jugantor
রাজতন্ত্রের আদলে গণতন্ত্রকে বন্দি রেখেছে সরকার
১১ মাস পর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কারামুক্ত রিজভী

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

দীর্ঘ ১১ মাসের বেশি সময় পর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এলেন সদ্য কারামুক্ত বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বুধবার বিকালে কার্যালয়ে আসার পর নেতাকর্মীরা তাকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। ৭ ডিসেম্বর উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে ১০ মাস পর মুক্তি পান রিজভী। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রিজভী অভিযোগ করেন, ‘কারাগার ও কারাগারের বাইরে জনজীবন সবটাই আমার কাছে বন্দিশালার মতো মনে হচ্ছে। যেখানে মানুষের কথা বলার ন্যূনতম অধিকার ও মত প্রকাশের অধিকার, চিন্তার স্বাধীনতা সবকিছু গলাটিপে হত্যা করা হয়েছে। আজ রাজতন্ত্রের আদলে গণতন্ত্রকে সরকার বন্দি করে রেখেছে। মানুষ কথা বলতে ভয় পাচ্ছে, শুভেচ্ছা জানাতেও ভয় পাচ্ছে। এই ধরনের একটা ভয়ংকর পরিস্থিতি দেশে বিরাজমান।

২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া আন্দোলনের মধ্যে আত্মগোপনে থাকা রুহুল কবির রিজভীকে ৩০ জানুয়ারি র‌্যাবের একটি দল বারিধারার বাসা থেকে আটক করে। আত্মগোপনে থেকে তিনি দলের হরতাল-অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করছিলেন। দশম সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তির কর্মসূচি নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে ৩ জানুয়ারি রাতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রিজভী অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশ তুলে নিয়ে তাকে এ্যাপেলো হাসপাতালে ভর্তি করে। চার দিনের মাথায় গভীর রাতে সেখান থেকে চুপিসারে বেরিয়ে যান তিনি। এরপর থেকেই গোপন স্থান থেকে বিবৃতির মাধ্যমে দলের কর্মসূচি ঘোষণা করে আসছিলেন বিএনপির এই নেতা।

বিকাল সাড়ে ৩টায় রিজভী নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে পৌঁছালে দলের নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। এ সময় নেতাকর্মীরা নানা স্লোগান দেন। রিজভী কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় দফতর শাখায় পৌঁছালে দলের সহ-দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, আসাদুল করীম শাহিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা ও রফিক শিকদারসহ অনেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। পরে যুবদল, মুক্তিযোদ্ধা দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষক দল, মহিলা দল, ওলামা দল, ছাত্রদলসহ অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে কারামুক্ত নেতাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। পরে দলের আন্তর্জাতিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপনও ফুল দিয়ে রিজভীকে অভিনন্দন জানান। পৌর নির্বাচনে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের কার্যক্রমের কঠোর সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিএনপি ৯০ শতাংশ মেয়র পদ পাবেন।



সাবমিট

রাজতন্ত্রের আদলে গণতন্ত্রকে বন্দি রেখেছে সরকার

১১ মাস পর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কারামুক্ত রিজভী
 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ ডিসেম্বর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
দীর্ঘ ১১ মাসের বেশি সময় পর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এলেন সদ্য কারামুক্ত বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বুধবার বিকালে কার্যালয়ে আসার পর নেতাকর্মীরা তাকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। ৭ ডিসেম্বর উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে ১০ মাস পর মুক্তি পান রিজভী। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রিজভী অভিযোগ করেন, ‘কারাগার ও কারাগারের বাইরে জনজীবন সবটাই আমার কাছে বন্দিশালার মতো মনে হচ্ছে। যেখানে মানুষের কথা বলার ন্যূনতম অধিকার ও মত প্রকাশের অধিকার, চিন্তার স্বাধীনতা সবকিছু গলাটিপে হত্যা করা হয়েছে। আজ রাজতন্ত্রের আদলে গণতন্ত্রকে সরকার বন্দি করে রেখেছে। মানুষ কথা বলতে ভয় পাচ্ছে, শুভেচ্ছা জানাতেও ভয় পাচ্ছে। এই ধরনের একটা ভয়ংকর পরিস্থিতি দেশে বিরাজমান।

২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া আন্দোলনের মধ্যে আত্মগোপনে থাকা রুহুল কবির রিজভীকে ৩০ জানুয়ারি র‌্যাবের একটি দল বারিধারার বাসা থেকে আটক করে। আত্মগোপনে থেকে তিনি দলের হরতাল-অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করছিলেন। দশম সংসদ নির্বাচনের বর্ষপূর্তির কর্মসূচি নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে ৩ জানুয়ারি রাতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রিজভী অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশ তুলে নিয়ে তাকে এ্যাপেলো হাসপাতালে ভর্তি করে। চার দিনের মাথায় গভীর রাতে সেখান থেকে চুপিসারে বেরিয়ে যান তিনি। এরপর থেকেই গোপন স্থান থেকে বিবৃতির মাধ্যমে দলের কর্মসূচি ঘোষণা করে আসছিলেন বিএনপির এই নেতা।

বিকাল সাড়ে ৩টায় রিজভী নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে পৌঁছালে দলের নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। এ সময় নেতাকর্মীরা নানা স্লোগান দেন। রিজভী কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় দফতর শাখায় পৌঁছালে দলের সহ-দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, আসাদুল করীম শাহিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা ও রফিক শিকদারসহ অনেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। পরে যুবদল, মুক্তিযোদ্ধা দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষক দল, মহিলা দল, ওলামা দল, ছাত্রদলসহ অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে কারামুক্ত নেতাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। পরে দলের আন্তর্জাতিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপনও ফুল দিয়ে রিজভীকে অভিনন্দন জানান। পৌর নির্বাচনে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের কার্যক্রমের কঠোর সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিএনপি ৯০ শতাংশ মেয়র পদ পাবেন।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র