jugantor
মুশতাক খুশি

  স্পোর্টস রিপোর্টার  

৩০ এপ্রিল ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

বাংলাদেশকে ৩৩২ রানে অলআউট করে দেয়ার পর হাফিজের সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের সংগ্রহটা স্বস্তিদায়ক। পুরোপুরি চালকের আসনে না হলেও দ্বিতীয় দিন শেষে ম্যাচে এখন পাকিস্তানই সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। দলের পারফরম্যান্সে খুশি স্পিন কোচ মুশতাক আহমেদ। আজ তৃতীয় দিনে নিজেদের স্কোরটা আরও বড় করতে চায় পাকিস্তান। বাংলাদেশকে চাপে ফেলতে প্রথম ইনিংসেই বড় লিড চান মুশতাক। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের মূল্যায়ন করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা ভাবিনি যে, বাংলাদেশের ব্যাটিং এভাবে ধসে পড়বে। উইকেট খুবই ধীরগতির ছিল। তবে আমাদের বোলাররা অসাধারণ বল করেছে। ফিল্ডাররাও ভালো সমর্থন দিয়েছে। ফলে দিনটা আমাদের হয়েছে।’ বুধবার বোলার-ফিল্ডারদের সাফল্যের সঙ্গে অধিনায়ক মিসবাহকেও কৃতিত্ব দিলেন মুশতাক। সাবেক এ লেগ স্পিনার বলেন, ‘আমি মিসবাহকে দারুণ কৃতিত্ব দেব। সে যেভাবে গুছিয়ে ফিল্ডিং সাজিয়েছে, ব্যাটসম্যানদের স্কোর করার পথ বন্ধ করে দিয়েছে, তা অসাধারণ ছিল।’

সেঞ্চুরিয়ান হাফিজের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করে মুশতাক বলেন, ‘আমাদের ব্যাটিংয়ের চিন্তাটা ছিল, উইকেট হারানো যাবে না। যত বেশি সম্ভব রান তুলতে হবে। এই উইকেটে কিছুটা সতর্কতা প্রয়োজন। কিন্তু এখানে আবার আপনি ইতিবাচক না থাকলে এবং একটু আক্রমণ না করলে রান পাবেন না। হাফিজ সেটা খুব ভালোভাবে করেছে। আজকের পারফরম্যান্সের জন্য আমি ওকেই কৃতিত্ব দেব।’ পাকিস্তানের স্পিনাররা দ্বিতীয় দিনে সফলতা পেয়েছেন। স্পিন কোচ হিসেবে সেটি মুশতাকের জন্যও বড় সাফল্য। ইয়াসির শাহ, জুলফিকার বাবরদের পারফরম্যান্স সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমি আগের দিনই আশা করছিলাম, ইয়াসির শাহ ও জুলফিকার বাবর আরও বেশি উইকেট পাবে।’



সাবমিট

মুশতাক খুশি

 স্পোর্টস রিপোর্টার 
৩০ এপ্রিল ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
বাংলাদেশকে ৩৩২ রানে অলআউট করে দেয়ার পর হাফিজের সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের সংগ্রহটা স্বস্তিদায়ক। পুরোপুরি চালকের আসনে না হলেও দ্বিতীয় দিন শেষে ম্যাচে এখন পাকিস্তানই সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। দলের পারফরম্যান্সে খুশি স্পিন কোচ মুশতাক আহমেদ। আজ তৃতীয় দিনে নিজেদের স্কোরটা আরও বড় করতে চায় পাকিস্তান। বাংলাদেশকে চাপে ফেলতে প্রথম ইনিংসেই বড় লিড চান মুশতাক। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের মূল্যায়ন করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা ভাবিনি যে, বাংলাদেশের ব্যাটিং এভাবে ধসে পড়বে। উইকেট খুবই ধীরগতির ছিল। তবে আমাদের বোলাররা অসাধারণ বল করেছে। ফিল্ডাররাও ভালো সমর্থন দিয়েছে। ফলে দিনটা আমাদের হয়েছে।’ বুধবার বোলার-ফিল্ডারদের সাফল্যের সঙ্গে অধিনায়ক মিসবাহকেও কৃতিত্ব দিলেন মুশতাক। সাবেক এ লেগ স্পিনার বলেন, ‘আমি মিসবাহকে দারুণ কৃতিত্ব দেব। সে যেভাবে গুছিয়ে ফিল্ডিং সাজিয়েছে, ব্যাটসম্যানদের স্কোর করার পথ বন্ধ করে দিয়েছে, তা অসাধারণ ছিল।’

সেঞ্চুরিয়ান হাফিজের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করে মুশতাক বলেন, ‘আমাদের ব্যাটিংয়ের চিন্তাটা ছিল, উইকেট হারানো যাবে না। যত বেশি সম্ভব রান তুলতে হবে। এই উইকেটে কিছুটা সতর্কতা প্রয়োজন। কিন্তু এখানে আবার আপনি ইতিবাচক না থাকলে এবং একটু আক্রমণ না করলে রান পাবেন না। হাফিজ সেটা খুব ভালোভাবে করেছে। আজকের পারফরম্যান্সের জন্য আমি ওকেই কৃতিত্ব দেব।’ পাকিস্তানের স্পিনাররা দ্বিতীয় দিনে সফলতা পেয়েছেন। স্পিন কোচ হিসেবে সেটি মুশতাকের জন্যও বড় সাফল্য। ইয়াসির শাহ, জুলফিকার বাবরদের পারফরম্যান্স সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমি আগের দিনই আশা করছিলাম, ইয়াসির শাহ ও জুলফিকার বাবর আরও বেশি উইকেট পাবে।’



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র