরে ১০০ ২০০, ৩০০
বাউন্ডারি মেরে বাংলাদেশ একেকটা মাইলফলক পার করেছে। সাদ নাসিমের বলে চার মেরে বাংলাদেশকে ১০০ রানে নিয়ে যান মুশফিকুর রহিম। এরপর সাঈদ আজমলের বলে বাউন্ডারি হাকিয়ে দুইশ পার করেন তামিম ইকবাল। ওয়াহাব রিয়াজকে ছয় মেরে তিনশ পার করান সাব্বির রহমান।
অদ্ভুত সেঞ্চুরি উদযাপন
একই ম্যাচে বাংলাদেশের এই প্রথম দুই ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করেছেন। তবে সেঞ্চুরির পর তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম কেউই ব্যাট উঁচু করেননি। দুজনেই হাত উঁচু করে দর্শক অভিনন্দনের জবাব দিয়েছেন। তামিম ইকবাল পাঁচ আঙুল টিপে আর মুশফিক বুক চাপড়ে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন। দুজনেরই ব্যাট তখন মাটিতে।
তাসকিনের উদযাপন
ভয়াল হয়ে উঠছিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক আজহার আলী। ৭৩ বলে যখন ৭২ রান, তখনই তাকে ফেরান তাসকিন। ২৮তম ওভারে তাসকিনের বল ব্যাটের কানায় লেগে মুশফিকের তালুবন্দি হয়। পাখির ডানার মতো দুহাত মেলে উড়তে থাকেন তাসকিন।
ক্যাচ ফেলার মাশুল
তামিম ইকবাল ৪৮ ও মুশফিকুর রহিম ৩৫ রানেই আউট হতে পারতেন! সাদ নাসিম ও জুনায়েদ খান দুজনের ক্যাচ ছেড়ে দেন। এরপর পাকিস্তানকে আর সুযোগ দেননি এই দুই ব্যাটসম্যান। সেঞ্চুরি করে বাংলাদেশকে তিনশ পার করিয়েছেন। তামিম ১৩২, মুশফিক ১০৬।
দ্বিতীয় সংস্করণ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close